রবিবার, ৩ জুলাই ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
বিলেতে কারী শিল্পে ঈদের ছুটি সময়ের দাবি  » «   ঈদের ছুটি  » «   ইউরোপে জ্বালানি সংকট চরমে, বিকল্প ভাবতে হচ্ছে ইউরোপকে  » «   হাইডে প্রবীণদের স্মরণে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল  » «   ঈদের দিন হোক সবার উৎসবের দিন  » «   ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হসপিটাল সিলেটের সার্টিফিকেট বিতরণী অনুষ্ঠিত  » «   নেদারল্যান্ডস বাংলাদেশী সমিতি’ ইউকে’র যাত্রা শুরু  » «   ব্রিটেন প্রবাসে ঈদ ছুটি নিয়ে ভাবনা ও আমাদের করণীয়  » «   ঈদে ছুটি নাই  » «   কমিউনিটি ও পরিবারের স্বার্থকে প্রাধান্য দিলে ঈদের ছুটি নিয়ে দ্বি-মত থাকবে না- শায়খ আব্দুল কাইয়ুম  » «   ব্রিটেনে ঈদ হলিডে : আকাঙ্ক্ষা ও বাস্তবতা  » «   দয়া নয়, ঈদের ছুটি শ্রমজীবি মুসলমানদের অধিকার  » «   ব্রিটেনে ঈদের ছুটি নিয়ে কমিউনিটি ও মানবাধিকার নেতারা যা বলেন  » «   বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃক বন্যা দুর্গতদের চিকিৎসার্থে বিনামূল্যে ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «   যুক্তরাজ্যে ঈদের ছুটির দাবীতে  আলতাব আলী পার্কে সমাবেশ অনুষ্ঠিত  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


মসজিদের টাকার হিসাব নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ইমামের



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

মসজিদ শান্তির স্থান, যেখানে দুনিয়াবী চিন্তাধারা থেকে নিজেকে মুক্ত রেখে সকলের সাথে হৃদ্যতা ও ভ্রাতৃত্বের বন্দন অটুট থাকার কথা।কিন্তু সেই শান্তি আর প্রার্থনার জায়গাটাকে কেন্দ্র করেই ক্ষমতা আর অর্থের হিসাব নিয়ে ঘঠেছে এক সহিংস ঘঠনা। এমনি এক হৃদয় বিদারক ঘটনা ঘটেছে গাইবান্ধা জেলায়।

গাইবান্ধার সাঘাটায় শুক্রবার জুম্মার নামায শেষে টাকার হিসাব নিয়ে মসজিদ কমিটির দু’পক্ষের মধ্যে সংর্ঘষে আব্দুল করিম মুন্সি (৬৫) নামে ইমাম নিহত হয়েছেন।নিহত করিম মুন্সি উপজেলার ডিমলা পদুমশহর ফকিরপাড়া গ্রামের মৃত তছলিম উদ্দিনের ছেলে এবং একই ইউনিয়নের মজিদের ভিটা জামে মসজিদের ইমাম।

জানা যায়, শুক্রবার উপজেলার ডিমলা পদুমশহর ফকিরপাড়া জামে মসজিদে জুম্মার নামায শেষে মসজিদের টাকার হিসাব নিয়ে মসজিদ কমিটির দু’পক্ষের মধ্যে বাক বিতণ্ডার এক পর্যায়ে সংঘর্ষ শুরু হয়। এতে প্রতিপক্ষের আঘাতে আব্দুল করিম মুন্সি (৬৫) গুরুত্বর আহত হন। দ্রুত তাকে উপজেলার বোনারপাড়াস্থ ডাক্তারের কাছে নিয়ে আসা হলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বোনারপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোখলেছুর রহমান, এএসআই মিজানুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। নিহতের পুত্র হামিদুল হক বাদী হয়ে ৬ জনকে আসামি করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

হৃদয় বিদারক এই ঘটনার পর এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে বলে জানা যায়।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন