সোমবার, ১৩ জুলাই ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২৯ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
 ক্রিকেট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন বড়লেখা উপজেলা শাখার নতুন কমিটি গঠিত  » «   হায়া সোফিয়া মসজিদ হবেই, কোনও চাপে নড়বেন না এরদোয়ান  » «   বিদেশে গমনকারী সকল বাংলাদেশিকে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে যেতে হবে  » «   দুবাইতে অনলাইনে পাওয়া যাবে কোরবানির পশু  » «   ১৫ জুলাই থেকে শারজাহ মিউনিসিপলিটির ভার্চুয়াল সেবা শুরু  » «   দুবাই থেকে পালিয়ে গিয়ে গ্রেপ্তার চট্টগ্রামের আজম খান  » «   সাবরিনাকে জিজ্ঞাসাবাদ: চেয়ারম্যান পদ অস্বীকার, দাম্পত্যে ফাটল  » «   বড়লেখায়  ইয়াং স্টার এসোসিয়েশনের লাইটিং কর্মসূচি  » «   হোয়াইচ্যাপেলে তিন তরুণের  উদ্যোগে  ফামোস ক্যাফে‘র যাত্রা  » «   করোনা নেগেটিভ সনদ এবং ভিনদেশে বাংলাদেশ  » «   সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভিসা পরিষেবাগুলিতে ফি ও জরিমানা পুনরায় সক্রিয় হচ্ছে  » «   ইতালির প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য কয়েকটি বাংলাদেশি গণমাধ্যমে ভুলভাবে প্রকাশিত হয়েছে  » «   বড়লেখায় কিন্ডারগার্টেন স্কুলে ভবিষৎ পরিকল্পনা শীর্ষক সভা অনুষ্ঠিত  » «   বন্যায় ভাসছে সিলেট শহর  » «   গ্রীস প্রবাসীর একমাত্র সন্তান অপহরণের পর ফেরিঘাট হতে উদ্ধার  » «  

পরিবহন কল্যাণ তহবিলের টাকা নিয়ে সিলেটে শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষ, ভাঙচুর



শ্রমিকদের কল্যাণ তহবিলের টাকা নিয়ে বিরোধের জের ধরে সিলেটের কদমতলী কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে পরিবহন শ্রমিকদের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ চলছে। মঙ্গলবার বিকেলে এ সংঘর্ষ শুরু হয়।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ফেডারেশনের সহ সভাপতি ও সিলেট সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সেলিম আহমদ ফলিকের কল্যান বিরুদ্ধে তহবিলের দুই কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে শ্রমিকদের একটি পক্ষ মঙ্গলবার সকাল থেকে বিক্ষোভ করে আসছিলো।

বিকেলে বাস টার্মিনাল এলাকায় সেলিম সমর্থিত পক্ষের সাথে বিরোধী সংঘাতে জড়িয়ে পড়ে। দুইপক্ষই লাঠিসোটা নিয়ে একে অপরকে আক্রমন ও ভাংচুর করে। এসময় শ্রমিকদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়া হয় বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, বিকেলে আন্দোলনকারী শ্রমিকরা বাস টার্মিনাল এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করছিলেন। মিছিল থেকে বাস টার্মিনাল এলাকায় অবস্থিত এনা পরিবহনের কাউন্টারের দ্বিতীয় তলায় অবস্থিত ফলিকের অফিস লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়তে থাকেন কয়েকজন। এরপর সংষর্ঘে জড়িয়ে পড়েন দুইপক্ষ।

আন্দোলনকারী শ্রমিকদের অভিযোগ, ফলিকের অফিস থেকে তার ছেলে শ্রমিকদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়েন।

সংঘর্ষে উভয়পক্ষের কয়েকজন শ্রমিক আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া বেশকয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে।সংঘর্ষের খবর পেয়ে দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশ ও পরিবহন মালিক সমিতির সহ-সভাপতি আবুল কালাম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করছে।

দক্ষিণ সুরমা থানার ওসি খাইরুল ফজল বলেন, সংঘর্ষ এখনও চলছে। আমরা পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করছি।  এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সংঘর্ষ চলছিলো।