বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
কেসি সলিসিটর্সের দশক পূর্তি উদযাপন  » «   বঙ্গবন্ধু স্কলারশিপ আন্তর্জাতিক অঙ্গণে বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রতিচ্ছবি  » «   লীলা নাগের স্মৃতি রক্ষায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উদ্যোগ নেবে  » «   ফুসফুস-ক্যান্সার পরীক্ষার জন্য মাইল এন্ড লেজার সেন্টারে স্থাপন করা হচ্ছে বিশেষ ‘স্ক্রিনিং মেশিন’  » «   অলি-মিঠু-টিপু প্যানেলের পরিচিতি ও ইশতেহার ঘোষণা  » «   ২০ নভেম্বর লন্ডনের রয়েল রিজেন্সিতে ৫ম বেঙ্গলী ওয়েডিং ফেয়ার  » «   একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির যুক্তরাজ্য শাখা গঠিত  » «   টি আলী স্যার ফাউন্ডেশন সম্মাননা পেলেন সিলেটের ২৪গুণী শিক্ষক  » «   নওয়াগ্রাম প্রগতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ফুল, ফল ও ঔষধি বৃক্ষরোপণ  » «   আলোকিত মানুষ শিক্ষক মো. সমছুল ইসলাম এর ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী  » «   সিলেটের বিয়ানীবাজারে একটি পরিত্যক্ত কূপে তাজা গ্যাসের মজুদ আবিষ্কৃত  » «   বাংলাদেশী কারী  ব্রিটেনের প্রবৃত্তি ও খাবার সংস্কৃতিতে অনন্য  অবদান রাখছে  » «   পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় নারীবাদের প্রতিবন্ধকতা  » «   রিষি সুনাক এশিয়ান বংশদ্ভোত, কনজারভেটিভ এবং ধনীদের বন্ধু  » «   গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাব নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারীদের ব্যাপারে সতর্ক থাকার আহবান  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


সৈয়দ আফসার উদ্দিনের আন্তর্জাতিক সম্মান লাভ



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ব্রিটিশ – বাংলাদেশী স্বনামধন্য মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, পুরষ্কারপ্রাপ্ত শিক্ষক – সৈয়দ আফসার উদ্দিন এমবিই সম্প্রতি গ্রেট ব্রিটেনের সম্মানজনক আন্তর্জাতিক পুরষ্কার  ‘ফ্রিম্যান অব দ্যা সিটি অব লন্ডন’ সম্মানে ভূষিত হয়েছেন।
বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিস রেডিও এবং ভয়েস অব আমেরিকা রেডিওর সাবেক ব্রডকাস্টার, চ্যানেল এস টিভির সিনিয়র সংবাদ পাঠক- সৈয়দ আফসার উদ্দিন ব্রিটিশ -বাংলাদেশী ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে কাজ করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি লন্ডনে শিক্ষকতা করেছেন প্রায় ত্রিশ বছর।

উল্লেখ্য প্রিন্টিং ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় একইসাথে তিনি ১৯৮৯ সালে কাজ শুরু করেন। ইলেকট্রনিক মিডিয়াতে তাঁর অসামান্য কাজ ও জনপ্রিয়তা এবং শিক্ষাক্ষেত্রে অনন্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরুপ এই সম্মাননা তাঁকে দেয়া হলো। তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশন ও লন্ডন ভিত্তিক বাংলা টিভিতেও সাফল্যের সঙ্গে কাজ করেছেন।

সোমবার, ২৪শে অক্টোবর ২০২২ লন্ডনের ঐতিহ্যবাহী গিল্ডহল এর লর্ড চেম্বারলিন চেম্বারে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে উচ্চ আন্তর্জাতিক মর্যাদা সম্পন্ন এ পুরষ্কার সৈয়দ আফসার উদ্দিনের হাতে তুলে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে ডেপুটি ক্লার্ক টু দ্যা চেম্বারলেইন কোর্ট – টিফেইন লি বিয়ান ‘ডিক্লারেশন অব দ্যা ফ্রিম্যান’ পড়তে ব্রিটেনে বাংলাদেশী কমিউনিটিতে অতি সুপরিচিত মুখ সৈয়দ আফসার উদ্দিনকে আহ্বান জানান।
পরে টিফেইন লি বিয়ান পরিবারের সদস্য, সহকর্মী ও শুভাকাঙ্খীদের উপস্থিতিতে সৈয়দ আফসার উদ্দিনের হাতে ‘ফ্রিম্যান অব দ্যা সিটি অব লন্ডন’ সম্মাননাটি তুলে দেন। উল্লেখ্য সৈয়দ আফসার উদ্দিন হলেন ব্রিটেন তথা বহির্বিশ্বে বাংলা ভাষী প্রথম টিভি সংবাদ পাঠক, যিনি এই সম্মান অর্জন করলেন।

এই আন্তর্জাতিক এবং লন্ডনের সর্বোচ্চ সম্মান তাঁদেরকেই দেয়া হয়, যাঁরা নিজ নিজ কাজের ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন ধরে সফলতার সাথে অসাধারণ অবদান রেখে চলেছেন।
উল্লেখ্য ১২৩৭ সাল থেকে ফ্রিম্যান অব দ্যা সিটি অব লন্ডন (ফ্রীম্যানশীপ) সম্মাননা চালু রয়েছে। এই সম্মাননা ব্রিটেনের রাজ্ পরিবারের এগারোজন সদস্য এরইমধ্যে লাভ করেছেন। এঁদের মধ্যে রয়েছেন প্রয়াত রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ, তাঁর মা প্রয়াত প্রথম এলিজাবেথ, বর্তমান রাজা তৃতীয় চার্লস, প্রয়াত প্রিন্সেস ডায়ানা, প্রিন্স উইলিয়াম প্রমুখ।

এছাড়া ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল, সাবেক ব্রিটিশ প্রধান মন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল, মার্গারেট থ্যাচার, সাবেক জার্মান চ্যান্সেলর হেলমোট কোহল, দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট নেলসন ম্যান্ডেলা, ভারতের সাবেক প্রধান মন্ত্রী জওহর লাল নেহেরু, জাতি সংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান, বিশ্বখ্যাত ব্রিটিশ বিজ্ঞানী স্টিভেন হকিংস, নিউ ইয়র্ক সিটির সাবেক মেয়র মাইকেল ব্লুমবার্গ এ সম্মানে ভূষিত হয়েছেন।

সম্মান লাভের পর সৈয়দ আফসার উদ্দিন প্রথমেই মহান সৃষ্টিকর্তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। পরে যিনি এই সম্মানের জন্য তাঁকে নোমিনেট করেছিলেন তাঁকে ধন্যবাদ জানান। একইসাথে ধন্যবাদ জানান এই সম্মান দেয়ার জন্য গঠিত প্যানেল সদস্যদের প্রতি। প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে সৈয়দ আফসার উদ্দিন আরো বলেন – “এই সম্মাননা প্রাপ্তির ফলে কাজের প্রতি আমার দায়িত্ব আরো বেড়ে গেলো। আমি মনে করি আমার মতো যাঁরা দীর্ঘদিন ধরে ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া ও শিক্ষাক্ষেত্রে কাজ করছেন এই সম্মান তাঁদেরকে আরো মনোযোগ ও যত্নসহকারে কাজ করতে উৎসাহিত করবে”।

এছাড়া তিনি তাঁর তেত্রিশ বছরের মিডিয়া ক্যারিয়ার ও ত্রিশ বছরের শিক্ষকতা জীবনে যে সব প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি তাঁকে কাজ করার সুযোগ করে দিয়েছেন – তাঁদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সে সাথে তাঁর প্রতি ছাত্র – ছাত্রীদের ও দর্শকদের ভালোবাসা এবং সহকর্মীদের সহযোগিতার কথা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। কাজ থেকে ছুটি নিয়ে অনুষ্ঠানে আসার জন্য পরিবারের সদস্য, বন্ধু, সহকর্মী ও শুভাকাঙ্খীদের তিনি আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

এই দীর্ঘ পথচলায় পাশে থেকে সব ধরণের সহযোগিতা ও উৎসাহ দেয়ার জন্য সৈয়দ আফসার উদ্দিন – স্ত্রী, দুই ছেলে এবং এক মেয়েকে তাঁর এই প্রাপ্ত সম্মাননা উৎসর্গ করেছেন।

উল্লেখ্য সাংবাদিকতার পাশাপাশি সৈয়দ আফসার উদ্দিন প্রায় ত্রিশ বছর লন্ডন বারা অব টাওয়ার হ্যামলেটস্ এ – কলেজ ও সেকেন্ডারি স্কুলে শিক্ষকতা করেছেন। সিনিয়র এক্সামিনার হিসেবে ‘একিউএ’ এক্সাম বোর্ডের সাথে কাজ করছেন ছাব্বিশ বছর ধরে। ইউনিভার্সিটি অব গ্রীনিচ ও ইউনিভার্সিটি অব ইস্ট লন্ডনের অধীনে ‘পিজিসিই মেন্টর’ হিসেবে দশ বছর কাজ করেছেন।

এছাড়া তিন দশক ধরে কমিউনিটিতে ভলান্টারী কাজ এবং চ্যারিটি কাজের সঙ্গেও নিজেকে যুক্ত রেখেছেন। লন্ডন বারা অব টাওয়ার হ্যামলেটস্ এ – শিক্ষা এবং কমিউনিটিতে তাঁর কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ব্রিটেনের সদ্য প্রয়াত মহামান্য রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ ২০২০ সালে তাঁর জন্মদিনে সৈয়দ আফসার উদ্দিনকে “এমবিই” (মেম্বার অব দ্যা মোস্ট এক্সসিলেন্ট অর্ডার অব দ্যা ব্রিটিশ এম্পায়ার) উপাধিতে ভূষিত করেন।

শিক্ষাবিদ, সাংবাদিক,সংবাদ পাঠক , কলামিস্ট ও কমিউনিটি কর্মী – সৈয়দ আফসার উদ্দিন এমবিই তাঁর স্ত্রী, দুই পুত্র ও এক কন্যা নিয়ে লন্ডনে বসবাস করছেন। মা – বাবার ছয় সন্তানের মধ্যে সৈয়দ আফসার উদ্দিন তৃতীয়। তাঁর দেশের বাড়ি বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার মিরসরাই উপজেলার বারৈয়াহাটে চিনকি আস্তানা সংলগ্ন ‘তাকিয়া বাড়ি ’(সৈয়দ বাড়ি)। আর তাঁর শ্বশুর বাড়ি সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার সৈয়দপুর গ্রামে।

আরও পড়ুন-

রানির সম্মাননা এমবিই পেলেন সৈয়দ আফসার উদ্দিন


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন