সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৩ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
ক্যারিবিয়দের বিপক্ষে বিশাল জয় নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের পঞ্চম স্থানে বাংলাদেশ  » «   রিয়াদে জালালাবাদ এসোসিয়েশনের অভিষেক ও ঈদ পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠিত  » «   টাইগার ভক্তরা টনটনে নতুন আশায়  » «   সৌদিতে প্রতারণার নতুন ফাঁদ: ফ্রি ভিসাই কন্ট্রাক্ট ভিসা  » «   ফেনী পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হবে মোয়াজ্জেমকে  » «   মাদ্রিদে ভালিয়েন্তে বাংলা’র ঈদ পূনর্মিলনীতে প্রবাসীদের মিলনমেলা  » «   কুলাউড়ার এক ঝাঁক তরুণ অনলাইন এক্টিভিস্টদের আত্মপ্রকাশ  » «   ভারত-পাকিস্তান : সমর্থকদের উত্তেজনাও তুঙ্গে  » «   জিপিএ ৫ নয়, এবার হতে সিজিপিএ ৪  » «   আমিরাতে বাংলাদেশ বিজনেস ফেরামের ঈদ পুনর্মিলনী  » «   বৃষ্টিভেজা ক্রিকেট বিশ্বকাপ নিয়ে হাস্যরস  » «   ওসমানী হাসপাতাল থেকে হৃদরোগ চিকিৎসার যন্ত্র ফিরিয়ে নেওয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন  » «   স্কুলবাস সার্ভিস চালু করছে সিলেট সিটি করপোরেশন  » «   ব্রিটেনে রেষ্টুরেন্টে ওয়ার্ক পারর্মিটের সুযোগ এখনও সৃষ্টি হয়নি  » «   মোবাইলে ১০০ টাকার কথা বললে কর দিতে হবে ২৭ টাকা  » «  

মুসলিম পরিবার ছেলের নাম রাখল নরেন্দ্র মোদী



ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশ হতেই দেখা যায়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ঝড়ে কুপোকাত হয়ে গেছে দেশটির বিরোধী শিবির। সেই ঝড়ে ভেসে গেলেন উত্তরপ্রদেশের পারসাপুর এলাকার মহরাউর গ্রামের মুসলিম পরিবারের এক গৃহবধূ।

ওই গৃহবধু গত ২৩ মে নির্বাচনের ফল প্রকাশের দিনে পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। মোদির জয়ের দিনে সন্তান জন্ম নেয়ায় তার নাম ‘নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদি’ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ওই নারী।

সন্তানের জন্ম দেয়া উত্তরপ্রদেশের ওই নারীর নাম মেহনাজ বেগম। ২৩ মে ছেলের নাম ঠিক করার দিন নির্ধারণ করা ছিল। সেদিনই মোদির নাম মাথায় আসে তার। সেই নামেই নিজের ছেলের নাম ঠিক করেন তিনি। আশপাশের সবাই তাকে মত বদলাতে বললেও, তিনি অনড় থাকেন বলে ভারতীয় একটি বার্তাসংস্থাকে জানিয়েছেন তার শ্বশুর।

দুবাইতে কর্মরত ওই নারীর স্বামী মুস্তাক আহমেদকে খবর দেয়া হলে তিনিও চেষ্টা করেন স্ত্রীর মত বদলাতে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্ত্রীর ইচ্ছেকে মেনে নেন তিনি।

পরে ওই পরিবারের পক্ষ থেকে জেলা শাসকের উদ্দেশে লেখা একটি হলফনামা জমা দেয়া হয় পঞ্চায়েতের সহ-উন্নয়ন কর্মকর্তা ঘনশ্যাম পাণ্ডের কাছে। শুক্রবার ওই হলফনামা পেয়ে ঘনশ্যাম পাণ্ডে বলেছেন, ‘আবেদনটি গ্রাম পঞ্চায়েতের সম্পাদকের কাছে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। তিনিই জন্ম ও মৃত্যু নথিবদ্ধ করার বিষয়টি দেখেন।’

হলফনামায় মেহনাজ বেগম মোদি এবং তার সরকারের উন্নয়নের প্রশংসা করেছেন। বিশেষ করে দরিদ্র মানুষদের জন্য বিনামূল্যে গ্যাসের সংযোগ ও শৌচাগার নির্মাণে আর্থিক সহায়তা প্রকল্পের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

প্রধানমন্ত্রীর নামে নাতির নাম রাখার ব্যাপারে মেহনাজের শ্বশুর ইদ্রিশ বলেছেন,‘শিশুর নাম রাখার বিষয়টি পরিবারের ব্যক্তিগত ব্যাপার। তাই অন্যদের এতে নাক গলানো উচিত নয়।’

মেহনাজ জানিয়েছেন, আমরা চাই নরেন্দ্র মোদির মতোই আমাদের সন্তান পরিশ্রমী হোক। তার মতোই সফল হোক।

সূত্র: জিনিউজ, আনন্দবাজার।