সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২ পৌষ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
মালয়েশিয়াস্থ বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের অর্থ সম্পাদকের বিদায়ী সংবর্ধনা  » «   জকিগঞ্জ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে’র সাধারণ সভা ও নির্বাচন  সম্পন্ন  » «   যুক্তরাজ্যে চার ব্রিটিশ-বাংলাদেশী পার্লামেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী  » «   লেবারের ধ্বস, ব্রেক্সিটেই ব্রিটেনের যাত্রা  » «   ব্যারিস্টার ইমনকে আওয়ামী সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক করার দাবি  » «   টানা চতুর্থ বার বিজয়ী হলেন ব্রিটিশ-বাংলাদেশী রুশনারা আলী  » «   পপলার এন্ড লাইমহাউজ আসনে লেবার পার্টির আপসানা বেগম বিজয়ী  » «   বাংলাদেশ এবং আমিরাতের জন্মগত মিল আছে  » «   বিয়ানীবাজার প্রগতি এডুকেশন ট্রাস্টের বিশেষ সাধারণ সভা সম্পন্ন  » «   ১৯টি স্বর্ণের মধ্যে ৯টি’ই মেয়েদের  » «   ব্রিটেন নির্বাচনে ব্রেক্সিট না মানবিকতা?  » «   ব্রিটিশ-বাংলাদেশী রুশনারা আলী আবারও এমপি হচ্ছেন!  » «   মিয়ানমারকে বয়কটের ঘোষণা ৩০ মানবাধিকার সংস্থার  » «   ভয়েস অব বার্সেলোনার সান্তা কলমা শাখা কমিটি ঘোষনা  » «   ৫২ বাংলা টিভির মধ্যপ্রাচ্য টকশো ‘প্রবাসি সংযোগ’  » «  

লর্ড এ্যারিক পিকলসের  বিসিএ কার্যালয় পরিদর্শন এবং পোস্ট  ব্রেক্সিট বিষয়ে মতবিনিময়



পোস্ট  ব্রেক্সিট  আলোচনার অংশ হিসাবে  ব্রিটিশ কারী শিল্প সম্পর্কে  রাইট অনারেবল ও লর্ড এ্যারিক পিকলস বাংলাদেশ ক্যাটারার্স এসোসিয়েশন ( বিসিএ) কার্যালয় পরিদর্শন এবং কর্মকর্তাদের সাথে  এক মতবিনিময় করেছেন।

১৯ মার্চ মঙ্গলবার পরিদর্শন ও মতবিনিময় সভায়  বিসিএ এর কার্যালয়ে তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান বিসিএ‘র কর্মকর্তাবৃন্দ।

লর্ড এ্যারিক পিকলস বলেন- কারী শিল্পের সমস্যা , সম্ভাবনা এবং উত্তোরণের  জন্য বিসিএ কে কারী ইন্ড্রাট্রি সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সংগঠন এবং প্রতিষ্ঠানের সাথে একযোগে কাজ করতে হবে। কারী শিল্পের ইতিবাচক দিকগুলো সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগে ঐক্যবদ্ধভাবে জানানোর প্রতি গুরুত্ব আলোপ করে বলেন- ব্রিটিশ কারী ইন্ড্রাটিতে বাংলাদেশী ক্যুজিন যে অবদান রাখছে তা নি:সন্দেহে ইতিবাচক এবং এটাকে ধরে রাখতে  চিহ্নিত সমস্যাগুলো নিয়ে  সাংগঠনিক ভাবে সরকারের  উচ্চ পর্যায়ে  আরও উচ্চকণ্ঠ হওয়া জরুরী। যাতে কারী শিল্পের সংকট নিরসন এবং এর বিশাল অর্থনৈতিক সম্ভাবনার বিষয়টি ব্রেক্সিট ইস্যুর কারণে  সরকারের সুদৃষ্টি থেকে আড়ালে না পড়ে।

বিসিএ এর সভাপতি কামাল ইয়াকুব এর সভাপতিত্বে   অনুষ্ঠানটির প্রাণবন্ত সঞ্চালনা করেন সেক্রেটারী জেনারেল ওলি খাঁন।  প্রেস এন্ড পাবলিসিটি সেক্রেটারী ফরহাদ হোসেন টিপু‘র পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত এর মধ্য দিয়ে সভা শুরু হয়।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ হাইকমিশনের কমার্শিয়াল কনস্যুলার এস এম জাকারিয়া হক , সাবেক সেক্রেটারী জেনারেল এম এ মুনিম, বিসিএ এর সিনিয়র সহ সভাপতি মো. ফজল উদ্দিন, ট্রেজারার  সাইদুর রহমান বিপুল, অর্গানাইজিং সেক্রেটারী মিটু চৌধুরী প্রমূখ।

বক্তারা-সরকারের অর্থনৈতিক পলিসিতে  ব্রিটিশ কারী ইন্ড্রাষ্টিকে  বিনিয়োগ বান্ধব করার প্রতি জোর দাবী জানিয়ে বলেন, ভিএটির জন্য সরকারের নির্ধারিত থ্রেশহোল্ড ক্যাপ ৮৩,০০০ পাউন্ড থেকে  ১,৫০,০০০ পাউন্ড  নির্ধারণ করা বিপর্যস্ত শিল্পের জন্য সময়ের দাবী ।

এছাড়াও  ব্রেক্সিট বাস্তবায়ন পরবর্তী সময়ের  জন্য প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে‘র ঘোষিত অভিবাসন পরিকল্পনা অনুযায়ী  কমনওয়েল্থ দেশ থেকে  রেষ্টুরেন্ট কর্মী সংকট নিরসনে  দক্ষ ও অদক্ষ কর্মী আনার আইনী সুযোগ দেবার জন্য জোর দাবী জানানো হয়।

কারী শিল্পের বিভিন্ন সমস্যা ও প্রতিবন্ধকতার চিত্র তুলে ধরে বক্তারা বলেন – সম্প্রতি প্রকাশিত তথ্য মতে,  ব্রিটিশ খাবার সংস্কৃতিতে আলোকিত অবদান রাখা বাংলাদেশী রেষ্টুরেন্ট  স্টাফ সংকটের কারণে  প্রতি সপ্তাহে প্রায় ৩টি করে কারী রেষ্টুরেন্ট বন্ধ হচ্ছে। যা ব্রিটেনের অর্থনীতিতে এর সরাসরি প্রভাব পড়ছে।

প্রসঙ্গত বাংলাদেশ  ক্যাটারার্স এসোসিয়েশন (বিসিএ) বাংলাদেশী কারী ইন্ড্রষ্টির  প্রতিনিধিত্বশীল সর্ববৃহৎ প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশীদের দ্বারা পরিচালিত এই ইন্ড্রাষ্টিতে  কর্মসংস্থানে  আছেন  এক লক্ষাধিক মানুষ।  কারী ইন্ড্রাষ্টি থেকে  সরকার প্রতি বছর আয় করছে ৪.২ বিলিয়নের বেশী।

ব্রিটিশ খাদ্যভাসে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখা কারি শিল্পের আলোকিত দিকগুলো মূলধারায় তুলে ধরতে ক্যাটারার্সদের বৃহৎ সংগঠন  বিসিএ  ধারাবাহিক ভাবে আয়োজন করে আসছে বিসিএ এওয়ার্ড সহ  কারী শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট নানা ধরণের অনুপ্রেরণা ও সেবামূলক কাজ। যা মূলধারায় প্রসংশিত। কারী শিল্পের সমস্যা, সম্ভাবনা এবং সংকট উত্তোরণে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে বিসিএ  একটি লবিষ্ট সংগঠন হিসাবে কাজ করে কারী শিল্পের অগ্রযাত্রায় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখছে বলে মূলধারার অভিজ্ঞরা ইতিমধ্যে অভিমত জানিয়েছেন।