বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃক আঙ্গুরায় বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান  » «   স্পেনে বিয়ানীবাজার পৌরসভা ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট বার্সেলোনা কমিটি গঠিত  » «   স্পেনে বাংলাদেশ কালচারাল ইয়ং ফেডারেশন কমিটি গঠিত  » «   গোলাপগঞ্জে সাংবাদিক জাহেদের উপর সন্ত্রাসী হামলা  » «   মাসা আমিনির মৃত্যুতে ইরানের ‘নীতি পুলিশ’ এখন আলোচনায়  » «   অনশনে বসতে আ’লীগ কার্যালয়ে ইডেন ছাত্রলীগের ১২ নেত্রী  » «   ইতালিতে জাঁকজমকপূর্ণভাবে বিএনপি’র ৪৪তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন  » «   ইতালির জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এমপি ও সিনেট পদপ্রার্থীদের রোমের বাংলাদেশী কমিউনিটির সাথে মতবিনিময়  » «   রানির প্রস্থান, রাজার আগমন এবং আধুনিক ব্রিটেন  » «   আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয় বাংলাদেশি তাকরিম  » «   ফুটবলার আঁখির বাবার সঙ্গে অসদাচরণ, দুই পুলিশ ক্লোজড  » «   গোলাম কিবরিয়া  : সংগ্রামেই যিনি সাফল্যের উচ্চশিখরে  » «   ফুডেক্স সৌদি মেলায় বাংলাদেশি খাদ্য পন্য নিয়ে চার বৃহৎ কোম্পানি  » «   দশ বছর পর রোমে ইতালী আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত  » «   বিশ্বনেতারা রানির শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে যাবেন বাসে চড়ে  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


শুনো গো দখিন হাওয়া….
দুবাইয়ে ফাগুন উৎসব



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে ফাগুন উৎসবে মেতেছিলো প্রবাসীরা। হলদে বরণ সাজ আর স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতি প্রবাসে ভেসে উঠেছে এক টুকরো বাংলাদেশ। এ যেন বিশ্বকবির ‘আজি দখিন-দুয়ার খোলা,এসো হে, এসো হে, এসো হে আমার বসন্ত এসো’ আহবান।

মরুর আকাশে বাতাসেও যেন লেগেছিলো বাংলাদেশের ফাগুন হাওয়া। মহিলাদের হলুদ শাড়ির সাথে তাল মিলিয়ে পুরুষেরাও পরেছিলেন হলুদ রাঙা পান্জাবী। নানা বাহারি পশরায় দেশকে খুঁজে পাবার এর পরম সুখ যেন ছিলো এই উৎসবে।

শুক্রবার দুবাইয়ের মোহাইসানা পন্ড পার্কে এ আয়োজন করেন সংস্কৃতিকর্মী সাইদা দিবা, সিআইপি জেসমিন আক্তার, শাফেয়া আক্তার তুহিন সহ অন্যান্যরা।

অনুষ্ঠানে নারী, পুরুষ আবাল বৃদ্ধ বণিতা সকলের উপস্থিতি প্রাণবন্ত করে বাসন্তী বিকেল। এনআরবি ব্যাংকেরে চেয়ারম্যান সিআইপি মাহতাবুর রহমান নাসের সহ কমিউনিটির অন্যান্য বরেন্য ব্যক্তিরাও এসেছিলেন স্বপত্নীক। প

অনুষ্ঠানে নিজ ঘরে ফাগুনের পিঠা বানিয়েছিলেন অনেকে। সুন্দর পোষাক পরা মহিলাদের থেকে সেরা সুন্দরী এবং ছেলেদের তেকে বসন্তরাজ নির্বাচিত করা হয়। দেয়া হয় পুরস্কারও।

অনুষ্ঠানে আগতরা জানান, সামাজিক এবং রাজনৈতিক অনুষ্ঠানের বাইরেও বাংলাদেশের সার্বজনীন এমন উৎসবের আয়োজনে দেশের আমেজ পাওয়া যায়। এসব আয়োজন অব্যাহত রাখার আহবানও তাদের।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন