সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
 পরিচ্ছন্ন সিলেটের স্বপ্ন দেখছে প্রজেক্ট ‘ক্লীন সুরমা, গ্রীন সিলেট’  » «   বাংলাদেশের মুক্ত অর্থণেতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করবে আরব আমিরাত  » «   আজমানে স্কুল প্রতিষ্ঠার জন্য ব্যবসায়িদের সাথে কনসাল জেনারেলের মতবিনিময়  » «   ডাকসুর কোষাধ্যক্ষ অপসারন ও ৩৪ জনের ছাত্রত্ব বাতিলের দাবীতে ভিপি’র চিঠি  » «   কাতালোনীয়ার স্বাধীনতার ডাকে লক্ষ লক্ষ জনতার সমাবেশ  » «   সুনির্দিষ্ট অভিযোগে ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদককে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে: জয়  » «   সিলেটে বাম গণতান্ত্রিক জোটের জনসভা  » «   শীঘ্রই আমিরাতের আজমানে বাংলাদেশ স্কুল প্রতিষ্ঠা হচ্ছে  » «   সংহতি আমিরাতের শাহ আব্দুল করিম উৎসব  » «   লন্ডনে বিয়ানীবাজারের প্রবীন ব্যক্তিত্ব আবদুস সাত্তার স্মরণ সভা  » «   কৃুয়েত দূতাবাসের বিতর্কিত কর্মচারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা  » «   মাদকেরও অভিযোগ : প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শোভন-রাব্বানীর দেখা করার অনুমতি স্থগিত  » «   নেপাল-চীনেও ডেঙ্গু : বিভিন্ন দেশ ভ্রমণে সতর্ক করেছে যুক্তরাষ্ট্র  » «   বিসিএ রেষ্টুরেন্ট অফ দ্যা ইয়ার ও বিসিএ শেফ অফ দ্যা ইয়ার এর প্রতিযোগিতা আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু  » «   রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বসবাসের কোনো চিহ্নই নেই  » «  

‘সুনাম দেবনাথ কেন আসামি নাই’: আদালতে অভিযুক্তরা



বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় গ্রেফতারের পর কারাগারে থাকা ১৪ জন অভিযুক্তকে মঙ্গলবার আদালতে হাজির করে পুলিশ। মামলার দিন ধার্য থাকায় সকালে বরগুনার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. সিরাজুল ইসলাম গাজীর আদালতে তাদের হাজির করা হয়।

আদালতে হাজিরের জন্য একটি প্রিজন ভ্যানে করে বরগুনা জেলা কারাগার থেকে প্রথমে ১৩ পুরুষ অভিযুক্তকে আনা হয়। এরপর একই ভ্যানে করে রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে আদালতে হাজির করে পুলিশ।

১৩ পুরুষ অভিযুক্তকে বহন করা প্রিজন ভ্যানটি আদালত প্রাঙ্গণে সাংবাদিকদের কাছে আসা মাত্রই ভেতর থেকে এক অভিযুক্ত উচ্চস্বরে বলেন, ‘সুনাম দেবনাথ কিন্তু আমাদের লিডার।’

এরপর আদালতের কার্যক্রম শেষে এই অভিযুক্তদের আদালত থেকে প্রিজন ভ্যানে তোলার সময় আবার অভিযুক্তরা সাংবাদিকদের সামনে উচ্চস্বরে বলেন, ‘অন্যায় অবিচার হচ্ছে।’ এরপর পাশ থেকে কেউ একজন অভিযুক্তদের বলেন, ‘এই কথা কম কও।’

এরপর আবার অভিযুক্তরা উচ্চস্বরে বলেন, ‘যে করছে, তারে দেছে সাত নাম্বার। মিন্নি কেন সাত নাম্বার? সুনাম দেবনাথ কেন আসামি নাই। সুনাম দেবনাথ নির্দেশ দাতা, সে কেন আসামি নাই। বাদশাহ হত্যার কেন বিচার হয় নাই।’

সুনাম দেবনাথ বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর ছেলে ও জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক।

তবে রিফাত হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্তদের সুনাম দেবনাথকে নিয়ে এমন উচ্চস্বরে মন্তব্যের সমালোচনা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত থাকা অনেকে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন জাগো নিউজকে বলেন, দীর্ঘ তদন্ত শেষে চার্জশিট দাখিলের পর সুনাম দেবনাথকে নিয়ে এমন মন্তব্য অভিযুক্তদের ষড়যন্ত্র মাত্র। এসব অভিযুক্ত প্রত্যেকে এক বা একাধিকবার রিমান্ড শেষে আদালতে রিফাত হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, সুমন দেবনাথ যদি এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকতো তাহলে আসামিরা তাদের স্বীকারোক্তিতে সে কথা উল্লেখ করত। কিন্তু তারা তা করেনি। এটা দিয়েই প্রমাণিত হয় সুনাম দেবনাথের সম্মান ক্ষুণ্ন ও হয়রানি করতেই অভিযুক্তরা এমন মন্তব্য করেছে।

এ বিষয়ে সুনাম দেবনাথ বলেন, রিফাত হত্যাকাণ্ড এবং এ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের সঙ্গে আমার কোনো সম্পর্ক নেই। কখনো ছিলও না। আমি এ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

তিনি বলেন, এমন একটি আলোচিত হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্ত শেষে পুলিশ চার্জশিট দাখিল করেছে। হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত ও জড়িতদের স্বীকারোক্তি ও তদন্তে পাওয়া সঠিক তথ্য উপাত্ত দিয়েই পুলিশ চার্জশিট দাখিল করেছে। এমন একটি আলোচিত হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকলে কারোরই রেহাই পাওয়ার সুযোগ নেই। এ ঘটনায় জড়িত থাকলে আমিও রেহাই পেতাম না।

সুনাম দেবনাথ বলেন, সকল অভিযুক্তরাই রিমান্ড শেষে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। এ হত্যাকাণ্ডে আমি জড়িত না থাকায় স্বীকারোক্তিতে আমার নাম কেউ বলেনি। কিন্তু চার্জশিট দাখিলের পর অভিযুক্তদের আমার বিরুদ্ধে এমন মন্তব্য ষড়যন্ত্রমূলক। একটি মহল আমার বাবা ও আমার সম্মান ক্ষুণ্ন ও হয়রানি করতে অভিযুক্তদের প্ররোচণা দিচ্ছে।