শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
কেসি সলিসিটর্সের দশক পূর্তি উদযাপন  » «   বঙ্গবন্ধু স্কলারশিপ আন্তর্জাতিক অঙ্গণে বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রতিচ্ছবি  » «   লীলা নাগের স্মৃতি রক্ষায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উদ্যোগ নেবে  » «   ফুসফুস-ক্যান্সার পরীক্ষার জন্য মাইল এন্ড লেজার সেন্টারে স্থাপন করা হচ্ছে বিশেষ ‘স্ক্রিনিং মেশিন’  » «   অলি-মিঠু-টিপু প্যানেলের পরিচিতি ও ইশতেহার ঘোষণা  » «   ২০ নভেম্বর লন্ডনের রয়েল রিজেন্সিতে ৫ম বেঙ্গলী ওয়েডিং ফেয়ার  » «   একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির যুক্তরাজ্য শাখা গঠিত  » «   টি আলী স্যার ফাউন্ডেশন সম্মাননা পেলেন সিলেটের ২৪গুণী শিক্ষক  » «   নওয়াগ্রাম প্রগতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ফুল, ফল ও ঔষধি বৃক্ষরোপণ  » «   আলোকিত মানুষ শিক্ষক মো. সমছুল ইসলাম এর ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী  » «   সিলেটের বিয়ানীবাজারে একটি পরিত্যক্ত কূপে তাজা গ্যাসের মজুদ আবিষ্কৃত  » «   বাংলাদেশী কারী  ব্রিটেনের প্রবৃত্তি ও খাবার সংস্কৃতিতে অনন্য  অবদান রাখছে  » «   পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় নারীবাদের প্রতিবন্ধকতা  » «   রিষি সুনাক এশিয়ান বংশদ্ভোত, কনজারভেটিভ এবং ধনীদের বন্ধু  » «   গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাব নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারীদের ব্যাপারে সতর্ক থাকার আহবান  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


৩৮তম বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারে রেকর্ড গড়লেন রব্বানী-তৃপ্তি দম্পত্তি



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

৩৮তম বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারের ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে গতকাল মঙ্গলবার ৩০জুন।এতে মেধা তালিকায় ১ম ও অষ্টম স্থান অধিকার করে অনন্য রেকর্ড গড়লেন ঢাবির দুই সাবেক শিক্ষার্থী রব্বানী-তৃপ্তি দম্পতি।

প্রথম হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শেখ মোস্তাক রাব্বানী। একই ক্যাডারে অস্টম স্থান অধিকার করেছেন তার স্ত্রী একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী নয়ন তারা তৃপ্তি। তারা দু’জনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ২০১০-১১ সেশনের শিক্ষার্থী। অনুপ্রেরণার গল্পে গতকাল মঙ্গলবার সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন এই ভাগ্যবান দম্পতি।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার বিকেলে ৩৮তম বিসিএস পরীক্ষার চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। এতে ২ হাজার ২০৪ জন প্রার্থীকে ক্যাডার পদের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। এছাড়া নন-ক্যাডারে আরও ৬ হাজার ১৭৩ জন প্রার্থী উত্তীর্ণ হয়েছে।

জানা গেছে, মোস্তাকের বাড়ি ফরিদপুর সদর উপজেলায়। আর নয়ন তারার পাবনার ভাঙুড়া উপজেলায়। শেখ মোস্তাক রাব্বানী সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, বিসিএসে উত্তীর্ণ হওয়ার অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করার মতো না। তার চলার পথের সঙ্গী হয়েছেন তার স্ত্রীও। সত্যিই এটা অন্যরকম অনুভূতি। তিন-চার বছর টানা পরিশ্রমের পর এমন ফলাফল পেয়ে খুব ভাল লাগছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, এই অর্জন সম্পূর্ণ আমাদের বোঝাপড়ার জন্য হয়েছে। আমরা পড়ালেখার ক্ষেত্রে সব সময় একে অপরকে সহযোগিতা করেছি। আমরা সাংসারিক কাজেও যেমন পরস্পরকে সহযোগিতা করেছি, ঠিক তেমনি লেখাপড়ার ক্ষেত্রেও করেছি। আমরা একে অপরকে পড়া দিতাম। সেগুলো আবার ধরতামও। এর মাধ্যমে কোথায় কি ভুল হচ্ছে সেটি ধরে সংশোধন করে নিতাম। দেশের শিক্ষায় কিছুটা হলেও অবদান রাখতে চান শেখ মোস্তাক রব্বানী।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন