বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
কারী ইন্ড্রাস্টির সংকট মোকাবেলায় দরকার সমন্বিত উদ্যোগ  » «   বিবিসি প্রকাশ করেছে উইঘুর নির্যাতন নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য  » «   মাদ্রিদে বাংলাদেশ দূতাবাসে বাংলা নববর্ষ উদযাপন  » «   মাঙ্কিপক্স সংক্রমণ আরও ২ দেশে: বেলজিয়ামে ২১ দিনের কোয়ারেন্টিন ঘোষণা  » «   শুধুই নারীদের পরিচালনায় প্রথম সৌদি আরবের আকাশে উড়ল ব্যতিক্রমী ফ্লাইট  » «   গোলাপগন্জে চেয়ারম্যান প্রার্থী এলিম চৌধুরী’র মতবিনিময়  » «   দুদকের মামলায় হাজী সেলিম কারাগারে  » «   নিষেধাজ্ঞার মধ্যেও রাশিয়ার মুদ্রা রুবল’র উত্থান  » «   কারী শিল্পের সংকট মোকাবেলায় সিবিআই প্রেসিডেন্টের কাছে  বিসিএ’র পাঁচ দাবী উপস্থাপন  » «   গোলাপগঞ্জে ভোটার হাল নাগাদ শুরু  » «   বার্সেলোনায় মাদারীপুর সমিতির ঈদ পুনর্মিলনী  » «   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বের প্রশংসায় স্পেনের প্রেসিডেন্ট  » «   আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরীর চিরবিদায়  » «   ইতালির জেনোভায়‌ প্রবাসীদের কনস্যুলেট সেবা প্রদান  » «   বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে‘র দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা ও সম্মেলন অনুষ্ঠিত  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন

করোনায় আক্রান্তের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে গেছে বাংলাদেশ



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

একদিনে আরও ২ হাজার ৮৫৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ায় আক্রান্তের বৈশ্বিক তালিকায় নতুন এই ভাইরাসের উৎপত্তি দেশ চীনকে ছাড়িয়ে গেছে বাংলাদেশ। চীন থেকে ১ হাজার ৩০৪ জন বেশি আক্রান্ত নিয়ে তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন আঠারোতম। তাতে ঊনিশতমস্থানে নেমে গেছে করোনাভাইরাসের আতুড়ঘর দেশটি।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী, শনিবার সকাল আটটা পর্যন্ত দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৪ হাজার ৩৭৯ জন। আন্তর্জাতিক তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষক প্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, এই সময়ে চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৮৩ হাজার ৭৫ জন।

করোনা নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট-আইইডিসিআরের উপাত্তে দেখা যাচ্ছে, সাধারণ ছুটি উঠিয়ে নেওয়া এবং যানবাহন চলাচলের অনুমতি দেওয়ার পর থেকেই দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বাড়ছে বেশি।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৪০ হাজার ছাড়ায় গত ২৮ মে। পরের দশ হাজার রোগী শনাক্ত হতে সময় লাগে মাত্র চার দিন। অর্থাৎ ২ জুন দেশে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৫০ হাজার পেরিয়ে যায়।

আরও ১০ হাজার রোগী যোগ হয় ৫ জুনের মধ্যে; এদিন দেশে কভিড-১৯ রোগী ছিল ৬০ হাজার ৩৯১ জন। পরের চার দিনে যুক্ত হয় ১১ হাজারের বেশি রোগী। অর্থাৎ ৯ জুন দেশে করোনা আক্রান্ত দাঁড়ায় ৭১ হাজার ৬৭৫ জনে। সবশেষ চার দিনে যুক্ত হলো আরও ১২ হাজার ৭০০ রোগী।

দেশে ৮৪ হাজার আক্রান্তদের মধ্যে অবশ্য সুস্থ হয়েছেন ১৭ হাজার ৮২৩ জন।

দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়ছে লাফিয়ে। গত ২০ এপ্রিল কভিড-১৯ এ মৃত্যুর সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়েছিল। সেই জায়গা থেকে মৃত্যুর সংখ্যা ৫০১ জনে দাঁড়ায় ২৫ মে। সময় লাগে এক মাস পাঁচ দিন।

মৃত্যুর পরের ৫০০ হয় আরও দ্রুত গতিতে। মাত্র ষোলো দিনে নতুন ৫১১ মৃত্যু নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা হাজার ছাড়ায় ১০ জুন। এক হাজার ১২ জন থেকে সংখ্যাটি ১,১৩৯ জনে দাঁড়াল মাত্র তিন দিনে।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষ দিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়। অল্প সময়েই প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি বিশ্বজুড়ে মহাকারি আকার ধারণ করে। এর মধ্যে বিশ্বজুড়ে এই ভাইরাস কেড়ে নিয়েছে ৪ লাখ ২৫ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণ। আর আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৭৫ লাখ।

বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম রোগীর খোঁজ মেলে; এর দশ দিনের মাথায় ঘটে প্রথম মৃত্যু।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন