শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
জীবন যেখানে দ্রোহের প্রতিশব্দ মৃত্যু সেখানেই শেষ কথা নয়..  » «   শিল্প উদ্যোক্তা ও ক্রীড়া সংগঠক মো: জিল্লুর রাহমানকে  লন্ডনে সংবর্ধনা  » «   ঈদের সামাজিক গুরুত্ব ও বিলাতে ঈদের ছুটি   » «   ব্রিটেনে ঈদের ছুটি  প্রসঙ্গে  » «   হজের খুতবা বঙ্গানুবাদ করবেন মাওলানা শোয়াইব রশীদ ও মাওলানা খলিলুর রহমান  » «   হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু, তাবুর শহর মিনায় হাজিরা  » «   ঈদের ছুটি : আমাদের কমিউনিটিতে সবার আগে শুরু হোক  » «   ঈদের দিনে বিলেত প্রবাসীদের মনোবেদনা  » «   বিলেতে ঈদ উৎসব এবং বাঙ্গালী কমিউনিটির অন্তর্জ্বালা  » «   জলঢুপে বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমান কেম্প  » «   তিলপাড়ায় বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «   করিমগঞ্জ দিবস  » «   ঈদের ছুটি চাই : একটি সমন্বিত উদ্যোগ অগণিত পরিবারে হাসি ফুটাতে পারে  » «   ট্রাক ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেল তিন বন্ধুর  » «   বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের বিনামূল্যে ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


কুয়েতের স্বাধীনতা দিবসে প্রবাসী বাংলাদেশিদের স্বেচ্ছায় রক্তদান
মোঃ বিলাল উদ্দিন কেুয়েত থেকে)



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

কুয়েতে প্রবাসী বাংলাদেশিরা ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারী দেশটির জাতীয় ও স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে মীরসরাই সমিতি ও ফেসবুক ভিত্তিক পেইজ কুয়েত পেইজ ফর বাংলাদেশি’র যৌথ উদ্যোগে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়। শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারী) সেন্ট্রাল ব্লাড ব্যাংক জাবরিয়ায় দুপুর ১ টা হতে বিকাল ৫ পর্যন্ত প্রবাসী বাংলাদেশিরা স্বেচ্ছায় রক্তদান করে।

অনুষ্ঠানের স্পনসর ওরো ট্রি কোম্পানির জিএম মহসিন শাকিল বলেন, কোনো মানুষের বিপদে তাঁর পাশে দাঁড়ানো ও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া একজন আদর্শ মানুষের পরিচয়। প্রতি মুহূর্তে একবিন্দু রক্তের জন্য জীবনযুদ্ধে পরাজিত হচ্ছে কতশত মানুষ, স্বেচ্ছায় রক্তদান করার মধ্য দিয়ে আমরা এদের প্রাণ বাঁচাতে পারি। আমাদের স্বেচ্ছায় রক্তদানের মধ্রি দিয়ে একজন মানুষের প্রাণ বাঁচানো সম্ভব।

দেশটির জাতীয় ও স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সরকারি ছুটির থাকায় কুয়েতের বিভিন্ন অঞ্চল হতে প্রবাসী বাংলাদেশিরা রক্তদান করতে ছুটে আসেন। ফাহাহিল এবং জাহারা অঞ্চল হতে আসা রফিকুল ইসলাম ও জামসেদ আলম জানান, ”দেশে থাকাকালীন স্বেচ্ছায় রক্তদান করেছি, কুয়েতে আসার পর কাজের ব্যস্ততা ও কোথায় কিভাবে রক্ত দেওয়া যায় জানা ছিলো না। কুয়েতের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আমাদের বাংলাদেশি ভাইয়েরা সেচ্ছায় রক্তদান কর্মসুচীর আয়োজন করে সেটা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্টে দেখতে পাই। এখানে এসে দেখে অনেক বাংলাদেশি সেচ্ছায় রক্তদান করতে এসেছে দেখে খুব ভালো লাগলো। আমরা যদি বিদেশের মাটি এই ধরনের ভালো কাজে এগিয়ে আসি তাহলে বিদেশিদের কাছে বাংলাদেশের সম্পর্কে ইতিবাচক ধারণা তৈরি হবে।”


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন