রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
কিং চার্লস ও কুইন কনসোর্ট বাংলা টাউন আসছেন  » «   অসুস্থ চারখাই ইউপি চেয়ারম্যান হোসেন মুরাদ চৌধুরীর আশু সুস্থতা কামনায় লন্ডনে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  » «   আলীনগর ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে‘র আত্নপ্রকাশ  » «   অমর একুশে বইমেলার উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী  » «   তরুণদের উচ্চশিক্ষায় সহায়তা: মেয়র লুৎফুর রহমান এবার চালু করলেন ইউনির্ভাসিটি বার্সারি স্কিম  » «   ‘টি আলী স্যার’কে নিয়ে হবিগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে গানের চিত্রায়ণ  » «   বিবিসিজিএইচ এর বিয়ানীবাজারের মোল্লাপুর-এ বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান  » «   কবিকণ্ঠের সুবর্ণরেখায় শিক্ষাব্রতী শীর্ষক সুহৃদ আড্ডায় বক্তারা- অগণন প্রাণে আলো জ্বেলেছেন মো. শওকত আলী  » «   স্পেন-বাংলাদেশ প্রাতিষ্ঠানিক সম্পর্কের পরিধি বিস্তৃত হচ্ছে  » «   টি আলী স্যারকে নিয়ে লেখা আব্দুল গাফফার চৌধুরী’র গানে সুর দিলেন মকসুদ জামিল মিন্টু  » «   লন্ডনে প্রকাশক ও গবেষক মোহাম্মদ নওয়াব আলীর সাথে মতবিনিময় ও ‘বাসিয়ার বই আলোচনা‘র  মোড়ক উন্মোচন  » «   ঢাকা এন আর বি ক্লাবে – ‘বাঙালীর বিয়েতে বাংলাদেশের পোশাক’ ক্যাম্পেইনের নেটওয়ার্কিং মিটিং  » «   প্রধানমন্ত্রীর সাথে ঢাবি অ্যালামনাই ইন দ্য ইউকে’র সভাপতির সাক্ষাৎ  » «   লন্ডনে গোলাপগঞ্জের কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের সাথে সরওয়ার হোসেনের মতবিনিময়  » «   বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জের মানুষের সেবায় আজীবন পাশে থাকবো -সরওয়ার হোসেন  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন

‘প্লাস্টিকের’ চালবাজী



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

 

কয়েকদিন আগে বাসার সামনের দোকান থেকে এক ডজন ডিম কিনলাম। দোকানে দুই ধরনের ডিম আছে। একটি একটু ছোট, দাম ডজনপ্রতি ৯৫ টাকা; আরেকটা একটু বড়, দাম ১০৫ টাকা। বড় ডিম দেওয়ার সময় দোকানি খুব আস্থার সঙ্গে বলে দিলেন, প্রতি ডিমে দুটি করে কুসুম পাবেন।

আমি বিশ্বাস না করেই ডিম নিয়ে বাসায় ফিরলাম। এ জীবনে ডিম তো আর কম খাওয়া হয়নি। কখনো এক ডিমে দুটি কুসুম পেয়েছি- এমনটা মনে করতে পারছি না। বা হলেও এটা একেবারেই হাতেগোনা ব্যাপার। কিন্তু সেদিন দোকান থেকে আনা প্রতিটি বড় ডিমেই যথারীতি দুটি করেই কুসুম পেতে থাকলাম। ‘বিবাহিত-ব্যাচেলর’ লাইফে ডিমের এই বিচিত্র ভালাবাসা আমাকে বাড়তি আনন্দ দিয়েছে তাতে কোনো সন্দেহ নাই।

একদিন পরিবারের লোকজনকেও ব্যাপারটা বললাম। তাঁরা প্রথমেই এটা নিয়ে হাসি-ঠাট্টা শুরু করে দিলেন। একজন তো বলেই ফেললেন, আমি বোকা বলে দোকানদার আমাকে এইভাবে ঠকিয়ে দিয়েছে। আরেকজন বললেন, ‘এ নির্ঘাত প্লাস্টিকের ডিম। ডিম ভাঙলেই দুটি কুসুম একসঙ্গে মিশে যাবে। আলাদা করে পাবেন না।’ তিনি আরো বললেন, প্লাস্টিকের চালও নাকি আছে।

আরেকজন বললেন, এটা চীনাদের কাজ। প্লাস্টিক চালে বাজার ছেয়ে যাচ্ছে বলে তিনি শুনেছেন। কোনটা যে আসল আর কোনটা যে নকল চাল- তা নাকি রান্নার পর ভাতের ফেন দেখে বোঝা যায়। ভিডিও শেয়ারের প্লাটফর্ম ইউটিউবে নাকি প্লাস্টিকের চাল, প্লাস্টিকের ডিম বানানোর প্রভূত ভিডিও আছে।

২০১৭ সালে বিষয়টি নিয়ে বিবিসির করা একটি প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে বললাম যে, প্লাস্টিক ডিম বা চাল বলতে আসলে কিছু নেই। এটা একটা মিথ্যা তথ্য। এই অদ্ভূত প্রোপাগান্ডা চীন দিয়ে শুরু। পরে নাইজেরিয়া, সেনেগাল, ঘানা, গাম্বিয়া প্রভৃতি দেশেও ছড়িয়ে পড়ে। এই গুজবের মাত্রা এতোটাই ছিল যে, অনেক দেশের সরকারকে পর্যন্ত এ নিয়ে কথা বলতে হয়। আর প্লাস্টিক দিয়ে চাল বা ডিম তৈরি করা অনেক বেশি খরচ সাপেক্ষ। এই গুজবের মূলে হচ্ছে, মানুষ যাতে আমদানি করা চাল না কিনে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত চাল কেনে।

তবে এতে তাঁরা সন্তোষ্ট হলেন বলে মনে হলো না। শেষ পর্যন্ত আমার দুই কুসুমের সাধের যে কয়টা ডিম ঘরে ছিল, সেগুলোর মধ্যে দুটো ভেঙে প্রমাণ দিতে হলো। সবার সামনে ডিম ভাঙা হলো, যথারীতি দুটো কুসুম আর সেগুলো আলাদা। প্রকৃত কুসুমের মতোই।

এর মধ্যে আবার গাইবান্ধায় প্লাস্টিকের চাল পাওয়ার ঘটনা ঘটল। সেই চাল নাকি আগুনে দিলেই প্লাস্টিকের মতোই হয়ে যায়! এটা শুধু পরিবার বা লোকজনের কৌতুহলের সীমাবদ্ধ নয়। একেবারে পুলিশ, প্রশাসন পর্যন্ত গিয়ে পৌঁছেছে। যৌথ অভিযান হয়েছে, একেবারে ধরধর-মারমার অবস্থা।

কিন্তু আসলেই প্লাস্টিকের চাল বা ডিম কী আছে? কিংবা নেই। বিষয়টি নিয়ে বৈজ্ঞানিক তথ্য-প্রমাণাদি নিয়ে সরকারের পক্ষ থেকে কথা বলা উচিত। এটা পুলিশ বা উপজেলা প্রশাসনের ব্যাপার নয়। গোটা খাদ্য মন্ত্রণালয়, যারা খাদ্যের মান নিয়ন্ত্রণ করেন, যারা এদেশে বিজ্ঞান নিয়ে কাজ করেন- সবার এ ব্যাপারে দায় আছে। এটা গুজব বা প্লাস্টিকের চাল/ডিম- যাই হোক, দুটোই জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকি।

চন্দন সাহা রায় ; সাংবাদিক,কলামিস্ট


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন