বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
কারী ইন্ড্রাস্টির সংকট মোকাবেলায় দরকার সমন্বিত উদ্যোগ  » «   বিবিসি প্রকাশ করেছে উইঘুর নির্যাতন নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য  » «   মাদ্রিদে বাংলাদেশ দূতাবাসে বাংলা নববর্ষ উদযাপন  » «   মাঙ্কিপক্স সংক্রমণ আরও ২ দেশে: বেলজিয়ামে ২১ দিনের কোয়ারেন্টিন ঘোষণা  » «   শুধুই নারীদের পরিচালনায় প্রথম সৌদি আরবের আকাশে উড়ল ব্যতিক্রমী ফ্লাইট  » «   গোলাপগন্জে চেয়ারম্যান প্রার্থী এলিম চৌধুরী’র মতবিনিময়  » «   দুদকের মামলায় হাজী সেলিম কারাগারে  » «   নিষেধাজ্ঞার মধ্যেও রাশিয়ার মুদ্রা রুবল’র উত্থান  » «   কারী শিল্পের সংকট মোকাবেলায় সিবিআই প্রেসিডেন্টের কাছে  বিসিএ’র পাঁচ দাবী উপস্থাপন  » «   গোলাপগঞ্জে ভোটার হাল নাগাদ শুরু  » «   বার্সেলোনায় মাদারীপুর সমিতির ঈদ পুনর্মিলনী  » «   প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বের প্রশংসায় স্পেনের প্রেসিডেন্ট  » «   আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরীর চিরবিদায়  » «   ইতালির জেনোভায়‌ প্রবাসীদের কনস্যুলেট সেবা প্রদান  » «   বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে‘র দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা ও সম্মেলন অনুষ্ঠিত  » «  
সাবস্ক্রাইব করুন
পেইজে লাইক দিন

ঐতিহাসিক রায়: ব্রিটেন এখন কোন পথে ?



সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

ব্রিটেনের সুপ্রিম কোর্ট বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের পার্লামেন্ট স্থগিতের ঘোষনা আইনসম্মত নয়।এটা বেআইনী।আদালত বলেছেন , এটা একটা ভুল সিদ্ধান্ত ছিল। পার্লামেন্ট স্থগিতের জন্য  প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ দেওয়ার সিদ্ধান্তটি বেআইনী ছিল বলে আদালতের রায়ে উল্লেখ করা হয়।

আদালতের এ রায়ের পর সংসদের স্পীকার জন বারকো ঘোষনা করেছেন, আগামীকাল বুধবার পার্লামেন্টে ফিরবেন এমপিরা। উল্লেখ্য,  প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন চলতি মাসের শুরুর দিকে পাঁচ সপ্তাহের জন্য সংসদ স্থগিতের সিদ্বান্তের ঘোষণা দিয়ে বলেছিলেন, এই সিদ্ধান্তের পক্ষে রানীর অনুমতি চেয়েছেন তিনি।

সুপ্রিম কোর্টের প্রেসিডেন্ট লেডি হ্যালে ব্রিটেনের জনগণের বহু প্রতিক্ষিত এ রায়ে বলেন, পার্লামেন্ট কার্যক্রম বন্ধ করার ঘোষনা গণতন্ত্রের মূলভিত্তির উপর ছিল বড় ধরনের আঘাত।সুপ্রিম কোর্টের এ রায়ের পর পার্লামেন্টের অনেক এমপি এখন বরিস জনসনের পদত্যাগ চাইছেন।বেথনালগ্রীণ-বো এলকার বাংলাদেশি বংশদ্ভোত এমপি রোশনারা আলী- এই আইনী লড়াইয়ে সমর্থনকারী হিসেবে এ রায়ে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন এক টুইটার বার্তায়।

সরকারের পক্ষ থেকে এ রায়ের বিরুদ্ধে যাবার কোন পথ খোলা নেই। তারা এ রায়ের প্রতি শ্রদ্ধাশীলই থাকবে। উল্লেখ করা যেতে পারে বরিস জনসনের পার্লামেন্ট সাসপেনশন ঠেকাতে আইনী লড়াইয়ে নেমেছিলেন ব্রিটেনের ব্যবসায়ি জেনী মীলার।


সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন