মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
ইতালি : জীবন যেখানে থেমে আছে  » «   কুয়েতে মোট ২৮৯ জন করোনা আক্রান্ত তাদের ৫ জন বাংলাদেশি  » «   স্পেনে দ্রুত বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা  » «   আমিরাতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫৩ জন আক্রান্ত, ১ জনের মৃত্যু  » «   তবুও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখুন  » «   আমিরাতের রেসিডেন্স ভিসা ১ মার্চ যাদের শেষ হয়েছে জরিমানা ছাড়াই ৩ মাসের মধ্যে নবায়নের সুযোগ  » «   ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের অসমসহ পাঁচটি রাজ্য এখনও করোনামুক্ত  » «   ইতালি-স্পেনে করোনায় মৃত্যু: ফ্রান্স প্রবাসীরা আতঙ্কিত  » «   করোনার মহাবিপর্যয়ে বিয়ানীবাজারে সিপিবি’র কন্ট্রোল টিম গঠন  » «   করোনায় লকডাউন সময়ে দুস্থদের পাশে মানবিক সংগঠন পারি  » «   স্পেনে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভা্ইরাসে মৃত্যু হয়েছে ৮৩৮ জনের  » «   কুয়েতে সরকারের ঘোষিত সাধারণ ক্ষমা ১ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিল  » «   গত ২৪ ঘণ্টায় সৌদিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৫৪জন  » «   ব্রিটেনে করোনা রোগিদের জন্য  চার হাজার বেডের হাসপাতাল  » «   করোনায় উপেক্ষিত প্রবাসী ও নিম্নবিত্তের মানুষগুলো  » «  

রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে কাতালোনিয়ার ৯ নেতার কারাদণ্ডাদেশ

কাতালোনিয়া অবরুদ্ধ, ১৬ অক্টোবর থেকে ৭২ঘন্টা হরতাল-অবরোধ



 

রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতাকামী ৯ নেতাকে কারাদণ্ড দিয়েছে স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট।
কাতালোনীয়া রাজ্যের বিভিন্ন  গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা সহ বার্সেলোনা এয়ারপোর্ট যাতায়াত সহ বাস,মেট্রো যোগাযোগ ব্যাবস্থা অবরোধ্য করে রাখেন স্বাধীনতাকামী কাতালানরা।

১৩ ও ১৪ অক্টোবর সারা দিন বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা সহ বিমান বন্দর অবরোধ্য ছিল। আগামীকাল ১৬ অক্টোবর থেকে পরবর্তী ৭২ ঘন্টা নতুন করে হরতাল অবরোধ চালিয়ে যাবার ঘোষনা দিয়েছে কাতালানরা।

২০১৭ সালে অঞ্চলটির স্বাধীনতার দাবিতে আন্দোলনের সময় ‘ভূমিকা রাখার‘ জন্য তাদের এ সাজা দেওয়া হয়েছে। আদেশে তাদের ৯ থেকে ১৩ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

মামলায় জাতীয় সরকারের প্রতি আনুগত্য অস্বীকারের অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় অন্য তিন আসামিকে শুধু জরিমানা করা হয়েছে। তবে নিজেদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন দণ্ডপ্রাপ্ত ১২ নেতা ও অধিকারকর্মী।

স্বাধীনতা প্রশ্নে গণভোটের পর গত বছরের অক্টোবরে স্পেন থেকে কাতালোনিয়ার স্বাধীনতা ঘোষণা করে পুজদেমনের নেতৃত্বাধীন স্বাধীনতাকামীরা।
এরপর স্পেনের জাতীয় সরকার -কাতালোনিয়া সরকার ভেঙে দিয়ে পুজদেমনকে বরখাস্ত করে। রাজনৈতিক আশ্রয় নিয়ে বিদেশে পালিয়ে যান পুজদেমন। তিনি এখন জার্মানিতে অবস্থান করছেন। সে সময় স্বাধীনতাকামীদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলা দায়ের করে স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকার। তারপরও স্বাধীনতার দাবিতে বিভিন্ন সময় বিক্ষোভ-আন্দোলন করে আসছে স্বাধীনতাকামীরা।

রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় কাতালোনিয়ার সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ও স্বাধীনতাকামী নেতা ওরিওল জানকুয়েরাসের ২৫ বছরের কারাদণ্ড চেয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ। শুনানি শেষে রাষ্ট্রদ্রোহ ও সরকারি তহবিলের অর্থ অপব্যবহারের অভিযোগে তাকে ১৩ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত।
অন্য ৮ আসামিকে সর্বোচ্চ ৯ বছরসহ বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয় স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট। দেশটির জাতীয় সরকারের বিরুদ্ধে বিদ্রোহের অভিযোগে তাদের ওই সাজা দেওয়া হয়।

স্বাধীনতাকামীদের কারাদণ্ডাদেশের পর কাতালনের রাজধানী বার্সেলোনার রাস্তায় বিক্ষোভ করেছে স্বাধীনতাকামীরা। এ সময় তারা ‘রাজনৈতিক কারাবন্দিদের মুক্তি দিন’ ব্যানার প্রদর্শন করে সবাইকে রাস্তায় নামার আহ্বান জানায়।
এই ১২ কাতালান নেতার বেশিরভাগই বিগত সময়ে রাজ্য সরকার ও পার্লামেন্টের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। এদের মধ্যে প্রভাবশালী অধিকারকর্মী ও আইনজীবী রয়েছেন।

রায় ঘোষণার আগে গত ১২ জুন যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য ১২ আসামির প্রত্যককে তাদের বক্তব্য পেশ করার জন্য ১৫ মিনিট করে সময় দেন আদালত। সে সময় তারা মাদ্রিদের আদালতকে জানান, তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

 

কণ্ঠ: তিশা সেন