মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বার্মিংহামে কসবা-খাসা ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র প্রীতি সমাবেশ  » «   কাতালোনীয়া সান্তা কলমা আওয়ামী লীগের জাতীয় শোক দিবস পালন  » «   পর্তুগাল আওয়ামী লীগের জাতীয় শোক দিবস  » «   মদিনায় বাস দূর্ঘটনায় নিখোঁজ ১ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে  » «   স্পেন ছাত্রলীগ জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে  » «   খায়রুল আনামের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  » «   মনসা পূজোর জন্যে আবার প্রস্তুত সিকদার বাড়ি  » «   স্পেনে জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস  » «   মিলান কনস্যুলেটে জাতীয় শোক দিবস পালন  » «   লন্ডনে মুক্তিযুদ্ধ গবেষক তাজুল মোহাম্মদের সাথে অন্তরঙ্গ আড্ডা  » «   সৌদি আরবে জাতীয় শোক দিবস পালিত  » «   সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি হাজি নিহত  » «   সৌদির তেল স্থাপনায় ভয়াবহ হামলা  » «   বাংলাদেশ কনসুলেট জেদ্দার শোকদিবস পালন  » «   জেদ্দা ইংরেজি মাধ্যমে স্কুলে ৪৪তম “জাতীয় শোক দিবস” পালন করেছে।  » «  

বিশ্বকাপ ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ পরিত্যক্তের রেকর্ড



শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি পরিত্যক্তই ঘোষণা করে আম্পায়াররা। টানা বৃষ্টির কারণে এক বলও মাঠে গড়াতে পারেনি। হয়নি টসও। ব্রিস্টলে সকালের দিকে থেমে থেমে বৃষ্টি হলেও দুপুরের দিকে শুরু হয় বৃষ্টি। ফলে স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ৫৭ মিনিটে শেষবারের মতো মাঠ পরিদর্শনে গিয়ে ম্যাচটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন আম্পায়াররা। ফলে এক পয়েন্ট করে পেল দুই দল। এতে শ্রীলঙ্কার পয়েন্ট হলো চার। আর বাংলাদেশের তিন।

তবে ম্যাচের কাটআউট সময় ছিল স্থানীয় সময় সাড়ে ৪টা। কিন্তু পরিস্থিতি এতোটাই খারাপ যে এখন বৃষ্টি থামলেও মাঠ খেলার মতো উপযোগী করা সম্ভব হবে না। নাটকীয়ভাবে যদি বৃষ্টি থেকেও যায় তারপরও মাঠ উপযোগী করতে যে সময় লাগবে তাতে ম্যাচ আয়োজন সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন আম্পায়াররা। তাই বাধ্য হয়েই নির্ধারিত সময়ে অনেক আগেই দুই দলকে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে দেয়। এতে বড় ক্ষতি হয়ে গেল বাংলাদেশের। সেমি-ফাইনাল খেলতে অপেক্ষাকৃত দুর্বল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পূর্ণ পয়েন্ট প্রত্যাশিত ছিল টাইগারদের।

বিশ্বকাপের ইতিহাসে নতুন রেকর্ডই হলো এদিন। এর আগে কোন বিশ্বকাপে দুটির বেশি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়নি। ১৯৯২ ও ২০০৩ সালের বিশ্বকাপে দুটি করে ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছিল। চলতি বিশ্বকাপের সিকিভাগ মাঠে না গড়াতেই ম্যাচ পরিত্যক্ত হলো তিনটি। এর আগে পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা ও উইন্ডিজ- দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে।
স্থানীয় সময় সকাল ১১টা ১৫ থেকে ১১টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত বৃষ্টি থেমেছিল। কিন্তু এরপরই শুরু হয় ঝিরিঝিরি বৃষ্টি। পৌনে ১২টা থেকে মাত্রাও বেড়ে গেছে বৃষ্টির। এই মুহুর্তে পরিস্থিতি আগের চেয়ে খারাপ। স্থানীয় সময় বেলা সোয়া ১২টায় আবার মাঠ পরিদর্শন করার কথা থাকলেও তা বাতিল করা হয়। এখানকার স্থানীয় সময় বিকেল ৪টা পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন আম্পায়াররা। ততক্ষণে মাঠ তৈরি না হলে খেলা বাতিল করা হবে। তবে এই মুহুর্তের যা পরিস্থিতি তাতে বিকেল ৩টা পর্যন্ত এমন থাকলে আম্পায়াররা আগেই ম্যাচ বাতিলের সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

স্থানীয় সময় বেলা সোয়া ১১টায় পুরোপুরি থেমে যায় বৃষ্টি। তাতে মাঠ পরিদর্শনও করতে নামেন আম্পায়াররা। বাউন্ডারির আশপাশ  হেঁটে দেখেন তারা। কিন্তু সে স্বস্তিটা টিকেনি চার মিনিটের বেশি। আবার শুরু হয় গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি।

বিশ্বকাপের ফরম্যাট বলছে, বেশ লম্বা প্রতিযোগিতা। প্রতিদ্বন্দ্বিতা এতই তীব্র যে, একবার পা হড়কালে ফিরে আসাটাও সহজ নয়। । এরই মধ্যে টানা দুই ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ। সেমিফাইনালের লক্ষ্য নিয়ে ইংল্যান্ডে যাওয়া মাশরাফি বিন মর্তুজার দল তাই জয়ে ফিরতে মরিয়া। তবে আইসিসি র‍্যাঙ্কিং, দলীয় শক্তি আর সাম্প্রতিক পরিসংখ্যানে পিছিয়ে থাকা শ্রীলঙ্কাও ছেড়ে কথা বলবে না। তারা বড় মঞ্চের দল। সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়নও। বড় আসরের চাপ সয়ে সেরা পারফরম্যান্স কীভাবে দেখাতে হয়- তা তাদের ভালোই জানা।