সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
প্রধানমন্ত্রীর সাথে আবরারের পরিবারের সদস্যরা  » «   প্রবাসীদের জাতীয় পরিচয়পত্র সরবরাহের কাজ শুরু হচ্ছে শিঘ্রই  » «   গ্রীসে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে মতবিনিময়  » «   আবরার হত্যায় ফ্রান্স ও সুইজারল্যান্ডের বিস্ময় ও দুঃখপ্রকাশ  » «   বুয়েট ছাত্রলীগ সভাপতি-সম্পাদকের কক্ষ সিলগালা  » «   মিলানে দূতাবাসের উদ্যোগে বাউল সংগীতের অনুষ্ঠান  » «   জন্মস্থান থেকে ‘রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ফাউন্ডেশনে’র যাত্রা শুরু  » «   নর্থ ওয়েষ্ট ইংল্যান্ডে শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপন  » «   ঢাকায় কাব্যকলার আয়োজনে কেন্দ্রীয় পাঠক সমাবেশে কবিতা ও আড্ডা  » «   পিঠা মেলা সফল করতে লন্ডনে প্রস্তুতি সভা  » «   আমিরাতে কমলগঞ্জ প্রবাসী কল্যাণ সমিতির মতবিনিময়  » «   লন্ডনে বঙ্গবন্ধু কাপ ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত  » «   সাবেক অতিরিক্ত সচিবকে জিএমবিএ’র উদ্যোগে সংবর্ধনা  » «   আবরার হত্যার আগে ম্যাসেঞ্জারে ছাত্রলীগ নেতার নির্দেশনা  » «   আওয়ামী লীগ সাউথ লন্ডন শাখার সম্মেলন অনুষ্ঠিত  » «  

ফাইভজি চালুতেই শত শত পাখির মৃত্যু



নেদারল্যান্ডে সম্প্রতি পঞ্চম প্রজন্মের টেলিকম নেটওয়ার্ক ফাইভ জি চালু করা হয়েছে। দেশটির একটি রেল স্টেশনের পরীক্ষামূলকভাবে এই নেটওয়ার্ক চালু হয়। এর পরেই ঘটতে থাকে অদ্ভুত ঘটনা। ওই রেল স্টেশনের আশেপাশের পার্কে শত শত মৃত পাখি পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

শুরুতে এই খবর দেশটির সরকার সুকৌশলে চেপে রেখেছিল। এক সঙ্গে ১৫০ পাখি মারা যাওয়ায় এই খবর আর চেপে রাখা সম্ভব হয়নি। সব মিলে মোট মৃত পাখির পরিমান ২৯৭ টি।

সম্প্রতি এই পার্কের পাশেই একটি রেল স্টেশনে ফাইভ জি নেটওয়ার্ক পরীক্ষামূলকভাবে চালানো হয়েছিল। এই সিগনাল কতদুর পৌঁছায় আর পরিবেশে কোন ক্ষতি করে কী না তা জানাই এই পরীক্ষার উদ্দেশ্য ছিল।

যদিও প্রযুক্তির উৎকর্ষতার অজুহাতে এই পরীক্ষায় পরিবেশকেই বড় মাসুল দিতে হয়েছে।রেল স্টেশনে পরীক্ষামূলকভাবে এই নেটওয়ার্ক চালুর পর এই মৃত পাখিগুলি গাছ থেকে পড়তে থাকে। পাশে পুকুরে সাঁতার কাটতে থাকা হাঁসগুলো অদ্ভুত আচরণ করতে শুরু করে। পানির নিচে ডুব দিয়ে এই তরঙ্গ থেকে বাঁচার চেষ্টা করছিল হাঁসগুলো।

নেদার‌ল্যান্ডের এক পরিবেশপ্রেমী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, ‘এতো পাখি একসঙ্গে ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাল ইনফেকশনে হঠাৎ মারা যেতে পারে না। ফাইভ জি নেটওয়ার্ক থেকে নির্গত মাইওক্রোওয়েভ পাখির হৃদপিন্ডে আঘাত হানে। এর পরে হৃদ যন্ত্র অকেজ হয়ে মারা গেছে পাখিগুলো।’

যে সময় এই পাখিগুলো মারা গেছে ঠিক সেই সময় পাশের রেলওয়ে স্টেশানে ফাইভ জি নেটওয়ার্ক পরীক্ষার কাজ চলছিল।

ফেসবুকে জন কুয়েলস নামের ওই পরিবেশপ্রেমী আরও বলেন, ‘অনেকেই মনে করেন কম শক্তির মাইক্রোওয়েভ আপনার কোন ক্ষতি করতে পারে না। তবে একটি ইন্টারনেট ঘাঁটাঘাঁটি করলেই জানতে পারবেন এই তরঙ্গ কতটা ক্ষতিকর।’

দেশটিতে ইতোমধ্যে ফাইভ জি নেটওয়ার্ক বন্ধ করার জন্য ইন্টারনেটে মুভমেন্ট শুরু করেছেন পরিবেশপ্রেমী জন। স্টপফাইভজি ডট নেট ওয়েবসাইট থেকে তিনি ফাইভ জি নেটওয়ার্ক থেকে হওয়া সম্ভাব্য ক্ষতি ব্যাপারে সাধারণ মানুষকে সচেতন করার কাজ করে চলেছেন।