শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
জীবন যেখানে দ্রোহের প্রতিশব্দ মৃত্যু সেখানেই শেষ কথা নয়..  » «   শিল্প উদ্যোক্তা ও ক্রীড়া সংগঠক মো: জিল্লুর রাহমানকে  লন্ডনে সংবর্ধনা  » «   ঈদের সামাজিক গুরুত্ব ও বিলাতে ঈদের ছুটি   » «   ব্রিটেনে ঈদের ছুটি  প্রসঙ্গে  » «   হজের খুতবা বঙ্গানুবাদ করবেন মাওলানা শোয়াইব রশীদ ও মাওলানা খলিলুর রহমান  » «   হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু, তাবুর শহর মিনায় হাজিরা  » «   ঈদের ছুটি : আমাদের কমিউনিটিতে সবার আগে শুরু হোক  » «   ঈদের দিনে বিলেত প্রবাসীদের মনোবেদনা  » «   বিলেতে ঈদ উৎসব এবং বাঙ্গালী কমিউনিটির অন্তর্জ্বালা  » «   জলঢুপে বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমান কেম্প  » «   তিলপাড়ায় বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «   করিমগঞ্জ দিবস  » «   ঈদের ছুটি চাই : একটি সমন্বিত উদ্যোগ অগণিত পরিবারে হাসি ফুটাতে পারে  » «   ট্রাক ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেল তিন বন্ধুর  » «   বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের বিনামূল্যে ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


করোনায় আরও ১৯ লাখ মানুষের মৃত্যু হতে পারে এ বছর



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ডিসেম্বরের মধ্যে বিশ্বে করোনায় দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা হতে পারে ৩০ হাজার। নতুন করে দেশে দেশে ভাইরাসটির প্রকোপ বাড়তে থাকায় কোভিড-১৯ মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়বে। ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের করা স্বীকৃত একটি মডেলে দেখা যাচ্ছে, চলতি বছর শেষে করোনায় মোট প্রাণহানি গিয়ে ঠেকবে ২৮ লাখে।

আল-জাজিরার প্রতিবেদন অনুযায়ী ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের করা মডেলে করা হিসাবে পূর্বাভাস দিয়ে বলা হচ্ছে, চলতি বছর শেষে অর্থাৎ আগামী বছরের ১ জানুয়ারি মহামারি করোনাভাইরাসে মোট প্রাণহানির সংখ্যা গিয়ে ঠেকবে ১৯ লাখে, যা বর্তমানে কোভিড-১৯ এ মৃত্যুর চেয়ে ১৯ লাখ বেশি।

ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট ফর হেলথ ম্যাট্রিক্স অ্যান্ড ইভালুয়েশনের (আইএইচএমই) ডা. ক্রিস্টোফার ম্যুরে বলেন, ‘মাস্ক বাধ্যতামূলক করা এবং সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে চললে লাখো মানুষের প্রাণ বাঁচানো সম্ভব। কিন্তু মানুষের মৃত্যুর চেয়ে অর্থনৈতিক ক্ষতি নিয়েই ভাবনা বেশি বিশ্বের সরকারপ্রধানদের।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের সামনে একটা প্রাণঘাতী ডিসেম্বর অপেক্ষা করছে। বিশেষ করে ইউরোপ, মধ্য এশিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রে। কিন্তু নিয়ম মানা হচ্ছে না। প্রমাণ এবং বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণে এটা স্পষ্ট যে, মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে চলা এবং সামাজিক সমাবেশ সীমিত করা গেলে ভাইরাসটির বিস্তার কম ঘটবে।’

আইএইচএমই’র মডেল অনুযায়ী পূর্বাভাসে বলা হচ্ছে, ডিসেম্বরের শুরুর দিকে যুক্তরাষ্ট্রে করোনা সংক্রমণ চূড়ায় উঠবে। এ সময় দেশটিতে দৈনিক করোনায় মৃত্যু হবে প্রায় ২ হাজার ৯০০ জনের। জানুয়ারি ১ এর মধ্যে করোনায় মোট মৃত্যুর ক্ষেত্রে শীর্ষে থাকবে ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, মেক্সিকো এবং জাপান।

প্রসঙ্গত, সবশেষ তথ্য অনুযায়ী প্রাদুর্ভাব শুরুর পর এ পর্যন্ত দুই কোটি ৬৮ লাখ মানুষের দেহে সংক্রমণ ঘটিয়েছে করোনা। আক্রান্তদের মধ্যে প্রায় ৮ লাখ ৮০ হাজার মানুষ মারা গেছেন। আশার খবর হলো, ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়েও এখন প্রায় ১৯ লাখ মানুষ সুস্থ। তাদের দেহে ভাইরাসটির উপস্থিতি নেই।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন