শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
জীবন যেখানে দ্রোহের প্রতিশব্দ মৃত্যু সেখানেই শেষ কথা নয়..  » «   শিল্প উদ্যোক্তা ও ক্রীড়া সংগঠক মো: জিল্লুর রাহমানকে  লন্ডনে সংবর্ধনা  » «   ঈদের সামাজিক গুরুত্ব ও বিলাতে ঈদের ছুটি   » «   ব্রিটেনে ঈদের ছুটি  প্রসঙ্গে  » «   হজের খুতবা বঙ্গানুবাদ করবেন মাওলানা শোয়াইব রশীদ ও মাওলানা খলিলুর রহমান  » «   হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু, তাবুর শহর মিনায় হাজিরা  » «   ঈদের ছুটি : আমাদের কমিউনিটিতে সবার আগে শুরু হোক  » «   ঈদের দিনে বিলেত প্রবাসীদের মনোবেদনা  » «   বিলেতে ঈদ উৎসব এবং বাঙ্গালী কমিউনিটির অন্তর্জ্বালা  » «   জলঢুপে বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমান কেম্প  » «   তিলপাড়ায় বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «   করিমগঞ্জ দিবস  » «   ঈদের ছুটি চাই : একটি সমন্বিত উদ্যোগ অগণিত পরিবারে হাসি ফুটাতে পারে  » «   ট্রাক ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেল তিন বন্ধুর  » «   বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের বিনামূল্যে ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


ইতালিতে লক ডাউনের শীতলতার মধ্যে খোলা মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

লক ডাউনের মধ্যেই ইতালিতে ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে। প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে রাজধানী রোমের পিয়াচ্ছা ভিত্তোরিওতে “জাতীয় ঈদগাহ ময়দান”খ্যাত মাঠে সামাজিক দূরত্ব মেনে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এখানে ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবদুস সোবহান সিকদারসহ রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের শীর্ষ নেতারা ঈদের নামাজ আদায় করেন। রাষ্ট্রদূত বলেন, আমরা বিশ্বাস করতে চাই একদিন এ পৃথিবী হবে করোনা মুক্ত এখানে জাতীয় ঈদ উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক যে আব্দুর রাজ্জাক, সদস্য সচিব আব্দুর রব ফকির, ইতালী আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মাহাতাব হোসেন, কে এম লোকমান হোসেন, বাংলাদেশ সমিতি ইতালির সভাপতি আফতাব ব্যাপারে, ঢালী নাসির উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন রনিসহ সমাজের শীর্ষ নেতারা ঈদের নামাজ আদায় করেন ‌।

প্রতিবছর ইতালির বিভিন্ন স্থানে কমপক্ষে ৫০ টি খোলা মাঠে ঈদের নামাজ আদায় করা হয়। করোনা ভাইরাসের কারণে এবার রাজধানী রোমে ৭টিসহ খুব কম সংখ্যক স্থানে খোলা মাঠে ঈদের নামাজের অনুমোদন পাওয়া গেছে। রাজধানী রোমের জাতীয় ঈদগাহ মাঠে ৮টা জামাত অনুষ্ঠিত হয়। বিভিন্ন মসজিদের ইমামগণ এখানে ইমামতি করেন।

করোনা ভাইরাসে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত উত্তরাঞ্চলীয় শহর মিলানোতে খোলা মাঠে ঈদের নামাজের সুযোগ দেয়া হয়নি প্রশাসন। তবে মসজিদগুলোতে সাতটি করে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রবাসী বাংলাদেশিরা ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করার চেষ্টা করলেও করোনা ভাইরাসের কারণে ছিলেন হতাশ এবং কিছুটা আতঙ্কিত। প্রতিটি ঈদের নামাজে সাদা পোশাকের পুলিশ উপস্থিত থাকে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশিরা জড়ো হলেই তাদেরকে আলাদা করতে দেখা যায়। বাংলাদেশ ছাড়াও অন্যান্য দেশের মুসল্লিরাও অংশগ্রহণ করেন এই জামাতগুলোতে।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন