রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
বাংলাদেশে বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকের প্রাণহানি এবং সৃষ্ট অস্থিরতা-সহিংসতায় লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের ক্ষোভ-নিন্দা  » «   সৃজনের আলোয় মুস্তাফিজ শফি, লন্ডনে বর্ণাঢ্য সংবর্ধনা  » «   বৃটেনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তাহমিনার অসাধারণ সাফল্য  » «   দুই বঙ্গকন্যা ব্রিটিশ মন্ত্রীসভায় স্থান পাওয়ায় বঙ্গবন্ধু লেখক এবং সাংবাদিক ফোরামের আনন্দ সভা ও মিষ্টি বিতরণ  » «   কেয়ার হোমের লাইসেন্স বাতিলের বিরুদ্ধে আইনী লড়াইয়ে ল’ম্যাটিক সলিসিটর্সের সাফল্য  » «   যুক্তরাজ্যে আবারও চার ব্রিটিশ-বাংলাদেশী  পার্লামেন্টে  » «   আমি লুলা গাঙ্গ : আমার আর্তনাদ কেউ  কী শুনবেন?  » «   বাংলাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিবাদে লন্ডনে ইউনিভার্সেল ভয়েস ফর হিউম্যান রাইটসের সেমিনার অনুষ্ঠিত  » «   লন্ডনে বাংলা কবিতা উৎসব ৭ জুলাই  » «   হ্যাকনি সাউথ ও শর্ডিচ আসনে এমপি প্রার্থী শাহেদ হোসাইন  » «   ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই ইন দ্য ইউকে’র সাথে ঢাবি ভিসি প্রফেসর ড. এএসএম মাকসুদ কামালের মতবিনিময়  » «   মানুষের মৃত্যূ -পূর্ববর্তী শেষ দিনগুলোর প্রস্তুতি যেমন হওয়া উচিত  » «   ব্যারিস্টার সায়েফ উদ্দিন খালেদ টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নতুন স্পীকার নির্বাচিত  » «   কানাডায় সিলেটের  কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলমকে সংবর্ধনা ও আশার আলো  » «   টাওয়ার হ্যামলেটসের নতুন লেজার সার্ভিস ‘বি ওয়েল’ এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন মেয়র লুৎফুর রহমান  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন

বাংলাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিবাদে লন্ডনে ইউনিভার্সেল ভয়েস ফর হিউম্যান রাইটসের সেমিনার অনুষ্ঠিত



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ইউনিভার্সেল ভয়েস ফর হিউম্যান রাইটসের উদ্যোগে বাংলাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘন ও গণতন্ত্রের পুনরুদ্ধারের দাবিতে এক সেমিনার গত ১জুলাই পূর্ব লন্ডনের মাইক্র বিজনেস সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়।

ইউনিভার্সেল ভয়েস ফর হিউম্যান রাইটসের সভাপতি জাকের আহমদ চৌধুরীর পরিচালনায় এবং সংগঠনের উপদেষ্টা আব্দুল্লাহ আল মুনিম এর সভাপতিত্বে  প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট আইনজীবী ব্যারিস্টার আবু বকর মোল্লা।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ও বেথনালগ্রীণ ও স্টেপনি আসনের এমপি পদপ্রার্থী আজমল মাসরুর, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী অলিউল্লাহ নোমান, ফুলবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এমদাদ হোসেন টিপু, ইউনিভার্সেল ভয়েস ফর হিউম্যান রাইটসের উপদেষ্টা মোহাম্মদ আব্দুল আলী, অনলাইন এক্টিভিষ্ট ফোরাম ইউকের সভাপতি জয়নাল আবেদীন, বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী সাইফুর রহমান পারভেজ, পীস ফর বাংলাদেশের সহ সভাপতি মো মাহিন খান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ব্যারিস্টার আবু বকর মোল্লা বলেন, প্রথমত: একটি দেশের মানচিত্র, স্বাধীনতা ও স্বার্বভৌমত্ব; দ্বিতীয়ত: ভোটাধিকার ও গণতান্ত্রিক স্বাধীনতা। বাংলাদেশে এই উপাদানগুলো আজ হুমকির সম্মুখীন। উক্ত উপাদানগুলোকে রক্ষা করার পরের ধাপে আসে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা করার দায়িত্ব। বর্তমান বাংলাদেশ সরকার উল্লেখিত সকল বিষয় গুলোকে হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে। আধিপত্যবাদী প্রতিবেশী ও তাদের মনোনীত বর্তমান আওয়ামী লীগের কারণে ভবিষ্যতে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও স্বার্বভৌমত্ব টিকে থাকবে কিনা সে বিষয়ে তিনি আশঙ্কা ও উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অলিউল্লাহ নোমান বলেন, বর্তমান বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ বাংলাদেশে স্বাধীনতা ও স্বার্বভৌমত্বকে গোপনে দিল্লির হাতে সমর্পন করেই ক্ষমতায় টিকে আছে। তাদের সহযোগিতা ও সমর্থনেই বর্তমান বাংলাদেশ সরকার লাগামহীন দুর্নীতি, খুন, গুম ও গণতন্ত্রকে হত্যা এবং মানবাধিকার লঙ্ঘন করে যাচ্ছেন।

সভাপতির বক্তব্যে আব্দুল্লাহ আল মুনিম বলেন, বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের বুকের উপর দিয়ে আজকে প্রতিবেশী দেশের গাড়ির চাকা, ট্রেনের চাকা চলছে এবং চলবে। আজকে যদি কোরআনের বুলবুলি আল্লামা দেলোয়ার হোসাঈন সাঈদী বেঁচে থাকতেন তাহলে আমরা তার কাছ থেকে প্রতিবাদ শুনতাম।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও স্বার্বভৌমত্বের পক্ষে সামাজিক যোগাযোগে স্টাটার্স দেয়ার কারণে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফারহাদকে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও স্বার্বভৌমতের পক্ষে কথা বলার কারণে বর্তমান সরকার জামায়াত নেতা নিজামী-মুজাহিদ, বিএনপি নেতা সালাহ উদ্দীন কাদের চৌধুরী সহ অসংখ্য দেশ প্রেমিক নেতাকে প্রহসনমূলক বিচারের মাধ্যমে ফাঁসির কাষ্ঠে ঝুলিয়েছে।

সভায় অন্যান্য বক্তার বলেন, বাংলাদেশ সেনা বাহিনীর ৫৭ জন দেশ প্রেমিক সেনা অফিসারকে ২৫ ফেব্রুয়ারি পিলখানা গণহত্যার মাধ্যমে,  স্কাইপ কেলেঙ্কারীর মাধ্যমে, মধ্যরাতের নির্বাচন করার মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতা, মানবাধিকার, আইনের শাসন ও গণতন্ত্রকে হত্যা করা হয়েছিল।

এ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন অনলাইন এক্টিভিষ্ট ফোরামের সহ সভাপতি মো দেলোয়ার হোসাইন, ইউনিভার্সেল ভয়েস ফর হিউম্যান রাইটসের সেক্রেটারি শাহান বিন নিজাম, ইস্ট এন্ড ফর বাংলাদেশ এর সেক্রেটারি আমিনুল ইসলাম মুকুল, অনলাইন এক্টিভিষ্ট ফোরামের সেক্রেটারি জামিল হোসেন, ইউনিভার্সেল ভয়েস ফর হিউম্যান রাইটস এর সহ সেক্রেটারি করিম মিয়া,  ট্রেজারার মাহিদ রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক এমদাদুল হক কাজল, সহ ট্রেজারার মো মিফতা উদ্দীন,ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট সেক্রেটারি আহমদ আলী, অফিস সম্পাদক তারেক আহমদ, ইক্যুয়াল রাইটস ইন্টারন্যাশনাল এর সেক্রেটারি নওশিন মুছতারি মিয়া সাহিব, নিরাপদ বাংলাদেশ চাই ইউকের ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট সম্পাদক মাহফুজ আহমদ চৌধুরী, ইউনিভার্সেল এর কালচারাল সেক্রেটারি রায়হান চৌধুরী,সহ  মিডিয়া সেক্রেটারি জসিম উদ্দিন, সহ সম্পাদক আব্দুল্লাহ মো তাহের,  সহ কালচারাল সেক্রেটারি মো সামসুদুহা মনজু , জাস্টিস ফর ভিক্টিমস এর সহ সেক্রেটারি ফাহিম আহমদ, অনলাইন এক্টিভিষ্ট ফোরামের সহ সেক্রেটারি দেলোয়ার হোসেন, অনলাইন এক্টিভিষ্ট ফোরাম ইউকের ক্রীড়া সম্পাদক শামিম উদ্দিন, ইউনিভার্সেল ভয়েস ফর হিউম্যান রাইটস এর মহিলা বিষয়ক সম্পাদক  ফারিয়া আক্তার সুমি, মারিয়া বেগম, সুবর্ণা আক্তার, তাহমিনা খানম,  মহিলা সদস্য জান্নাতুল ফেরদৌস তনু, মানবাধিকার কর্মী মো তাজুল ইসলাম, মো. নজরুল ইসলাম, ইউনিভার্সেল ভয়েস ফর হিউম্যান রাইটস এর সদস্য তাহের হোসেন, পাভেল আহমদ, আইয়ান উদ্দিন, হুমায়ুন কবির, মো: ইমরান আহমদ, নজরুল ইসলাম, মো: গোলজার হোসেন, শেরওয়ান আলী, মোঃ ইকবাল হোসেন, মোঃ মিছবাহুল ইসলাম জুনেদ, চৌধুরী তাহমিমা রহমান, সেবুল আহমদ, মো: ফাহাদুজ্জামান, দেলোয়ার হোসেন, পলাশ আহমেদ, মোঃ আলী আহমেদ, মো: শামীম উদ্দিন, মো: জাহেদ হোসেন, মো: আলম আহমদ,

নাইম আহমদ, মো নাসুফ উদ্দিন, কাজী মোহাম্মদ এমদাদ, কয়েছ মাহমুদ, মো নাজমুল হোসেন, ফরহাদ হোসেন, মো সোয়াহবুর রহমান, মাজেদ মিয়া, মো তুফায়েল আহমদ, মোঃ মিফতাহ উদ্দিন,মোঃ কামরুল হাসান রাকিব, এবাদুর রহমান, ফয়সল আহমদ, মোঃ মহসিন, মোঃ আবু তাহের, রাহাদুল ইসলাম, জুয়েল আহমদ মাহিম, মাহফুজ আহমদ চৌধুরী , রেজাউল করিম রাব্বি, মো ওবায়দুল হক তুহিন, আব্দুর রহমান, আহমদ আলী, আলমগীর আজাদ সুমন, জাহির আহমদে, ফাহাদ আহমদ নিশাত, শাকিল আহমদ, আবু তাহের, আব্দুল্লাহ, নাঈম, সাইয়ান আহমদ চৌধুরী, নাহিয়ান আহমদ চৌধুরী ,  রফি চৌধুরী, মো সামসুদুহা মনজু, মো মাহিন খান, মোঃ শাহজান আহমদ, মোঃ রাকিব, মোঃ সাখাওয়াত হাসান, মো আমিনুল ইসলাম সফর, শাকিল আহমদ, রুমেল মিয়া, মো আল আমিন, মো তাহমিদুল ইসলাম, মকসুদ ইবনে ওয়াহিদ কয়েছ, রেজাউল ইসলাম, মো আবুল হাসনাত খান, হুমায়ুন আহমদ, মাহবুব হোসেন, রাসেল আহমদ, মো ফজলুর রহমান,কাওছার আহমদ চৌধুরী, শিবিবর আহমদ, খালেদ আহমেদ,  মিলন কাজী, মো আব্দুল হামিদ, তারেক আহমদ, নাজির আহমেদ, মো ওবাযদুল হক সিদ্দিকী, মো হেলাল আহমদ, সুমন বানিক, ছোটন, আব্দুল আহাদ, রেজাউল করিম রাব্বি, মো আব্দুল মুমিন, সৈয়দ আল মারুফ, জহির আহমদ, আলমগীর আজাদ সুমন, কামরুল হাসান, আবুল  কাশেম আজাদ, নাজমুল আহমদ, মুনসী আসাদুল ইসলাম,  মো শহিদুল ইসলাম,  মো আব্দুছ ছামাদ, মোহাম্মদ ফারুক, পাভেল আহমদ, তাহের হোসেন, রানু মিয়া, শাহ মাহমুদুল হাবিব, ফরহাদ আহমদ, আব্দুর রহমান, মোহাম্মদ রেদওয়ান কবির চৌধুরী, মো  নজরুল ইসলাম, বদরুল ইসলাম, মো শাহিন আলম,ফেরদৌস হাসান, শফিকুল আলম, মোহাম্মদ মুজিবুর রহমান, জামিল আহমেদ, নাঈম, রুমেল মিয়া,  মো আব্দুল কাদের জিলানী, দেলোয়ার হোসাইন, মুমিন খান, আব্দুল করিম, মোশাহিদ আলী, মো ইমাম হোসেন, সানজিদা ইসলাম তমা, আব্দুল গফুর, ফাহিম আহমদ, মো তফুর আহমদ,সাবের আহমদ, অহিদুল ইসলাম, আব্দুল মান্নান ,আব্দুল্লাহ মুঃ তাহের, সৈয়দ মুহিবুর আলী, মো ফায়েজ আহমদ,শাহ মো ওহিদুর রহমান, শাহ মোহাম্মদ সহিদুর রহমান, মো মুরাদ মিয়া, জুয়েল আহমদ মাহিম, ওবায়দুর রহমান, নাজমুল আহমদ প্রমুখ। (বিজ্ঞপ্তি)

 

 

 

 

 


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন