শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
জকিগঞ্জের ভাইরাল ভিডিওর সুবাদে নির্যাতনকারী মেম্বার সালাম আটক  » «   ২৬ নভেম্বর লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের ক্যারম দাবা’র ফাইনাল ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান  » «   ইস্ট লন্ডনে গুলিবিদ্ধ বাংলাদেশী যুবক মারা গেছেন  » «   হৃদয়ে ৭১ ফাউন্ডেশনের ইতালী শাখা কার্যকরী কমিটি অনুমোদিত  » «   বিমানে ম্যানচেষ্টার থেকে কার্গোর মাধ্যমে মালামালও যাবে সরাসরি  » «   ডা. হোসাইন আহমদ সংক্ষিপ্ত সফরে  এখন লন্ডনে  » «   আল্লাহর রাসুল (সাঃ) কে ভালোবাসার মাধ্যমেই পরিপূর্ণ মুমিন হওয়া সম্ভবঃ হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী  » «   লন্ডনে একাত্তরে চা বাগানে নারকীয় গণহত্যা নিয়ে আলোচনা  » «   দুবাইয়ে সি আই পি মাহতাবুর রহমান ও আলহাজ্ব আব্দুল করিমকে সংবর্ধনা  » «   রোমে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত  » «   সোমবার স্পেন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন  » «   আন্দ্রে ফ্লেচার ঝড়ে বাংলা টাইগার্সের দাপুটে জয়  » «   কুয়েতে জালালাবাদ এসোসিয়েশনের মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত  » «   উপস্থাপকের অনুরোধেও শাকিব খান বাংলায় কথা বলেননি  » «   ইতালির ভেনিসে ভয়াবহ বন্যায় ২ জনের মৃত্যু  » «  

‘সুনাম দেবনাথ কেন আসামি নাই’: আদালতে অভিযুক্তরা



বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় গ্রেফতারের পর কারাগারে থাকা ১৪ জন অভিযুক্তকে মঙ্গলবার আদালতে হাজির করে পুলিশ। মামলার দিন ধার্য থাকায় সকালে বরগুনার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. সিরাজুল ইসলাম গাজীর আদালতে তাদের হাজির করা হয়।

আদালতে হাজিরের জন্য একটি প্রিজন ভ্যানে করে বরগুনা জেলা কারাগার থেকে প্রথমে ১৩ পুরুষ অভিযুক্তকে আনা হয়। এরপর একই ভ্যানে করে রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে আদালতে হাজির করে পুলিশ।

১৩ পুরুষ অভিযুক্তকে বহন করা প্রিজন ভ্যানটি আদালত প্রাঙ্গণে সাংবাদিকদের কাছে আসা মাত্রই ভেতর থেকে এক অভিযুক্ত উচ্চস্বরে বলেন, ‘সুনাম দেবনাথ কিন্তু আমাদের লিডার।’

এরপর আদালতের কার্যক্রম শেষে এই অভিযুক্তদের আদালত থেকে প্রিজন ভ্যানে তোলার সময় আবার অভিযুক্তরা সাংবাদিকদের সামনে উচ্চস্বরে বলেন, ‘অন্যায় অবিচার হচ্ছে।’ এরপর পাশ থেকে কেউ একজন অভিযুক্তদের বলেন, ‘এই কথা কম কও।’

এরপর আবার অভিযুক্তরা উচ্চস্বরে বলেন, ‘যে করছে, তারে দেছে সাত নাম্বার। মিন্নি কেন সাত নাম্বার? সুনাম দেবনাথ কেন আসামি নাই। সুনাম দেবনাথ নির্দেশ দাতা, সে কেন আসামি নাই। বাদশাহ হত্যার কেন বিচার হয় নাই।’

সুনাম দেবনাথ বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর ছেলে ও জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক।

তবে রিফাত হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্তদের সুনাম দেবনাথকে নিয়ে এমন উচ্চস্বরে মন্তব্যের সমালোচনা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত থাকা অনেকে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন জাগো নিউজকে বলেন, দীর্ঘ তদন্ত শেষে চার্জশিট দাখিলের পর সুনাম দেবনাথকে নিয়ে এমন মন্তব্য অভিযুক্তদের ষড়যন্ত্র মাত্র। এসব অভিযুক্ত প্রত্যেকে এক বা একাধিকবার রিমান্ড শেষে আদালতে রিফাত হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, সুমন দেবনাথ যদি এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকতো তাহলে আসামিরা তাদের স্বীকারোক্তিতে সে কথা উল্লেখ করত। কিন্তু তারা তা করেনি। এটা দিয়েই প্রমাণিত হয় সুনাম দেবনাথের সম্মান ক্ষুণ্ন ও হয়রানি করতেই অভিযুক্তরা এমন মন্তব্য করেছে।

এ বিষয়ে সুনাম দেবনাথ বলেন, রিফাত হত্যাকাণ্ড এবং এ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের সঙ্গে আমার কোনো সম্পর্ক নেই। কখনো ছিলও না। আমি এ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

তিনি বলেন, এমন একটি আলোচিত হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্ত শেষে পুলিশ চার্জশিট দাখিল করেছে। হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত ও জড়িতদের স্বীকারোক্তি ও তদন্তে পাওয়া সঠিক তথ্য উপাত্ত দিয়েই পুলিশ চার্জশিট দাখিল করেছে। এমন একটি আলোচিত হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকলে কারোরই রেহাই পাওয়ার সুযোগ নেই। এ ঘটনায় জড়িত থাকলে আমিও রেহাই পেতাম না।

সুনাম দেবনাথ বলেন, সকল অভিযুক্তরাই রিমান্ড শেষে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। এ হত্যাকাণ্ডে আমি জড়িত না থাকায় স্বীকারোক্তিতে আমার নাম কেউ বলেনি। কিন্তু চার্জশিট দাখিলের পর অভিযুক্তদের আমার বিরুদ্ধে এমন মন্তব্য ষড়যন্ত্রমূলক। একটি মহল আমার বাবা ও আমার সম্মান ক্ষুণ্ন ও হয়রানি করতে অভিযুক্তদের প্ররোচণা দিচ্ছে।