মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বরিস জনসন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর দায়ীত্ব নিচ্ছেন  » «   প্রিয়া সাহা’র সাম্প্রদায়িক অভিযোগের প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীদের বিক্ষোভ সমাবেশ  » «   বাংলা স্কুল বার্সেলোনার বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা ও শিক্ষা সফর অনুষ্ঠিত  » «   একজন প্রিয়া সাহা এবং ‘ফান্ডামেন্টালিজমে’র লেভেলিং  » «   টেলিফোন সাক্ষাৎকারে প্রিয়া সাহা  » «   বিয়ানীবাজারে ছাত্র ইউনিয়নের কাউন্সিল সম্পন্ন  » «    বিয়ানীবাজার সহকারী সেটেলমেন্ট অফিসে দুদকের অভিযান  » «   সিলেটের বিলুপ্তপ্রায় প্রাকৃতিক ঐতিহ্য  » «   পুকুরে জ্বলছে রহস্যময় আলো, সাত রাজার ধন দেখতে মানুষের ঢল  » «   ট্রাম্পের কাছে নালিশকারী প্রিয়া সাহা ‘দলিত কণ্ঠ’র সম্পাদক  » «   লন্ডনে সফররত সাংবাদিক ও প্রকাশককে সংবর্ধনা প্রদান  » «   আমিরাতে এবার গোল্ডকার্ড পেলেন সিআইপি মাহতাবের ভাই অলিউর!  » «   আমিরাতে বাংলাদেশি মানিকের গোল্ডকার্ড অর্জন  » «   সিলেটে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি  » «   বার্সেলোনায় স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণে স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবকে সিটি করপোরেশনের আশ্বাস  » «  

সিলেটে হুইল চেয়ারে মুহিত, পাশে নেই রাজনীতির কোকিলগুলো



 

কয়েকদিন আগেও তাকে ঘিরে নেতাকর্মীদের জটলা লেগেই থাকতো। ঢাকা থেকে সিলেট ফিরলে ভিড় লেগে থাকতো সিলেটের ওসমানী বিমানবন্দরে। ভিআইপি লাউঞ্জে পড়ে যেত হুড়োহুড়ি-ধাক্কাধাক্কি।

স্লোগানে স্লোগানে মুখর হয়ে উঠতো বিমানবন্দর এলাকা। মোটর শোভাযাত্রা সহকারে তাকে নিয়ে যাওয়া হতো বাসায়। সেই সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত শুক্রবার যখন সিলেটে ফিরলেন তখন তার হুইল চেয়ার ধরার মতো ছিল না কেউ। সাবেক এপিএস জনিকে নিয়ে একাই ওসমানী বিমানবন্দর ত্যাগ করেন তিনি।

গত মন্ত্রিসভার প্রভাবশালী মন্ত্রী মুহিতকে ঘিরে সবসময়ই আনাগোনা থাকতো সু-সময়ের বন্ধুদের। কিন্তু মন্ত্রিসভা থেকে বাদ পড়তে না পড়তেই সাবেক অর্থমন্ত্রী এ এম এ মুহিতকে আজ ভুলে গেছেন তারা।

শুক্রবার দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে নভোএয়ারের একটি ফ্লাইটে ঢাকা থেকে সিলেট যান আবুল মাল আবদুল মুহিত। বিমান থেকে নেমে হুইল চেয়ারে করে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ভিআইপি লাউঞ্জে। জনশূন্য ভিআইপি লাউঞ্চ হয়ত তখন অনেকটা অপরিচিতই মনে হচ্ছিল মুহিতের কাছে।

চিরচেনা মুখগুলো দেখতে পান নি তিনি।এতদিন যাদেরকে ‘কাছের মানুষ’ হিসেবে জানতেন তাদের মুখোশের অন্তরালের চেহারাটা হয়তো তখন ভাসছিল তার চোখেমুখে।

ভিআইপি লাউঞ্জের গেটে বাফুফের কার্যনির্বাহী সদস্য ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাহি উদ্দিন আহমদ সেলিমই একমাত্র স্বাগত জানান মুহিতকে। পরে সাবেক অর্থমন্ত্রী মুহিত বিমানবন্দর থেকে চলে যান সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। সেখানে বসেই সিলেট সিক্সার্স ও ঢাকা ডায়নামাইটসের ম্যাচ উপভোগ করেন মুহিত।