বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
কেসি সলিসিটর্সের দশক পূর্তি উদযাপন  » «   বঙ্গবন্ধু স্কলারশিপ আন্তর্জাতিক অঙ্গণে বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রতিচ্ছবি  » «   লীলা নাগের স্মৃতি রক্ষায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উদ্যোগ নেবে  » «   ফুসফুস-ক্যান্সার পরীক্ষার জন্য মাইল এন্ড লেজার সেন্টারে স্থাপন করা হচ্ছে বিশেষ ‘স্ক্রিনিং মেশিন’  » «   অলি-মিঠু-টিপু প্যানেলের পরিচিতি ও ইশতেহার ঘোষণা  » «   ২০ নভেম্বর লন্ডনের রয়েল রিজেন্সিতে ৫ম বেঙ্গলী ওয়েডিং ফেয়ার  » «   একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির যুক্তরাজ্য শাখা গঠিত  » «   টি আলী স্যার ফাউন্ডেশন সম্মাননা পেলেন সিলেটের ২৪গুণী শিক্ষক  » «   নওয়াগ্রাম প্রগতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ফুল, ফল ও ঔষধি বৃক্ষরোপণ  » «   আলোকিত মানুষ শিক্ষক মো. সমছুল ইসলাম এর ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী  » «   সিলেটের বিয়ানীবাজারে একটি পরিত্যক্ত কূপে তাজা গ্যাসের মজুদ আবিষ্কৃত  » «   বাংলাদেশী কারী  ব্রিটেনের প্রবৃত্তি ও খাবার সংস্কৃতিতে অনন্য  অবদান রাখছে  » «   পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় নারীবাদের প্রতিবন্ধকতা  » «   রিষি সুনাক এশিয়ান বংশদ্ভোত, কনজারভেটিভ এবং ধনীদের বন্ধু  » «   গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাব নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারীদের ব্যাপারে সতর্ক থাকার আহবান  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


ঈদের ছুটি
রেণু লুৎফা



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ব্রিটেনে ঈদের ছুটি নিয়ে বেশ কয়েক বছর ধরে আন্দোলন হচ্ছে। যদিও সরকারী ভাবে দিনটি ছুটির দিন নয় তবে প্রতিটি বিভাগেই এই দিনে মুসলমান কর্মচারীবৃন্দ ছুটি নিতে পারেন। প্রায় প্রতিটি বিভাগে  বেতন সহ আবার কোন কোন ক্ষেত্রে বেতন ছাড়া। স্কুল কলেজ গুলোতে বেতন সহ তবে তা বছরের শুরুতেই বুক করে রাখতে হয়।

তবে সমস্যা হলো বাংলাদেশী সম্প্রদায়কে নিয়ে। এদের বেশীর ভাগই কাজ করেন কারী ইন্ডাস্ট্রিতে। তারা ঈদে ছুটি পান না। কিছু কিছু ক্ষেত্রে তারা ঈদের নামাজের জন্য টাইম অফ পান, অর্থাৎ নামাজ পড়েই কাজে যেতে হয়।ঈদ হলো খুশীর দিন কিন্তু এরা সেই খুশী থেকে বঞ্চিত হোন।

কিন্তু এই ব্যবসায়ীদের প্রায় ৯৯ ভাগই মুসলমান। এরা দেশে মসজিদ মাদ্রাসা তৈরী করেন। এদেশের বাংলা টিভি তে হুজুরগণ  যখন ওয়াজ নসিহত করেন তখন এরা দেদারসে টাকা দেন।  কিন্তু তার মুসলিম কর্মচারী কে ঈদের খুশীতে শরিক করতে রাজি নন। ঈদের দিনে  ব্যবসায় ছাড় দিতে তারা বুকের হিম্মত রাখেন না।

এখানে দেখা যায় প্রতিটি কর্মচারীরা ঈদের ছুটি চান আবার এরাই যখন মালিকের কাতারে যোগ দেন তখন ছুটি দিতে রাজী হোন না।

বছরভর ব্যবসা করেও একটি দিনের ব্যবসার লোভ তারা ছাড়তে পারেন না। নিজেরা যখন নিজেদের ধর্মের প্রতি এই নূন্যতম শ্রদ্ধা রাখতে ব্যর্থ হয়ে অন্যদের কাছ থেকে দাবী আদায়ের ডাক দেন তখন সে ডাকে সাড়া পাওয়ার কোন আশা থাকে না।আসুন ঈদ মুসলমান দের জীবনে কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা মুসলমানদের প্রমাণ করার সময় হয়েছে ।ধর্ম শুধু প্রচার করার বিষয় নয় । আপনার ধর্ম আপনার ব্যবহারে, আচারে, আচরণে প্রকাশ পাবে।

রেণু লুৎফা :  শিক্ষাবিদ ও লেখক,  লন্ডন।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন