শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
কেসি সলিসিটর্সের দশক পূর্তি উদযাপন  » «   বঙ্গবন্ধু স্কলারশিপ আন্তর্জাতিক অঙ্গণে বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রতিচ্ছবি  » «   লীলা নাগের স্মৃতি রক্ষায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উদ্যোগ নেবে  » «   ফুসফুস-ক্যান্সার পরীক্ষার জন্য মাইল এন্ড লেজার সেন্টারে স্থাপন করা হচ্ছে বিশেষ ‘স্ক্রিনিং মেশিন’  » «   অলি-মিঠু-টিপু প্যানেলের পরিচিতি ও ইশতেহার ঘোষণা  » «   ২০ নভেম্বর লন্ডনের রয়েল রিজেন্সিতে ৫ম বেঙ্গলী ওয়েডিং ফেয়ার  » «   একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির যুক্তরাজ্য শাখা গঠিত  » «   টি আলী স্যার ফাউন্ডেশন সম্মাননা পেলেন সিলেটের ২৪গুণী শিক্ষক  » «   নওয়াগ্রাম প্রগতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ফুল, ফল ও ঔষধি বৃক্ষরোপণ  » «   আলোকিত মানুষ শিক্ষক মো. সমছুল ইসলাম এর ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী  » «   সিলেটের বিয়ানীবাজারে একটি পরিত্যক্ত কূপে তাজা গ্যাসের মজুদ আবিষ্কৃত  » «   বাংলাদেশী কারী  ব্রিটেনের প্রবৃত্তি ও খাবার সংস্কৃতিতে অনন্য  অবদান রাখছে  » «   পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় নারীবাদের প্রতিবন্ধকতা  » «   রিষি সুনাক এশিয়ান বংশদ্ভোত, কনজারভেটিভ এবং ধনীদের বন্ধু  » «   গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাব নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারীদের ব্যাপারে সতর্ক থাকার আহবান  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


বাংলাদেশীদের অংশগ্রহনে কেঁপে উঠেছে গ্রিসের রাজপথ



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

শনিবার (২০ জুন) অমোনিয়া স্কয়ারে ছাত্র ইউনিয়ন, ট্রেড ইউনিয়ন ও বিভিন্ন রিফিউজি সংগঠন এর উদ্যোগে অভিবাসীদের বৈধকরণ সহ সকল সুবিধা আদায়ের দাবীতে এক বিশাল আন্দোলনে কেঁপে উঠেছে গ্রীস।

অভিবাসী ও শরনার্থীদের উচ্ছেদ,বাসস্থান ব্যবস্থা,গ্রীক সরকারের সাম্প্রতিক প্রশ্নবিদ্ধ আইন,এস্যাইলাম আইন শিথিলকরণ,সীমান্ত সমাধান এবং বৈধতার দাবীতে এই আন্দোলনে স্থানীয় গ্রীক জনগণ এবং বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশের অভিবাসীদের ঢ্ল নামে এই বিক্ষোভে।গ্রীক সময় দুপুর ২টা থেকে শুরু হওয়া এ বিক্ষোভ সংসদ ভবন সিনটাগমা পর্যন্ত গিয়ে থামে।

বিভিন্ন রিফিউজি সংগঠন দ্বারা নিয়ন্ত্রিত এই আন্দোলনে বিভিন্ন দেশের অভিবাসীদের দেখা গেলেও, বাংলাদেশি অভিবাসীদের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত। হাজারো বাংলাদেশিকে দেখা গেছে সম্মিলিতভাবে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন এতে।

গ্রীসের ইতিহাসের এরকম আন্দোলন খুব বেশি দেখা না গেলেও সাম্প্রতিক গ্রীক সরকারের শরনার্থী ও অভিবাসীদের বিপক্ষে প্রশ্নবিদ্ধ আইনকরণ,এস্যাইলাম কঠোরতা,সীমান্ত বন্ধ এবং শরনার্থী শিবির থেকে উচ্ছেদকরণের ফলে প্রতিনিয়ত আন্দোলন হচ্ছে এবং আগামীতে আন্দোলনের প্রস্তুতি চলছে।

‘গ্রীস কেরফা’ একটি রাজনৈতিক সংগঠন। যদিও রাজনৈতিক সংগঠন তবে অনেকেই মনে করেন, সাংগঠনিক ভিত্তি বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন গ্রিসের মতও নয়। এদিকে বিশার এই বিক্ষোভের কিঙবা আন্দোলনের পেছনে অন্য কোন শক্তি কাজ করছে কি-না, তা দেশটির কেউ কেউ মনে করছে।সেজন্য তা খতিয়ে দেখতে মাঠে নেমেছে গোয়েন্দা সংস্থা।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন