শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডলে ৯ম বাংলাদেশ বইমেলা ,সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক উৎসব  » «   বীর মুক্তিযোদ্ধা মুতি-মুছব্বির-হান্নান স্মরণে লন্ডনে শোকসভা  » «   জুয়া-ক্যসিনো ব্যবসায়ী যুবলীগ নেতাকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে র‌্যাব  » «   বার্সেলোনায় দারুল কিরাত মজিদিয়া ফুলতলী ট্রাস্ট এর পুরষ্কার বিতরণী ও সমাপনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন  » «   বিসিএ‘র  সেফ অফ দ্যা ইয়ার এর ‘কুক অফ‘ প্রতিযোগিতা  অনুষ্ঠিত  » «    পরিচ্ছন্ন সিলেটের স্বপ্ন দেখছে প্রজেক্ট ‘ক্লীন সুরমা, গ্রীন সিলেট’  » «   বাংলাদেশের মুক্ত অর্থণেতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করবে আরব আমিরাত  » «   আজমানে স্কুল প্রতিষ্ঠার জন্য ব্যবসায়িদের সাথে কনসাল জেনারেলের মতবিনিময়  » «   ডাকসুর কোষাধ্যক্ষ অপসারন ও ৩৪ জনের ছাত্রত্ব বাতিলের দাবীতে ভিপি’র চিঠি  » «   কাতালোনীয়ার স্বাধীনতার ডাকে লক্ষ লক্ষ জনতার সমাবেশ  » «   সুনির্দিষ্ট অভিযোগে ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদককে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে: জয়  » «   সিলেটে বাম গণতান্ত্রিক জোটের জনসভা  » «   শীঘ্রই আমিরাতের আজমানে বাংলাদেশ স্কুল প্রতিষ্ঠা হচ্ছে  » «   সংহতি আমিরাতের শাহ আব্দুল করিম উৎসব  » «   লন্ডনে বিয়ানীবাজারের প্রবীন ব্যক্তিত্ব আবদুস সাত্তার স্মরণ সভা  » «  

দাপুটে ব্যাটিং নৈপুণ্যে ইতিহাস রচনা করলো বাংলাদেশ



ওয়ানডে ক্রিকেটে প্রথমবারের মতো শিরোপা জিতল বাংলাদেশ। প্রায় হেরে যাওয়া ম্যাচে মাত্র ২৪ বলে ৫২ রানের অবিশ্বাস্য ইনিংস খেলে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত এ জয় উপহার দেন।

শেষ দিকে বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল ২৪ বলে ৩৯রান। ঠিক ওই সময় ঝড় তুলেন তরুণ এ অলরাউন্ডার। দলের জয়ে ২টি চার ও ৫টি ছক্কায় ৫২ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলেন সৈকত। মোসাদ্দেক-সৌম্যর জোড়া ফিফটি গড়া ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৫ উইকেটে পরাজিত করে বাংলাদেশ।

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে প্রথমে ব্যাট করে বৃষ্টির বাগড়ায় পড়া ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২৪ ওভারে সংগ্রহ করে ১৫২/১ রান। বৃষ্টি আইনে বাংলাদেশের টার্গেট দাঁড়ায় ২৪ ওভারে ২১০রান।

এমন কঠিন সমীকরণ তাড়া করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা করেন দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। উদ্বোধনী জুটিতে তারা ৫.৩ ওভারে ৫৯ রান যোগ করেন।

এরপর মাত্র ১ রানের ব্যবধানে ২ উইকেট হারায় বাংলাদেশ দল। ১৩ বলে ১৮ রান করে ফেরেন তামিম। তার বিদায়ের পর ব্যাটিংয়ে নেমেই আউট হন সাব্বির রহমান রুম্মন।

এরপর মুশফিকুর রহিমকে সঙ্গে নিয়ে ইনিংস মেরামতের চেষ্টা করেন দুর্দান্ত খেলে যাওয়া সৌম্য সরকার। তৃতীয় উইকেটে তাড়া ৪৯ রান যোগ করেন।

নিজের খেলা ২৭তম বলে সিঙ্গেল নেয়ার মধ্য দিয়ে ক্যারিয়ারের ৪৪তম ম্যাচে ১০ ফিফটি গড়েন সৌম্য সরকার। একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে যাওয়া সৌম্য ফেরেন ৪১ বলে ৯টি চার ও তিনটি ছক্কায় ৬৬ রান করে।

দলীয় ১৩৪ রানে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরেন মুশফিকুর রহিম। তার আগে ২২ বলে ৩৬ রান করেন জাতীয় দলের এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান।

পাঁচ নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নামা মোহাম্মদ মিঠুনও মুশফিকের মতো একই ভাবে আউট হন। ফ্যাবিয়ান অ্যালানের বলে বিভ্রান্ত হওয়ার আগে ১৪ বলে ১৭ রান করেন মিঠুন।

ইনিংসের শেষ দিকে রান রেট বেড়ে যাওয়ায় একেরপর এক বাউন্ডারি হাঁকান সৈকত। তার অনবদ্য ব্যাটিংয়ে প্রথম শিরোপার স্বাদ পায় বাংলাদেশ দল।