সোমবার, ২৭ জুন ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
যুক্তরাজ্যে ঈদের ছুটির দাবীতে  আলতাব আলী পার্কে সমাবেশ অনুষ্ঠিত  » «   পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে স্পেনে দূতাবাসের বিশেষ আয়োজন  » «   পদ্মা সেতুর স্মারক নোট বাজারে আসবে রবিবার  » «   পদ্মা সেতুর জন্য অভিনন্দন বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধির  » «   অদম্য বাংলাদেশ, খুলল পদ্মার দ্বার  » «   আছে শুধু ভালোবাসা, দিয়ে গেলাম তাই: প্রধানমন্ত্রী  » «   রেমিটেন্স প্রেরণে উদ্বুদ্ধকরণে মাদ্রিদে মতবিনিময় সভা’ অনুষ্ঠিত  » «   বিশ্বনাথে মায়ের কোল থেকে ভেসে গেল শিশু, ৫ জনের মৃত্যু  » «   লন্ডনে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র ইউকের বিশ বছরপূর্তি উদযাপন  » «   মধ্যপ্রাচ্যের প্রতিবাদ এবং সাধারণ জনগণ  » «   স্পেনে ঢাকা ফ্রুতাস (Frutas) এর ১৬ বছর পূর্তি উৎসব অনুষ্ঠিত  » «   সিলেটে বন্যা : বৃষ্টি হয়েছে নদ-নদীর পানি কমেছে  » «   সিলেটে রানওয়েতে বন্যার পানি, বন্ধ বিমানের ফ্লাইট  » «   যুক্তরাজ্যে ঈদে ছুটির দাবীতে আলতাব আলী পার্কে সমাবেশ ২২শে জুন  » «   বিয়ানীবাজারে বিদ্রোহী প্রার্থী ও গোলাপগন্জে নৌকা বিজয়ী  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন


 লন্ডনে ছান্দসিকের আন্তর্জাতিক আবৃত্তি উৎসব



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

 

 

বহুভাষা ও সংস্কৃতির লন্ডনে বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতির আলোজাগানিয়া পথে  আরেকটি সাফল্যের পালক যুক্ত করলো আবৃত্তি সংগঠন ছান্দসিক। “ছন্দপ্রভা ছড়িয়ে পড়ুক বিশ্বপ্রাণে -শ্লোগানে ছান্দসিক  প্রথমবারে মতো আয়োজন করে আন্তর্জাতিক আবৃত্তি উৎসব। ১ সেপ্টেম্বর রবিবার পূর্ব লন্ডনের ব্রাডি আর্ট সেন্টারে প্রথমবারে মতো আয়োজিত অনুষ্ঠানে ছিল বাঙালি এবং বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের  উজ্জ্বল উপস্থাপনা।

উৎসবে বাংলাদেশ থেকে আমন্ত্রিত অতিথি হয়ে এসেছেন বাংলাদেশ আবৃত্তি  সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আহকাম উল্লাহ,। কলকাতা থেকে এসেছেন  বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় দুই  গুনী আবৃত্তি শিল্পী সাধারণ সম্পাদক সুজাতা চৌধুরী। আমেরিকা থেকে যোগ দিয়েছেন  নজরুল কবীর।

পুরো অনুষ্ঠানের প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় ছিলেন ব্রিটেনের জনপ্রিয় আবৃত্তিশিল্পী ও উপস্থাপক রেজুয়ান মারুফ। উৎসবের আয়োজক ও ছান্দসিকের প্রতিষ্ঠাতা মুনিরা পারভিন  উৎসবে যোগদেয়া অতিথিসহ সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আবৃত্তিশিল্পের এই উদ্যোগে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

বাংলা কবিতায় প্রকাশ পেয়েছে বাঙালির বিশ্বজনীন পরিচয়।  উৎসবে আবৃত্তি শিল্পীদের কন্ঠে হলভর্তি দর্শক  বাঙালির  ভালোলাগার মৌলিক বন্ধন পদ্মা-গঙার সাথে টেমস এর হার্দিক মিলন খুজে পেয়েছে।

বিশিষ্ট আবৃত্তিকার উদয় শংকর দাশ কে প্রদান করা হয়েছে  ছান্দসিক সম্মাননা ২০১৯। উদয় শংকর দাস আশির দশক থেকে বিলেতে আবৃত্তি , নাটকসহ সাহিত্য ও সংস্কৃতির নানা শাখায় একজন নিবেদিত প্রাণ হিসাবে কাজ করছেন।

অনুষ্ঠানে, কবিতায় ও ছন্দ বিভায় আলোছড়িয়েছে – বাঙালির বোধের নানা দিক।  ফুটে উঠেছে  বাংলার বহমান  রুপ রস ও গুনের নানা উপকরণ।

কলকাতা থেকে আগত অতিথি, বিশিষ্ট আবৃত্তিশিল্পী  সুজাতা চৌধুরী হলভর্তি দর্শকের বোধে ধাক্কা দিয়েছেন-  মানুষ আর মানবিকতার আলো-অন্ধকারের নানা বিষয় নিয়ে।  নিজের লেখা কবিতাসহ দর্শকের মনন ও মগজ জাগিয়ে গেছেন টানা বিশ মিনিটের একক আবৃত্তিতে।

প্রেম মৃত্তিকা আর দ্রোহ ভালোবাসায় জনপ্রিয় আবৃত্তি শিল্পী  মুনমুন মুখার্জী শুধু মন জাগাননি। স্বরণ করে দিয়েছেন – বাঙালির সম্প্রীতি আর সাহসে  চিরকালীন জেগে থাকবার মতো আমাদের গোলা ভরা উচ্চারিত প্রাচুর্যের কথামালা…

চতুর্থত প্রজন্মের প্রতিনিধি শিশু শিল্পী তাজরিয়া রহমান, নাশিতা নূর আফরা খন্দকার আবৃত্তি দিয়ে শুরু হয় আবৃত্তি পর্বের মূল অনুষ্ঠান। পুরো অনুষ্ঠান জুড়ে আবৃত্তি করেন, উদয় শংকর দাশ, তানজীনা নূর ই সিদ্দিকী, সৈয়দ রুম্মান, সোমা দাশ, মিছবাহ জামাল, মহুয়া চৌধুরী, মঈনুল হোসেন মুকুল, সুস্মিতা সাবরিনা এনি, জেবতিক রাজীব, ডঃ আনোয়ারুল হক, কাজী রাহনুমা আক্তার,  হাসিনা আক্তার, ফকরুল আম্বিয়া, পপি শাহনাজ, রাজ দাশ, সোমাভা বিশ্বাস, বুলবুল হাসান, সাঈদা সায়মা আহমেদ, লুৎফুন নাহান বেবী, সতত সুপ্রিয় রায়, নজরুল ইসলাম অকিব, রওশন  সিমি, প্রিয় জ্যোতি বাবু, তাহেরা চৌধুরী লিপি, স্মৃতি আজাদ, ফয়জুল ইসলাম ফয়েজ নূর। শহীদুল ইসলাম  সাগর, উর্মি মাজহার, সমর সাহা, আরফুমান চৌধুরী, শতরূপা চৌধুরী, জিয়াউর রহমান সাকলাইন, রিজওয়ান মারুফ, মুনিরা পারভীন।  অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন রেজোয়ান মারুফ।

ছন্দপ্রভা ছড়িয়ে পড়ুক বিশ্বপ্রাণে- শ্লোগাণে উৎসব শেষ হলে রাত দশটায়। দর্শকরা  মনেরপুঠুলীতে কবিতা আর ছন্দের মুগ্ধতা নিয়েই যে বাড়ি ফিরেছেন – একথা হফল করে বলা যায়।

 

কণ্ঠ: সুমু মির্জা


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ওয়ালি মাহমুদ, সাহিত্য সম্পাদক

নব্বই দশকের কবি। পুরো নাম মোহাম্মদ ওয়ালিউর রহমান মাহমুদ। বাংলাদেশের সিলেট জেলার বিয়ানীবাজার থানাধীন জলঢুপ পাতন গ্রামের মতিউর রহমান মাহমুদ রোডের দেওয়ান ভিলা’য় ১লা আগস্ট, ১৯৭২ সালে জন্ম গ্রহণ করেন।

১৯৮৬ সালে দেয়াল পত্রিকার মাধ্যমে প্রথম লেখালেখির হাতে খড়ি। কাব্যের জগতে কখনো গদ্যের তীরে হাঁটতে হাঁটতে কুশিয়ারা, কখনোবা পদ্যের তীর ঘেঁষে সুনাই অথবা বিলেতের টেমস অবধি। নিয়মমাফিক বৃত্তের বাইরে স্বতন্ত্র অবস্থানের পুন:পুন: প্রচেষ্টায় মলাটবন্দী কাব্যের পঙক্তিমালার সযত্ন সৃষ্টি, কবিতাকে চিনিয়ে দেয় গভীরভাবে।

প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ ও গবেষণা এবং সম্পাদিত লিটলম্যাগ যথাক্রমে: ভালোবাসার পোয়াতি (কোলাজ, ১৯৯৯), যৈবতী শোন (কোলাজ, ১৯৯৯), একটি দীর্ঘশ্বাসের মৃত্যু, উঊঅঞঐ ঙঋ অ ঝওএঐ (উৎস, ২০০১), আমি এক উত্তরপুরুষ, ও অগ ঞঐঊ উঊঝঈঊঘউঅঘঞ (উৎস, ২০০২), নির্বাসনে, নির্বাচিত দ্রোহ (ম্যাগনাম ওপাস, ২০০৪), ১২৩৭ দাগ (এডিটর’স ইংল্যান্ড, ২০১৪); ডায়াস্পরা গবেষণা: দ্রোহী কথাসাহিত্যিক আব্দুর রউফ চৌধুরীর সাহিত্যসম্ভার (এডিটর’স ইংল্যান্ড, ২০১৩); সম্পাদিত লিটলম্যাগ: কবিয়াল (সম্পাদিত, ১৯৯২), শিকড় (সম্পাদিত, ১৯৯৪), ও ইংল্যাণ্ড এবং বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত লোকন লিটলম্যাগ সম্পাদনা করেন।
ই-মেইল: walimahmud@yahoo.co.uk