মঙ্গলবার, ২ জুন ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
সোয়া ছয় কোটি মানুষের হাতে সরকারের ত্রাণ  » «   শারজাহর মসজিদগুলিতে পরিচ্ছন্নকরণ অব্যাহত  » «   ‘আলোকিত ৯৫ মাদারীপুর’ এর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ২০২০ উদযাপন  » «   পরিবহন কল্যাণ তহবিলের টাকা নিয়ে সিলেটে শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষ, ভাঙচুর  » «   আমিরাত নিউজ এজিন্সিতে বাংলা ভাষা সংযুক্ত করা হয়েছে  » «   নিজ খরছে দেশে যেতে ইচ্ছুক প্রবাসীদের তালিকা করা হবে  » «   করোনা থেকে বাঁচতে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার আহ্বান পরিবেশমন্ত্রীর  » «   লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যা: মানব পাচারকারী চক্রের হোতা হাজী কামাল গ্রেফতার  » «   করোনার দুর্যোগে আরব আমিরাতে ভিসা নিষেধাজ্ঞা তোলে নেয়া হয়েছে  » «   ইতালীতে শুরু হয়েছে বৈধকরণের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম  » «   বিয়ানীবাজারের ৫৩১টি মসজিদ পাবে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান  » «   সারাদেশে ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ২২, সিলেটে ১ জন  » «   মসজিদ-আল-হারাম ও আল-নববী নামাজের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে  » «   জিয়াউর রহমানের ৩৯তম শাহাদাৎ বার্ষিকীতে ইতালী বি এন পি’র দোয়া ও মিলাদ মাহফিল  » «   এমপি শামিম ওসমানের সহায়তায় করোনা আক্রান্ত কাউন্সিলার ও তার স্ত্রী স্কোয়ার হাসপাতালে  » «  

মুসলিম পরিবার ছেলের নাম রাখল নরেন্দ্র মোদী



ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশ হতেই দেখা যায়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঝড়ে কুপোকাত হয়ে গেছে দেশটির বিরোধী শিবির। সেই ঝড়ে ভেসে গেলেন উত্তরপ্রদেশের পারসাপুর এলাকার মহরাউর গ্রামের মুসলিম পরিবারের এক গৃহবধূ।

ওই গৃহবধু গত ২৩ মে নির্বাচনের ফল প্রকাশের দিনে পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। মোদির জয়ের দিনে সন্তান জন্ম নেয়ায় তার নাম ‘নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদি’ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ওই নারী।

সন্তানের জন্ম দেয়া উত্তরপ্রদেশের ওই নারীর নাম মেহনাজ বেগম। ২৩ মে ছেলের নাম ঠিক করার দিন নির্ধারণ করা ছিল। সেদিনই মোদির নাম মাথায় আসে তার। সেই নামেই নিজের ছেলের নাম ঠিক করেন তিনি। আশপাশের সবাই তাকে মত বদলাতে বললেও, তিনি অনড় থাকেন বলে ভারতীয় একটি বার্তাসংস্থাকে জানিয়েছেন তার শ্বশুর।

দুবাইতে কর্মরত ওই নারীর স্বামী মুস্তাক আহমেদকে খবর দেয়া হলে তিনিও চেষ্টা করেন স্ত্রীর মত বদলাতে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্ত্রীর ইচ্ছেকে মেনে নেন তিনি।

পরে ওই পরিবারের পক্ষ থেকে জেলা শাসকের উদ্দেশে লেখা একটি হলফনামা জমা দেয়া হয় পঞ্চায়েতের সহ-উন্নয়ন কর্মকর্তা ঘনশ্যাম পাণ্ডের কাছে। শুক্রবার ওই হলফনামা পেয়ে ঘনশ্যাম পাণ্ডে বলেছেন, ‘আবেদনটি গ্রাম পঞ্চায়েতের সম্পাদকের কাছে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। তিনিই জন্ম ও মৃত্যু নথিবদ্ধ করার বিষয়টি দেখেন।’

হলফনামায় মেহনাজ বেগম মোদি এবং তার সরকারের উন্নয়নের প্রশংসা করেছেন। বিশেষ করে দরিদ্র মানুষদের জন্য বিনামূল্যে গ্যাসের সংযোগ ও শৌচাগার নির্মাণে আর্থিক সহায়তা প্রকল্পের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

প্রধানমন্ত্রীর নামে নাতির নাম রাখার ব্যাপারে মেহনাজের শ্বশুর ইদ্রিশ বলেছেন,‘শিশুর নাম রাখার বিষয়টি পরিবারের ব্যক্তিগত ব্যাপার। তাই অন্যদের এতে নাক গলানো উচিত নয়।’

মেহনাজ জানিয়েছেন, আমরা চাই নরেন্দ্র মোদির মতোই আমাদের সন্তান পরিশ্রমী হোক। তার মতোই সফল হোক।

সূত্র: জিনিউজ, আনন্দবাজার।