শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
জীবন যেখানে দ্রোহের প্রতিশব্দ মৃত্যু সেখানেই শেষ কথা নয়..  » «   শিল্প উদ্যোক্তা ও ক্রীড়া সংগঠক মো: জিল্লুর রাহমানকে  লন্ডনে সংবর্ধনা  » «   ঈদের সামাজিক গুরুত্ব ও বিলাতে ঈদের ছুটি   » «   ব্রিটেনে ঈদের ছুটি  প্রসঙ্গে  » «   হজের খুতবা বঙ্গানুবাদ করবেন মাওলানা শোয়াইব রশীদ ও মাওলানা খলিলুর রহমান  » «   হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু, তাবুর শহর মিনায় হাজিরা  » «   ঈদের ছুটি : আমাদের কমিউনিটিতে সবার আগে শুরু হোক  » «   ঈদের দিনে বিলেত প্রবাসীদের মনোবেদনা  » «   বিলেতে ঈদ উৎসব এবং বাঙ্গালী কমিউনিটির অন্তর্জ্বালা  » «   জলঢুপে বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমান কেম্প  » «   তিলপাড়ায় বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «   করিমগঞ্জ দিবস  » «   ঈদের ছুটি চাই : একটি সমন্বিত উদ্যোগ অগণিত পরিবারে হাসি ফুটাতে পারে  » «   ট্রাক ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেল তিন বন্ধুর  » «   বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের বিনামূল্যে ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


ব্রিটেনে প্রতি ৭জনে একজন শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার 



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে ১৬ বছর পেরুনোর আগেই  প্রতি ৭ জন মেয়ের মধ্যে  একজন এবং প্রতি ২০ ছেলের মধ্যে একজন যৌন নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন।

এই যৌন নির্যাতনের বেশীর ভাগের খবর পাওয়া বা  উন্মোচিত হয় না। এমনকি প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার পরেও  চাইল্ড এ্যাভিউজ  ঘটনা  চেপে রাখা হয় বলে জানিয়ে ব্রিটেনের সেন্টার অফ এক্সপাটিজ অন চাইন্ড এ্যাভিউজ(সিএসএ সেন্টার)। এ কারণে দিন দিন চাইল্ড এ্যাভিউজ এর সংখ্যা বাড়ছে বলেও মন্তব্য করেছে  সংস্থাটি।

সিএসএ সেন্টার বলছে, শিশুদের উপর যৌন নির্যাতনের ঘটনা দিন দিন গোপন হচ্ছে এবং  নির্যাতনের হার দিন দিন আরও বাড়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে ২০০৯ সালে  এনএসপিসিসি পরিচালিত এক সমীক্ষায়  দেখা গেছে, যুক্তরাজ্যে ১৮ থেকে ২৪ বছর বয়সীদের মধ্যে শতকরা  ২৮.১ ভাগ যৌন হয়রানীর শিকার হয়েছেন।

এই পরিসংখ্যান ও অন্যান্য তথ্যের উপর ভিত্তি করে সিএসএ সেন্টার আরও তথ্যভিত্তিকভাবে মনে করছে যে, অপ্রাপ্ত বয়স্কদের  শতকরা ১৫ভাগ মেয়ে এবং ৫ভাগ ছেলে-বয়স ১৬ পেরুনোর আগেই  যৌন নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।

এই যৌন হয়রানীর মধ্যে  পড়ে সকল  অশ্লীল কনটেন্ট ও এর ব্যবহার,  একাজে প্রলুব্ধ করার মতো সকল যোগাযোগ মাধ্যমে হয়রানী ইত্যাদি।

বিশেষজ্ঞরা ইতিমধ্যে হুশিয়ারি দিয়ে  বলেছেন, করোনা পেনডামিকের  অনেক  আগে আদালতে চলমান অনেক মামলা এখনও নিস্পত্তি হয়নি।

সিএসএ  এর পরিচালক ইয়্যান ডেন  উদ্ধেগ প্রকাশ করে পুলিশ,শিক্ষক, স্যোসাল ওয়ারকার সহ সংশ্লিষ্ট প্রাতিষ্ঠানে কর্মরতদের উচ্চতর প্রশিক্ষণ ও প্রতিরোধে কার্যকর প্রদক্ষেপ গ্রহন এবং   বিশেষজ্ঞদের মাধ্যমে যৌন নির্যাতনের সকল ইনসিডেন্ট এর বিস্তারিত ডাটা তৈরীর আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমরা সমাজে শিশু যৌন নির্যাতন দেখতে চাইনা। এবং একই সময়ে এটাও শুনতে চাইনা যে, এটা আমাদের আশপাশে সত্যিকার ঘটছে। এটা খুব গুরুত্বপূণ যে, শিশুদের যৌন নিপীড়ন বন্ধে সমাজের প্রতিটি স্তরে  এটি প্রতিরোধে কার্যকরী ভূমিকা থাকা জরুরী।

সিএসএ এর পরিচালক ইয়্যান ডেন  আরও বলেন, করোনা পেনডামিকে লকডাউনে শিশুদের ঘরে থাকতে হয়েছে। আতংকগ্রস্থ এই সময়ে  বাচ্চারা পরিবারে ইন্টারনেট ব্যবহার করেছে বেশী এবং এসময় তাদের তদারকি করাও  ছিল বড় একটি চ্যালেঞ্জ।  এখন সবচেয়ে  গুরুত্বপূর্ণ হলো-  আত্নবিশ্বাসের সাথে বাচ্চাদের সুরক্ষা করা।

প্রসঙ্গত, ব্রিটেনের  ল্যোকাল ‍অথরিটি চিলনড্রেন সার্ভিসেস ডাটা বলছে, সাম্প্রতিক সময়ে ১৮ বছরের নিচের শিশুদের সুরক্ষা পরিকল্পনা নিকট বছরগুলোর তুলনায় আশংকাজনকভাবে হ্রাস পেয়েছে।

 

ব্রিটেনে প্রতি ৭জনে একজন শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার ।। 𝟝𝟚𝕓𝕒𝕟𝕘𝕝𝕒𝕥𝕧

 

 


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন