সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
 পরিচ্ছন্ন সিলেটের স্বপ্ন দেখছে প্রজেক্ট ‘ক্লীন সুরমা, গ্রীন সিলেট’  » «   বাংলাদেশের মুক্ত অর্থণেতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করবে আরব আমিরাত  » «   আজমানে স্কুল প্রতিষ্ঠার জন্য ব্যবসায়িদের সাথে কনসাল জেনারেলের মতবিনিময়  » «   ডাকসুর কোষাধ্যক্ষ অপসারন ও ৩৪ জনের ছাত্রত্ব বাতিলের দাবীতে ভিপি’র চিঠি  » «   কাতালোনীয়ার স্বাধীনতার ডাকে লক্ষ লক্ষ জনতার সমাবেশ  » «   সুনির্দিষ্ট অভিযোগে ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদককে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে: জয়  » «   সিলেটে বাম গণতান্ত্রিক জোটের জনসভা  » «   শীঘ্রই আমিরাতের আজমানে বাংলাদেশ স্কুল প্রতিষ্ঠা হচ্ছে  » «   সংহতি আমিরাতের শাহ আব্দুল করিম উৎসব  » «   লন্ডনে বিয়ানীবাজারের প্রবীন ব্যক্তিত্ব আবদুস সাত্তার স্মরণ সভা  » «   কৃুয়েত দূতাবাসের বিতর্কিত কর্মচারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা  » «   মাদকেরও অভিযোগ : প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শোভন-রাব্বানীর দেখা করার অনুমতি স্থগিত  » «   নেপাল-চীনেও ডেঙ্গু : বিভিন্ন দেশ ভ্রমণে সতর্ক করেছে যুক্তরাষ্ট্র  » «   বিসিএ রেষ্টুরেন্ট অফ দ্যা ইয়ার ও বিসিএ শেফ অফ দ্যা ইয়ার এর প্রতিযোগিতা আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু  » «   রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বসবাসের কোনো চিহ্নই নেই  » «  

মিলান কনস্যুলেটে জাতীয় শোক দিবস পালন



১৫ আগস্ট বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল মিলান যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালন করে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে কনস্যুলেট কর্তৃক আয়োজিত কর্মসূচির মধ্যে ছিল জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ, জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন, মোনাজাত, এক মিনিট নিরবতা পালন, বিশেষ প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন এবং আলোচনা সভা।

অনুষ্ঠানের শুরুতে কনসাল জেনারেল ইকবাল আহমেদ কনস্যুলেটের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও প্রবাসী বাঙ্গালীদের নিয়ে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।  পরে কনস্যুলেট-এর কর্মকর্তাগণ কর্তৃক রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়। বঙ্গবন্ধুসহ ১৫ই আগস্ট এর সকল শহীদের আত্মার মাগফিরাত এবং দেশ ও জাতির শান্তি, সমৃদ্ধি কামনা করে কোরানখানি ও বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত প্রবাসী বাঙ্গালীগণ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক প্রজ্ঞা এবং তাঁর সংগ্রামী রাজনৈতিক জীবনের উল্লেখযোগ্য দিকসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

কনসাল জেনারেল তাঁর বক্তব্যে এ দিনের ঘটনা পরম্পরা এবং বাঙ্গালী জাতির জীবনে এ বিয়োগান্তক ঘটনার সুদূর প্রসারী নেতিবাচক প্রভাবের দিক তুলে ধরে বলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশে অতি দ্রুত প্রয়োজনীয় রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন।

কনসাল জেনারেল ইকবাল আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের মধ্যে যারা এখনো বিভিন্ন দেশে পলাতক রয়েছে তাদের দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের সম্মুখীন করার জন্য কুটনৈতিক তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। এ ব্যাপারে প্রবাসীদেরও নিজেদের অবস্থানে থেকে ভূমিকা পালনের চেষ্টা করতে হবে।
আলোচনা পর্ব শেষে আগত অতিথিদের আপ্যায়নের মধ্য দিয়ে সভা সমাপ্ত করা হয়।