সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ১ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
 পরিচ্ছন্ন সিলেটের স্বপ্ন দেখছে প্রজেক্ট ‘ক্লীন সুরমা, গ্রীন সিলেট’  » «   বাংলাদেশের মুক্ত অর্থণেতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করবে আরব আমিরাত  » «   আজমানে স্কুল প্রতিষ্ঠার জন্য ব্যবসায়িদের সাথে কনসাল জেনারেলের মতবিনিময়  » «   ডাকসুর কোষাধ্যক্ষ অপসারন ও ৩৪ জনের ছাত্রত্ব বাতিলের দাবীতে ভিপি’র চিঠি  » «   কাতালোনীয়ার স্বাধীনতার ডাকে লক্ষ লক্ষ জনতার সমাবেশ  » «   সুনির্দিষ্ট অভিযোগে ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদককে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে: জয়  » «   সিলেটে বাম গণতান্ত্রিক জোটের জনসভা  » «   শীঘ্রই আমিরাতের আজমানে বাংলাদেশ স্কুল প্রতিষ্ঠা হচ্ছে  » «   সংহতি আমিরাতের শাহ আব্দুল করিম উৎসব  » «   লন্ডনে বিয়ানীবাজারের প্রবীন ব্যক্তিত্ব আবদুস সাত্তার স্মরণ সভা  » «   কৃুয়েত দূতাবাসের বিতর্কিত কর্মচারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা  » «   মাদকেরও অভিযোগ : প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শোভন-রাব্বানীর দেখা করার অনুমতি স্থগিত  » «   নেপাল-চীনেও ডেঙ্গু : বিভিন্ন দেশ ভ্রমণে সতর্ক করেছে যুক্তরাষ্ট্র  » «   বিসিএ রেষ্টুরেন্ট অফ দ্যা ইয়ার ও বিসিএ শেফ অফ দ্যা ইয়ার এর প্রতিযোগিতা আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু  » «   রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বসবাসের কোনো চিহ্নই নেই  » «  

সেমিফাইনালের স্বপ্নে টাইগার ভক্তরা



সেমিফাইনালের স্বপ্ন আমাদের। স্বর্ণটা টাইগারদের। স্বপ্নটা বাংলাদেশের পাশাপাশি সারা বিশ্বের টাইগার ভক্তদের। আর এই স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে গতকাল সোমবার মুশফিক মাহমুদুল্লাহর যৌথ খেলায় সারা সাউদাম্পটন জেগে উঠেছিল। সাউদাম্পটনের গ্যালারি ছিল কানায় কানায় পূর্ণ। টাইগার সমর্থকরাই ছিল গণমাধ্যমের প্রধান ফোকাস। সাউদাম্পটনের খেলা দেখতে ব্রিটেনের বিভিন্ন শহর থেকে গেছেন সমর্থকরা। নর্থ ওয়স্টে ইংল্যান্ডে থেকে অনেকেই তাদের যাত্রা শুরু করেছেন ভোর রাতে। লক্ষ্য একটাই, ছেয়ে দিতে হবে লাল সবুজে রোজ বোল ক্রিকেট গ্রাউন্ড গ্যালারি। তা-ই হয়েছিল। শুধু পতাকায় নয়, সবুজ পোশাকেও।

মুশফিক মাহমুদুল্লাহর যৌথ খেলায় সারা সাউদাম্পটন জেগে উঠেছিল। ভেপুর সুরে সুরে ছিল বাংলাদেশ বাংলাদেশ চিৎকার। মাঝে মাঝে বাংলা গানের আবহে মনে হয়েছিল খেলা হচ্ছে বাংলাদেশেই। ২০৭ রানের মাথায় মাহমুদুল্লাহ পড়ে গেলেও সমর্থকদের উৎসাহে কোনো ভাটা পড়েনি। আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে প্রত্যাশিত রান বাংলাদেশ পাচ্ছিল না যদিও, কিন্তু গ্যালারির দিকে তাকালে মনে হয়েছে সমর্থকরা মোটেও শঙ্কিত না। বরং মোসাদ্দেকের ব্যাটিংয়ে যেন আরো উজ্জীবিত হতে থাকে সমর্থকরা।

কিন্তু বিশ্বকাপে আফগানরা একের পর এক পরাজয়েও যেন পরাভূত হয়নি। ভারতের সঙ্গে বিস্ময়কর সফল খেলার পর বাংলাদেশের সঙ্গেও তারা রীতিমতো যুদ্ধ করেছে। আফগানদের বোলিং যেভাবে ধরাশায়ী করছিল টাইগারদের, তাতে শঙ্কা বাড়ছিলই। বিশেষত আম্পায়ারের একটা বিতর্কিত সিদ্ধান্তে লিটন দাশের আউট হয়ে যাওয়ায় আরো হতাশ হন টাইগার সমর্থকরা।

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে যে দক্ষতা নিয়ে টাইগাররা প্রতিরোধ গড়ে তোলেছিল, সেরকম প্রতিরোধই যেন গড়ে তুলেছিল আফগানরা বাংলদেশের বিপরীতে। মুজিবের বল সামলাতে তাদের হিমশিম খেতে হয়েছে। বরং মুজিবের বলের ধাক্কায় বাংলদেশের ৩ জন ট্রাইগারকে সাজঘরে ফিরে যেতে হয়েছে। এমনকি অস্ট্রেলিয়ার বিপরীতে সাকিব আল হাসানের চমক দেখানো খেলা আফগানদের সঙ্গে এসে কিছুটা মিইয়ে গেছে। যদিও প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে বিশ্বকাপের মঞ্চে ১ হাজার রানের মাইলফলক ছোঁয়ার পর আরো একটি রেকর্ড গড়ছেন সাকিব আল হাসান। বিশ্বকাপের এক আসরে দেশের রেকর্ড ৫ম পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস খেলেছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।

বিশ্বকাপে সেমিফাইনালের স্বপ্নটা আমদের। এই স্বপ্ন নিয়েই গতকাল টাইগাররা মরণপণ লড়েছেন। ব্যাটিং শেষে মোসাদ্দেকের মতো তাই সারা গ্যালারিই আশায় আশায় থেকেছেন ২৬৩ রানের মধ্যেই রাখতে আফগানদের। প্রত্যাশা রেখেছেন জয়ের।