বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
জীবন যেখানে দ্রোহের প্রতিশব্দ মৃত্যু সেখানেই শেষ কথা নয়..  » «   শিল্প উদ্যোক্তা ও ক্রীড়া সংগঠক মো: জিল্লুর রাহমানকে  লন্ডনে সংবর্ধনা  » «   ঈদের সামাজিক গুরুত্ব ও বিলাতে ঈদের ছুটি   » «   ব্রিটেনে ঈদের ছুটি  প্রসঙ্গে  » «   হজের খুতবা বঙ্গানুবাদ করবেন মাওলানা শোয়াইব রশীদ ও মাওলানা খলিলুর রহমান  » «   হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু, তাবুর শহর মিনায় হাজিরা  » «   ঈদের ছুটি : আমাদের কমিউনিটিতে সবার আগে শুরু হোক  » «   ঈদের দিনে বিলেত প্রবাসীদের মনোবেদনা  » «   বিলেতে ঈদ উৎসব এবং বাঙ্গালী কমিউনিটির অন্তর্জ্বালা  » «   জলঢুপে বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমান কেম্প  » «   তিলপাড়ায় বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «   করিমগঞ্জ দিবস  » «   ঈদের ছুটি চাই : একটি সমন্বিত উদ্যোগ অগণিত পরিবারে হাসি ফুটাতে পারে  » «   ট্রাক ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেল তিন বন্ধুর  » «   বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের বিনামূল্যে ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


বাহরাইনে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতের সংস্কৃতি ও প্রত্নতত্ত্ব বিষয়ক সংস্থার প্রধানের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

বাহরাইনে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত ড: মো: নজরুল ইসলাম বাহরাইনের সংস্কৃতি ও প্রত্নতত্ব বিষয়ক সংস্থার প্রধান শেখা মাই বিনতে মোহাম্মদ আল খলিফার সাথে বৃহস্পতিবার (২৭ আগস্ট) নিজ কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে তিনি বাংলাদেশ থেকে মুদ্রিত ‘বুক অফ মস্ক’ এর প্রথম এডিশনে’র(২০১৮) এর এক কপি শুভেচ্ছা স্বরুপ প্রদান করেন। উল্লেখ্য এতে শেখা মায় মুখবন্ধ লিখেছেন।

একই সাথে রাষ্ট্রদূত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র একটি কপি তাঁকে প্রদান করেন। শেখা মেই সংস্কৃতি ও ইতিহাস বুঝতে এ ধরনের বইয়ের প্রয়োজনীয়তার কথা গুরুত্বের সাথে তুলে ধরেন।

উক্ত বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি ও কলা বিষয়ক মহাপরিচালক শেখা হালা বিনতে মোহাম্মদ আল খলিফা। বৈঠকে যৌথ সহযোগিতার মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যকার সাংস্কৃতিক সম্পর্ক আরো জোরদার করার বিষয়ে আলোচনা করা হয়।

বৈঠকে রাষ্ট্রদূত ২০২১-এ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের কথা উল্লেখ করে বলেন এই বছরের মধ্যেই দূতাবাস একটি ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল ও স্বনামধন্য চারুশিল্পীর চিত্রকলা প্রদর্শনী আয়োজনের পাশাপাশি ফুড ফেস্টিভ্যাল আয়োজনের পরিকল্পনা করেছে। তিনি বলেন যে, তার দেশের অনেক সাংস্কৃতিক দিক রয়েছে যা তিনি বাহরাইনের জনগণের সাথে ভাগাভাগি করতে আগ্রহী। তিনি আশা প্রকাশ করেন যে, আগামী দিনগুলোতে দূতাবাস এবং সংস্কৃতি অধিদপ্তর পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে দ্বিপাক্ষিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় ও দৃষ্টিভঙ্গির লক্ষ্য অর্জনে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে একযোগে কাজ করে যাবে।

বৈঠকে শেখা মাই বিনতে মোহাম্মদ আল খলিফা যেকোন জাতির মাঝে মানুষের সাথে মানুষের যোগাযোগের সেতু বন্ধন নির্মাণে সংস্কৃতির গুরুত্ব এবং বাহরাইন ও বাংলাদেশের মধ্যকার যৌথ উদ্দোগ গ্রহণের মাধ্যমে সাংস্কৃতিক সমৃদ্ধি অর্জনের লক্ষ্যে সাংস্কৃতিক আন্দোলনকে জোরদার করার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

মান্যবর রাষ্ট্রদূত বৈঠক শেষে সভাপতি ও মহাপরিচালক উভয়কেই বাংলাদেশি শিল্পীর চিত্রকর্ম ও বাংলাদেশের চামড়াজাত পণ্যসামগ্রীর স্যুভেনির প্রদান করেন।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন