শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে বাংলা প্রেসক্লাব ইতালী  » «   স্পেনে করোনা ভাইরাস : বাংলাদেশিদের জন্য দূতাবাসের নির্দেশনা  » «   স্পেনে ৫২বাংলার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান  » «   হাউড বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের একুশে পালন  » «   একুশে উপলক্ষে নেপলীতে জালালাবাদ এসোসিয়েশনের শিশু-কিশোরদের অনুষ্ঠান  » «   মাদ্রিদে স্প্যানিশ বিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   স্পেনের ইতিহাসে প্রথম একুশে বইমেলা  » «   পর্তুগালের লিসবনে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   ইতালী আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল উপলক্ষে প্রস্তুতি কমিটি  » «   ইতালিতে অমর একুশে পালিত  » «   স্পেনে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   পরমাণু বিজ্ঞানী ও লেখক ড. ফয়জুর রহমান আল সিদ্দিকর সাথে কথোপকথন  » «   ২১শে ফেব্রুয়ারীতে বইমেলায় মানুষের ঢল  » «   একুশের চেতনা পাকিস্তানেও  » «   লন্ডনে সফলভাবে ‘বঙ্গবীর ওসমানী কাপ ২০২০’ সম্পন্ন  » «  

কবিতা দিয়ে চেতনার বিজয় উৎসব



ব্রিটেনে বেড়ে ওঠা প্রজন্মকে সাথে নিয়ে বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস পালন করেছে চেতনা ইউকে ম্যানচেস্টার। ‘প্রতিরোধ-সংগ্রামে কবিতা,প্রাণের গভীরে কবিতা’ শিরোনামে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান হয়ে গেলো গত ১৬ ডিসেম্বর।

মুক্তিযুদ্ধে রক্ত টগবগিয়ে ওঠা তরুণদের যুদ্ধে যাবার প্রত্যয় কবিতার ছন্দে ঝংকার তুলে ছিলো সেদিন। ৭১ এ শত্রু নিধনে ঝাঁপিয়ে পড়ে ছিল বাঙালি, মুক্তির জন্যে মানুষের আকুতি, ছেলেহারা মায়ের দীর্ঘশ্বাস, তারামন বিবিদের বীরত্ব গাঁথা ধ্বণিত প্রতিধ্বনিত হয়েছিল চেতনার এ অনুষ্ঠানে।

প্রতিবাদ-প্রতিরোধ আর নতুন দেশ গড়ার অঙ্গীকারে উজ্জিবীত হবার শপথ নেয়া এ অনুষ্ঠানটি হয় ম্যানচেস্টারে বার্চ কমিউনিটি সেন্টারে রবিবার সন্ধ্যায়। কবিতার পাশাপাশি ল্যাংগুয়েজ এন্ড কালচার অব বাংলাদেশ এলসিবি ম্যানচেস্টারে শিশু-কিশোর কিশোরীদের গাণ-নৃত্য দিয়ে সাজানো হয় পুরো অনুষ্ঠানটি।

এলসিবি’র শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীদের গাওয়া জাতীয় সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় এ অনুষ্ঠান। চেতনার সাধারণ সম্পাদক ফারুক যোশী’র স্বাগত বক্তব্যের পর  সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন চেতনার সভাপতি সৈয়দ মাহমুদুর রহমান।

সাবিনা ইয়াসমিন ও আমনিুল হক ওয়েছের উপস্থাপনায়  কবিতা আবৃত্তি করেন নাজমা ইয়াছমিন, ইফফাত শারমীন মিথুল, মীর গোলাম মোস্তফা, তাসাদ্দুক হোসেন বাহার, মুকিত চৌধুরী সিতু, লিয়াকত খান,বাহার উদ্দিন, সালাহ উদ্দিন সুমন, জাওয়েদ ইকবাল মজুমদার, জুবেদ আহমদ, শামিম তালুকদার প্রমূখ।

কবিতার ফাঁকে ফাঁকে চলে শিশু-কিশোর-কিশোরীদের গীতি নাট্য, কবিতা আবৃত্তি। অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে ছিলো গান। নৃত্য আর গানের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের বিজয়কে তুলে ধরা হয় এ অনুষ্ঠানে।

গীতি নাট্য পরিবেশনায় অংশনেন ব্রিটেনে বেড়ে ওঠা লাভিবা, বুশরা রাইদা,আরীফিন, হাবিবা, আমিরা, আদিয়ান, তুষা, তাওসীফ, আবরার, জারীফ, স্বাধীন, আদৃতা, সাফোয়ান, রীশব, লিয়ানা,রাকা, রাইয়ান, আদীব, সাইরা,ইলম, প্রিময়, প্রভাত,ইমতিয়াজ। এছাড়া ছিল বিজয় নিয়ে তরুনী নাহদার আবেগময় নৃত্য।

অনুষ্ঠানে দেশাত্ববোধক গান পরিবেশন করেন মিছবাহ উদ্দিন এবং বাউল গানে ছিলেন সৈয়দ মাহমুদুর রহমান ও তারা মিয়া। এ ছাড়া গান পরিবশেন করেন মীর গোলাম মোস্তফা ও নাজমা ইয়াছমীন। কবিতা ও গানে যন্ত্র সঙ্গীতে ভিন্ন আবহ তোলেন তুলসী ভৌমিক।

 

 

কণ্ঠ: তিশা সেন