বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
ব্রিটেন প্রবাসে ঈদ ছুটি নিয়ে ভাবনা ও আমাদের করণীয়  » «   ঈদে ছুটি নাই  » «   কমিউনিটি ও পরিবারের স্বার্থকে প্রাধান্য দিলে ঈদের ছুটি নিয়ে দ্বি-মত থাকবে না- শায়খ আব্দুল কাইয়ুম  » «   ব্রিটেনে ঈদ হলিডে : আকাঙ্ক্ষা ও বাস্তবতা  » «   দয়া নয়, ঈদের ছুটি শ্রমজীবি মুসলমানদের অধিকার  » «   ব্রিটেনে ঈদের ছুটি নিয়ে কমিউনিটি ও মানবাধিকার নেতারা যা বলেন  » «   বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃক বন্যা দুর্গতদের চিকিৎসার্থে বিনামূল্যে ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «   যুক্তরাজ্যে ঈদের ছুটির দাবীতে  আলতাব আলী পার্কে সমাবেশ অনুষ্ঠিত  » «   পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে স্পেনে দূতাবাসের বিশেষ আয়োজন  » «   পদ্মা সেতুর স্মারক নোট বাজারে আসবে রবিবার  » «   পদ্মা সেতুর জন্য অভিনন্দন বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধির  » «   অদম্য বাংলাদেশ, খুলল পদ্মার দ্বার  » «   আছে শুধু ভালোবাসা, দিয়ে গেলাম তাই: প্রধানমন্ত্রী  » «   রেমিটেন্স প্রেরণে উদ্বুদ্ধকরণে মাদ্রিদে মতবিনিময় সভা’ অনুষ্ঠিত  » «   বিশ্বনাথে মায়ের কোল থেকে ভেসে গেল শিশু, ৫ জনের মৃত্যু  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


সেহরিতে জনগণকে জাগানোর উদ্দেশ্যে ফাইটার জেট উড়াবে ইন্দোনেশিয়া



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ইন্দোনেশিয়ার এয়ার ফোরস্ থেকে জানানো হয় তারা এবার এ ব্যাতিক্রমী উদ্যোগের দ্বারা দেশের এই ট্রেডিশনে যোগদান করবে।

যুক্তিমূলক অনেকগুলো বিষয় মাথায় রেখে এ সিদ্ধান্ত নেয় সেদেশের এয়ার ফোরস্। মেডিক্যাল এক্সপার্টসদের মতে, রমজানে ভোর সময়টাও ফাইটার পাইলটদের প্লেন চালনার জন্য উপযুক্ত সময়। কেননা রোযা অবস্থায় লো ব্লাড সুগার লেভেল পাইলটদের যাত্রার জন্য অনেক ঝুঁকিপূর্ণ।

এয়ার ফোর্সের বরাত দিয়ে কর্নেল সুস এম য়ুরিস জানান, ‘এটি একটি সংযুক্ত মিশন যেটির মাধ্যমে জনগনকে সেহরিতে জাগিয়ে দেওয়ার সাথে সাথে আমাদের পাইলটদের ট্রেনিং পিরিওড সম্পাদন করা হবে।

সেহরির সময়, পাইলটরা শহরের আকাশজুড়ে  আফটার বার্নার ব্যবহার করে উড্ডয়ন করবে যার দরুন অনেক শব্দের সৃষ্টি হবে।’

উল্লেখ্য, কয়েক বছর আগেও একই ধরনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল সেদেশে। সেসময় এয়ারক্রাফট হিসেবে ব্যাবহার হয়েছিল লো ফ্লাইং ফাইটার এয়ারক্রাফট এফ-১৬ এবং টি-৫০আই জেট।

টুইটারের মাধ্যমে সেদেশের এয়ার ফোরস্ @_TNIAU জানায়, ‘সেহরির সাথে আমাদের প্রধান উদ্দেশ্যে হচ্ছে আমাদের কমব্যাট পাইলটদের প্রফেশনালিজম যেন বজায় থাকে যাতে তারা যেকোন সময় বহিঃশত্রুর আক্রমন মোকাবিলা করতে পারে।’

ব্যাতিক্রমি এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে সেদেশের জনগণ। 

সূত্র: দি জাকার্তাপোষ্ট


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন