শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
লন্ডনবাসী প্রবীণ মুরব্বী জমির উদ্দিন( টেনাই মিয়া)র ইন্তেকাল  » «   কবি সংগঠক ফারুক আহমেদ রনির পিতা মুমিন উদ্দীনের ইন্তেকাল  » «   একসেস ট্যু জাস্টিস নিশ্চিত করা আইনের শাসনের প্রধান স্তম্ভ  » «   বৃহত্তর সিলেট এডুকেশন ট্রাস্টের নির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত  » «   বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে প্যালেষ্টাইনের জনগণের প্রতি উৎসর্গ করে লন্ডনে সমাবেশ  » «   এডভোকেট মোহাম্মদ আব্বাছ উদ্দিন যুক্তরাজ্যে আসছেন  » «   হিলালপুর গ্রামে সড়ক বাতি উদ্বোধন  » «   বিয়ানীবাজার জনকল্যাণ সমিতি ইউকের কার্যকরী কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত  » «   পূর্ব মুড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসিপরীক্ষার্থীদের মধ্যে পরীক্ষা উপকরণ বিতরণ  » «   গুচ্ছ কবিতা ।। আতাউর রহমান মিলাদ  » «   ব্রিটেনের রাজা চার্লস ক্যান্সারে আক্রান্ত  » «   গুচ্ছ কবিতা ।। আবু মকসুদ  » «   মোহাম্মদ এমদাদুল হক চৌধুরী : শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা  » «   ‘এখন হয়েছে উল্টো, পুরুষরা বাজারে এসে খাই, পরে পরিবারের জন্য কিনে নিয়ে যাই‘!  » «   বিশ্বনাথে ১৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেছে ব্যারিস্টার নাজির আহমদ ফাউন্ডেশন  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন

দুবাইয়ে আনসারি এক্সচেঞ্জের ড্রয়ে ১০ লাখ দেরহাম পেলেন এক বাংলাদেশি



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

সংযুক্ত আরব আমিরাতে আল আনসারি এক্সচেঞ্জের গ্রীষ্মকালিন গ্রাহক ড্রয়ে ১০ লক্ষ দেরহাম জিতেছেন ৩০ বছর বয়েসি বাংলাদেশি আবদুল্লাহ আল আরাফাত। তার গ্রামের বাড়ি ফেনী জেলার সোনাগাজীতে। বাবার নাম মোম্মদ মহসিন। মাত্র ২৬১ দেরহাম দেশে পাঠিয়েছিলেন তিনি। তার ফলে ঘুরে গেলো ভাগ্যের চাকা। বৈধপথে টাকা পাঠানোর এ আরেক ফল বলেও মনে করেন তিনি।

মঙ্গলবার দুবাইয়ে আল আনসারি এক্সচেঞ্জের ড্রতে তিনি এ পুরস্কার পেয়ে নিজেকে ভাগ্যবান বলেছেন। আট জন চূড়ান্ত প্রার্থীকে (দুজন আমিরাতী, দুজন ফিলিপিনো, একজন ভারতীয়, একজন পাকিস্তানি, একজন ইন্দোনেশিয়ান এবং আরেকজন বাংলাদেশী) পিছনে ফেলে এই পুরস্কার জিতে নেন। অন্য আটজন চূড়ান্ত প্রতিযোগীদেরও খালি হাতে ফিরতে হয়নি। তাদেরকে ও ১০ হাজার দিরহাম প্রতিজন করে দেয়া হয়েছে।

আব্দুল্লাহ প্রথমবারের মতো বাবা হতে যাচ্ছেন। তার এ প্রাপ্তিতে সন্তানের ভাগ্য জড়ি আছেন বলেও তিনি আবেগাপ্লুত কণ্ঠে জানান।
নয় বছর ধরে দুবাইয়ে বসবাসরত আবদুল্লাহ বলেন-তিনি তার স্ত্রীর কাছে পুরস্কারের কিছু ভাগ বাড়িতে পাঠিয়ে দেবেন। আগামি মাসে তাদের প্রথম সন্তানের জন্ম দেওয়ার প্রত্যাশা করছেন। এবং বাকী অংশটি তিনি নিজের টেইলারিং ও মোবাইল আনুষাঙ্গিক ব্যবসার সম্প্রসারণে বিনিয়োগ করবেন।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন