শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
জীবন যেখানে দ্রোহের প্রতিশব্দ মৃত্যু সেখানেই শেষ কথা নয়..  » «   শিল্প উদ্যোক্তা ও ক্রীড়া সংগঠক মো: জিল্লুর রাহমানকে  লন্ডনে সংবর্ধনা  » «   ঈদের সামাজিক গুরুত্ব ও বিলাতে ঈদের ছুটি   » «   ব্রিটেনে ঈদের ছুটি  প্রসঙ্গে  » «   হজের খুতবা বঙ্গানুবাদ করবেন মাওলানা শোয়াইব রশীদ ও মাওলানা খলিলুর রহমান  » «   হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু, তাবুর শহর মিনায় হাজিরা  » «   ঈদের ছুটি : আমাদের কমিউনিটিতে সবার আগে শুরু হোক  » «   ঈদের দিনে বিলেত প্রবাসীদের মনোবেদনা  » «   বিলেতে ঈদ উৎসব এবং বাঙ্গালী কমিউনিটির অন্তর্জ্বালা  » «   জলঢুপে বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমান কেম্প  » «   তিলপাড়ায় বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «   করিমগঞ্জ দিবস  » «   ঈদের ছুটি চাই : একটি সমন্বিত উদ্যোগ অগণিত পরিবারে হাসি ফুটাতে পারে  » «   ট্রাক ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেল তিন বন্ধুর  » «   বিয়ানীবাজার ক্যান্সার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের বিনামূল্যে ভ্রাম্যমাণ মেডিকেল ক্যাম্প  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


ফ্রান্সে পানিতে করোনাভাইরাসের অস্তিত্বঃ আতঙ্কে প্রবাসী বাংলাদেশীরা



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে পানিতে মিলেছে ক্ষুদ্র পরিমানে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব ।  গত সোমবার(২১ এপ্রিল) এমন তথ্য জানিয়েছে প্যারিস সিটি কর্পোরেশন ।  তবে প্যারিসে সরবরাহকৃত খাবার পানিতে নয় ।প্যারিসের পানি বিতরন কর্তৃপক্ষ এই পানি সেইন নদী থেকে উত্তোলন করে ।যা বিভিন্ন পার্ক, ফোয়ারা, বাগান ও রাস্তা পরিস্কার করার কাজে সিটি কর্পোরেশন  ব্যবহার করে।প্যারিসের ২৭টি স্থান থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়।তার মধ্যে ৪টিতে কভিড-১৯ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়া হয়ে এই পানির লাইন গুলি ।

প্যারিসের পানি বিতরন কর্তৃপক্ষ বলছে, খাবার পানির সাথে এটির কোনও সম্পর্ক নেই।খাবার পানির পাইপলাইন আর বিভিন্ন কাজে ব্যবহারকৃত পানি লাইন সম্পূর্ণ আলাদা ।এতে সাধারণ মানুষের আশঙ্কার কোনও কারণ নেই।তবে কীভাবে এই পানিতে করোনাযুক্ত হলো আর কিভাবে পানিকে নিরাপদ ও বিশুদ্ধ করা যায়  সে বিষয়ে  বিশেষজ্ঞরা কাজ করছেন ।

প্যারিসের এই সেইন নদীতে এই করোনাভাইরাস অস্তিত্ব পাওয়াতে প্রবাসীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।বিশেষত তার তাদের স্বজনদের নিয়ে শংকিত । অনেক প্রবাসীরা বলেন যে এদেশে যদি পানিতে করোনাভাইরাস এভাবে ছড়িয়ে পড়তে পারে তাহলে বাংলাদেশেও এ আশংকা থেকে যেতে পারে। কারন বাংলাদেশের কোটি কোটি মানুস এখনও পুকুর কিংবা নদীর পানি গোসল কিংবা পরিচ্ছন্নতার জন্য ব্যবহার করে থাকেন। সেজন্য বাংলাদেশও এব্যাপারে সতর্কতা অবলম্বন করা উচিৎ বলে মনে করছেন ফ্রান্স প্রবাসীরা।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন