বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
কারী ইন্ড্রাস্টির সংকট মোকাবেলায় দরকার সমন্বিত উদ্যোগ  » «   বিবিসি প্রকাশ করেছে উইঘুর নির্যাতন নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য  » «   মাদ্রিদে বাংলাদেশ দূতাবাসে বাংলা নববর্ষ উদযাপন  » «   মাঙ্কিপক্স সংক্রমণ আরও ২ দেশে: বেলজিয়ামে ২১ দিনের কোয়ারেন্টিন ঘোষণা  » «   শুধুই নারীদের পরিচালনায় প্রথম সৌদি আরবের আকাশে উড়ল ব্যতিক্রমী ফ্লাইট  » «   গোলাপগন্জে চেয়ারম্যান প্রার্থী এলিম চৌধুরী’র মতবিনিময়  » «   দুদকের মামলায় হাজী সেলিম কারাগারে  » «   নিষেধাজ্ঞার মধ্যেও রাশিয়ার মুদ্রা রুবল’র উত্থান  » «   কারী শিল্পের সংকট মোকাবেলায় সিবিআই প্রেসিডেন্টের কাছে  বিসিএ’র পাঁচ দাবী উপস্থাপন  » «   গোলাপগঞ্জে ভোটার হাল নাগাদ শুরু  » «   বার্সেলোনায় মাদারীপুর সমিতির ঈদ পুনর্মিলনী  » «   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বের প্রশংসায় স্পেনের প্রেসিডেন্ট  » «   আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরীর চিরবিদায়  » «   ইতালির জেনোভায়‌ প্রবাসীদের কনস্যুলেট সেবা প্রদান  » «   বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে‘র দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা ও সম্মেলন অনুষ্ঠিত  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন

স্পেনের টেনেরিফে বাংলাদেশিরা নির্মাণ করেছেন সবচেয়ে বড় মসজিদ আস সুন্নাহ



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

অপার সৌন্দর্যে ঘেরা আটলান্টিক মহাসাগরের তীরে অবস্থিত স্পেনের টেনেরিফ দ্বীপকুঞ্জ। দক্ষিণ টেনেরিফে প্রায় ৭০০ শত বাংলাদেশি তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছেন।লস ক্রিসটায়ানো এরিয়াতে বাংলাদেশিরা নিজেদের অর্থয়ানে গড়ে তুলেছেন টেনেরিফের সবচেয়ে বড় মসজিদ আস সুন্নাহ।আস সুন্নাতে এক সাথে প্রায় ৫০০ মানুষ জামায়াতে নামাজ আদায় করতে পারেন,রয়েছে মহিলাদের আলাদা নামাজের ব‍্যবস্থা।লকডাউনে টেনেরিফে একমাত্র আস সুন্নাতে ঈদের নামাজ পড়ার অনুমতি মিলেছিল।অল্প সময়ে এমন সুন্দর ও বিশাল মসজদি নির্মানের জন‍্য বিভিন্ন কমিউনিটি থেকে ব‍্যপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন স্থানীয় বাংলাদেশিরা।

যেভাবে শুরু পথচলা

২০১৩ সালের দিকে অল্প সংখ্যক বাংলাদেশিদের বসবাস ছিল টেনেরিফে,নিজের মধ্যে ঐক্য এবং দেশীয় সংস্কৃতি চর্চার জন‍্য জসীমউদ্দীন ভূইয়ার প্রস্তাবনায় জাকির আহমদকে সভাপতি এবং  মনু দাদা কে সাধারণ সম্পাদক করে গঠন করা হয় বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অফ টেনেরিফ।পরবর্তীতে নিজের মধ্যে চাঁদা কালেকশনের মাধ‍্যমে ছোট একটি লোকাল বাসা ভাড়া নিয়ে একটি ক্লাব গঠন করা হয়।স্থানীয় বাংলাদেশি মুসলমান ও শিশুদের ধর্মীয় শিক্ষার কথা মাথায় রেখে এই ক্লাবকে মসজিদে রুপান্তরের মহতী উদ্যোগ গ্রহন করেন স্থানীয় কমিউনিটি ব‍্যক্তিত্ব জাকির হোসেন,জসীম উদ্দিন ভূইয়া ,শাহজাহান (রিন্কু),পাবলু আহমেদ,হারুন বেপারী,আলীম উদ্দিন,রুহুল আমিন,জাহাঙ্গীর আলম, শহীদউল্লাহ,আমীর হোসেন,সাঈদ আহমেদ,লোকমান হোসেন,আব্দুল মতিন,সাগর ভূইয়া,মঈন উদ্দিন,কামাল উদ্দিন সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।সকল বাংলাদেশিদের সহযোগিতায় ২০১৫ সালে প্রাথমিক ভাবে একটি ক্লাবকে রুপান্তর করা করা হয় মসজিদে।সেই সময়ে টেনেরিফের একমাত্র বাংলাদেশি ইমাম মহসিন আহমদের মাধ‍্যমে মসজিদের কার্যক্রম শুরু করা হয়েছিল।

বড় পরিসরে মসজিদ নির্মাণ

অনিয়মিতদের সহজ বৈধতা আর কাজের নিশ্চয়তা থাকায় বাংলাদেশি অভিবাসীদের জন্য টেনেরিফ  নিরাপদ গন্তব্য হয়ে উঠেছিল । অল্প সময়ে বাংলাদেশিদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেলে এবং ছোট মসজিদে সবার স্থান সংকুলন না হওয়ার কারণে বাংলাদেশিরা বড় একটি মসজিদ নির্মামের মননিবেশ করেন।  লস ত্রিসটিয়ানো এলাকার প্রানকেন্দ্রে একটি প্রেন্টি প্রেসের অফিস ভাড়া নেওয়া হয়। সকল বাংলাদেশিদের  শ্রম ও  অর্থনৈতিক  সহযোগিতায় একটি পেন্টিং প্রেসকে মসজিদে রুপান্তর করা হয়। এসময় অনান‍্য কমিউনিটির মানুষ বিশেষ করে আরবিয়ান অভিবাসিরা কঠোর পরিশ্রম ও আর্থিক সাহায্যের হাত বাড়য়ে দেন।  সবার সার্বিক সহযোগিতায় ২০১৭ সালে তৈরি করা টেনেরিফের সবচেয়ে বড় মসজিদ আস সুন্নাহ।

মসজিদ ভিত্তিক নানা কর্মসূচি

আস সুন্নাহ মসজিদে রয়েছে বয়স্কদের কোরআন শিক্ষাব‍্যবস্থা,স্প্যানিস ভাষা শিক্ষা,শিশুদের মক্তব,বড়দের জন‍্য পাঠাগার।জুম্মার নামাজ এবং দুই ঈদের নামাজ আদায় করা হয় এই মসজিদে।ঈদ পূর্নর্মিলনীএবং নানা ধর্মীয় অনুষ্ঠানে পালন করা হয় মসজিদ কে কেন্দ্র করে।এখানে কেউ মারা গেলে লাশের দাফন -কাফনের ব‍্যবস্থা করা এবং কেউ লাশ দেশে পাঠাতে চাইলে সব ধরনের সহযোগিতা করা হয় মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে।

মসজিদের পাশের একটি জায়গা ক্রয় এবং এখানে বাচ্চাদের জন‍্য মাদ্রাসা ও হিফজ খানা করার পরিকল্পনা আছে এমনটা জানিয়েছেন মসজিদ কমিটির সভাপতি আমীর হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক সাঈদ আহমেদ।আস সুন্নাহ মসজিদের মাধ্যমে বাংলাদেশি মুসলমান তথা পুরো বাংলাদেশি কমিউনিটি মধ্যে যে ঐক্যের সেতু বন্ধন সৃষ্টি হয়েছে তা ভবিষ্যতে অব‍্যাহত থাকবে এমন প্রত‍্যাশা করেছেন স্থানীয় বাংলাদেশিরা।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন