বৃহস্পতিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
শীঘ্রই ৯৯৬ কোটি টাকা ব্যয়ে মনু নদীর স্থায়ী প্রতিরক্ষামূলক কাজ শুরু হবে  » «   আমিরাতে রেমিটেন্স যোদ্ধারা আবারো সক্রিয় হয়ে উঠেছে  » «   দুবাই প্রবাসীরা টিকেট সংকটে: সিলেটে বিক্ষোভ  » «   সৌদি আরবে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব ও শেখ কামালের জন্মদিন উদযাপন  » «   মহানবীকে নিয়ে কটূক্তি : নাইজেরিয়ায় গায়কের মৃত্যুদণ্ড  » «   ভয়াবহ মন্দায় পড়েছে যুক্তরাজ্য  » «   ব্রিটেনে করোনার ঝুকি বাড়াচ্ছে সূর্যস্নান!  » «   কৃষ্ণাঙ্গ-ভারতীয় কমলা হ্যারিসকেই রানিংমেট হিসেবে বেছে নিলেন বাইডেন  » «   ৩০ আগষ্ট থেকে শারজায় বেসরকারী স্কুলে ক্লাস শুরু হচ্ছে  » «   বাতিল হচ্ছে এবারের পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষা  » «   স্পেনের টেনেরিফে ক্রিকেট টুর্নামেন্টে চ্যম্পিয়ন বেঙ্গল ক্লাব  » «   আমিরাত সরকারের আরও ৩০ দিনের বাড়তি সুযোগ  » «   লেবাননের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ  » «   লেবাননের পাশে দাড়িয়েছে মানবিক বাংলাদেশ  » «   লন্ডনে এম এ খান ফাউন্ডেশন ক্যারম টুর্নামেন্ট’২০ এর উদ্বোধন  » «  

ইতালীতে বাংলাদেশী সংঘবদ্ধ দল আরেক বাংলাদেশীকে খুন করছে



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

করোনা ভাইরাসের রেপোর্ট নিয়ে এসে করোনা ছড়িয়ে দেয়ার দুর্নাম এখনও ঘোচেনি, এমনি সময় ইতালীতে আরেকটা ভয়ংকর সংবাদ সৃষ্ঠি হয়েছে ইতালীতে বসবাসরত বাংলাদেশীদের মাধ্যমে। মারামারি কাটাকাটি খুন ধর্ষনের ধারাবাহিকতায় ১৮ জুলাই শনিবার রাতে বাণিজ্যিক রাজধানী মিলানে নৃশংসভাবে খুন হয়েছেন রশিদ হাওলাদার (৪৪) নামে এক বাংলাদেশি। হতভাগ্যের বাড়ি মাদারীপুর জেলায়। খুনী ৬ বাংলাদেশিকে ধরতে মাঠে নেমেছে পুলিশ।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, মিলান মহানগরের প্রাণকেন্দ্রে স্তাদেরা এলাকায় মন্তেগানি রোডে পৌর বাজারের সামনে স্থানীয় সময় রাত ৯টা ২০ মিনিটে ট্রাজেডির সূত্রপাত। তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে ৬ বাংলাদেশির একটি সংঘবদ্ধ দল হাতুড়ি ও চেইন দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক ভাবে জখম করে রশিদ হাওলাদারকে। পুলিশের প্রথম গাড়ি এবং এম্বুলেন্স আসার আগেই খুনিরা দ্রুত পালিয়ে যায় ঘটনাস্থল থেকে। স্থানীয় সান পাওলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরই না ফেরার দেশে পাড়ি জমান রশিদ হাওলাদার।

ইতালীয় পুলিশের সায়েন্টিফিক টিম ঘটনাস্থল থেকে হাতুড়ি ও চেইন সহ খুনিদের ফেলে যাওয়া বেশ কিছু আলামত উদ্ধার করেছে। ২ খুনিকে ইতোমধ্যে সনাক্ত করেছে পুলিশ। সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করার পর খুনিদের ধরার চেষ্টা চলছে। নিহত বাংলাদেশির ইতালিতে বৈধ স্টে পারমিট (পেরমেসসো দি সোজ্জর্নো) ছিলো। হত্যাকাণ্ডের ঘটনাস্থল স্তাদেরা এলাকাটি পুলিশের খাতায় আগে থেকেই ‘ক্রাইম জোন’ হিসেবে চিহ্নিত। উত্তর আফ্রিকার অভিবাসীরা এই এলাকায় ছোটখাটো অপকর্ম করে থাকলেও খুনের রেকর্ড করলো বাংলাদেশিরা।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •