মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
আজীবন সম্মাননা পেলেন সৈয়দ আফসার উদ্দিন এমবিই  » «   লন্ডন বাংলা স্কুলের আয়োজনে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত  » «   লন্ডনবাসী প্রবীণ মুরব্বী জমির উদ্দিন( টেনাই মিয়া)র ইন্তেকাল  » «   কবি সংগঠক ফারুক আহমেদ রনির পিতা মুমিন উদ্দীনের ইন্তেকাল  » «   একসেস ট্যু জাস্টিস নিশ্চিত করা আইনের শাসনের প্রধান স্তম্ভ  » «   বৃহত্তর সিলেট এডুকেশন ট্রাস্টের নির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত  » «   বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে প্যালেষ্টাইনের জনগণের প্রতি উৎসর্গ করে লন্ডনে সমাবেশ  » «   এডভোকেট মোহাম্মদ আব্বাছ উদ্দিন যুক্তরাজ্যে আসছেন  » «   হিলালপুর গ্রামে সড়ক বাতি উদ্বোধন  » «   বিয়ানীবাজার জনকল্যাণ সমিতি ইউকের কার্যকরী কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত  » «   পূর্ব মুড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসিপরীক্ষার্থীদের মধ্যে পরীক্ষা উপকরণ বিতরণ  » «   গুচ্ছ কবিতা ।। আতাউর রহমান মিলাদ  » «   ব্রিটেনের রাজা চার্লস ক্যান্সারে আক্রান্ত  » «   গুচ্ছ কবিতা ।। আবু মকসুদ  » «   মোহাম্মদ এমদাদুল হক চৌধুরী : শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন

বিলেতে বাঙালির ঈদে ওভালের রং



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

রমজান আর ঈদ কেনাকাটায় বেশ কিছু দিন ধরেই উৎসবমুখর হয়ে আছে ব্রিটেনের বাঙালিপাড়া। এই উৎসবে নতুন করে যোগ হয়েছে আরেক আমেজ। সাউথ আফ্রিকার সঙ্গে বাংলাদেশের বিজয়ের পর লন্ডন কিংবা অন্যান্য শহরগুলোর বাঙালিরা পেয়েছেন উৎসবের নতুন উপলক্ষ। কাল থেকে দেখা গেছে সব জায়গায়ই উচ্ছ¡সিত মানুষের একই কথা, জিতে গেছে বাংলাদেশ। ওভালের জয়ে এখানে বেড়ে উঠা বাংলাদেশি প্রজন্মদের কাছে উঠে এসেছে যেন নতুন এক বাংলাদেশ। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রায় সব পরিবারের বংলাদেশি বংশোদ্ভূত ছেলেমেয়েরা এ খেলা দেখেছে। শুধু তাই নয়, গর্ব নিয়েই তাৎক্ষণিকভাবে ফেসবুক-ইনস্টাগ্রামে ভিনদেশি বন্ধুদের সঙ্গে বাংলাদেশের এ বিজয়কে শেয়ার করেছে তারা।

সাকিব-মাশরাফিদের খেলা দেখতে ইউরোপ-আমেরিকা থেকেও ছুটে এসেছেন অনেক বাংলাদেশি। তাদের পাশাপাশি ব্রিটেনের দর্শকদের উপস্থিতিতে খেলার দিন ওভাল স্টেডিয়াম যেন হয়ে উঠেছিল এক টুকরো বাংলাদেশ। তাদের দম ফাটানো ‘বাংলাদেশ… বাংলাদেশ…’ শ্লোগান যেমন টাইগার বাহিনীকে তেজোদ্দীপ্ত রেখেছে, তেমনি বাংলাদেশের সমর্থকদের উচ্ছ¡াস দেখে ভিনদেশিরাও পর্যন্ত অংশ নিয়েছে গ্যালারির আনন্দ-উল্লাসে। ওভালের ‘এন্টারটেইনমেন্ট কর্নার’ ছিল বাংলাদেশময়। টাইগারের কস্টিউম পরা দর্শকদের নিয়ে ‘এন্টারটেইনমেন্ট কর্নারে’ নেচেছে ভিনদেশি মানুষগুলো, এদের কণ্ঠেও উচ্চারিত হয়েছে ‘বাংলাদেশ’ কিংবা ‘টাইগার’।

ওভালের সেই তেজ আর উচ্ছাস এখনো যেন লন্ডনের বাঙালিপাড়ায় ঢেউ দিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের খেলাকে সামনে রেখে এমনিতেই ব্রিকলেন কিংবা হোয়াইট চ্যাপেলের বেশ কিছু দোকানে ঝুলছে বাংলাদেশের টি-শার্ট, পত পত করে উড়ছে বাংলাদেশের পতাকা। তরুণ-বৃদ্ধ-শিশুরা কিনছে এসব। খেলার দিন ওভালে দেখা গেছে, ভিনদেশি ব্যবসায়ীরা (শেতাঙ্গ ফেরিওয়ালা) পর্যন্ত ফেরি করেছে বাংলাদেশের ব্যাজ, মাথায় বাঁধার ফিতা, বাচ্চাদের ছোট পতাকা।

আগামীকাল নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। এই খেলাটাও হচ্ছে ওভালেই। বলাই বাহুল্য, এ দিনও বাংলাদেশি সমর্থকদেরই আধিক্য থাকবে। তবে গত খেলার মতো উপচে পড়া ভিড় হয়তো হবে না। কারণ ব্রোঞ্জ আর সিলভার টিকেট ইতোমধ্যে বিক্রি হয়ে গেছে। ব্রিটেনে মঙ্গলবার নাকি বুধবার ঈদুল ফিতর হবে- এই দ্বিধায় লন্ডনের বাইরের অনেকেই এ খেলার টিকেট কেনেননি। কিন্তু লন্ডনের স্থানীয় ক্রিকেটপ্রেমীরা ঠিকই খেলা দেখবেন। কয়েকজনের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, ঈদের দিন নিয়ে সন্দিহান থাকার পরও তারা টিকেট কিনেছেন এবং কাল অবশ্যই ওভালে যাচ্ছেন। এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে, শুধু গোল্ড আর প্লাটিনাম টিকেট এখনো পাওয়া যাচ্ছে। তবে তাও আছে সীমিত।

বাংলাদেশের দলনেতা মাশরাফি মাঠে বাংলাদেশের সমর্থকদের উচ্ছসিত প্রশংসা করেছেন। এই প্রশংসায় আরো তেজোদ্দীপ্ত হয়েছেন অভিবাসী বাংলাদেশিরা। বুধবার আবারো জেগে উঠবে ওভাল, বাঘের হুঙ্কারে কেঁপে উঠবে আকাশ-বাতাস, মাশরাফি-সাকিবরা ছিনিয়ে আনবেন আরেকটি বিজয়- এই প্রত্যাশায় বুক বেঁধে আছেন ব্রিটেনের বাংলাদেশিরা।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন