সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
https://blu-ray.world/ download movies
সর্বশেষ সংবাদ
পর্তুগালের লিসবনে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   ইতালী আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল উপলক্ষে প্রস্তুতি কমিটি  » «   ইতালিতে অমর একুশে পালিত  » «   স্পেনে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন  » «   পরমাণু বিজ্ঞানী ও লেখক ড. ফয়জুর রহমান আল সিদ্দিকর সাথে কথোপকথন  » «   ২১শে ফেব্রুয়ারীতে বইমেলায় মানুষের ঢল  » «   একুশের চেতনা পাকিস্তানেও  » «   লন্ডনে সফলভাবে ‘বঙ্গবীর ওসমানী কাপ ২০২০’ সম্পন্ন  » «   প্যারিসে ৫২বাংলা টিভির ২য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান  » «   স্পেনে চোর-ডাকাত প্রতিরোধে প্রতিবাদ র‍্যালি  » «   ক্রিস্টমাস সিঙ্গল ক্যারামের পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠিত  » «   আবুধাবী ও সাহামা আওয়ামী লীগের আনন্দ ভ্রমন ও বনভোজন  » «   আমিরাতে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টে দুবাই টিমের চমক  » «   লেখা চুরি করে বই প্রকাশ  » «   পর্তুগাল আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের সিলেটে শীতবস্ত্র বিতরণ  » «  

ফ্লোরেন্সে ইতালিয়ান ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগ আকর্ষণে সেমিনার



বাংলাদেশ দূতাবাস, রোম, ইতালি বাংলাদেশের উন্নয়ন চিত্র, বিদ্যমান বিনিয়োগ বান্ধব পরিবেশ, বিনিয়োগের সম্ভাব্য ক্ষেত্রগুলি এবং বিদেশী বিনিয়োগকারীদের জন্য বাংলাদেশ সরকার প্রদত্ত বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধাগুলি তুলে ধরার লক্ষ্যে ফ্লোরেন্স চেম্বার ভবনে ১৭ মে  বিকেলে এক সেমিনারের আয়োজন করে।

রাষ্ট্রদূত আব্দুস সোবহান সিকদার এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সেমিনারে ফ্লোরেন্স চেম্বার অব কমার্স এর নেতৃবৃন্দসহ তুসকানা, উম্ব্রিয়া ও মার্কে অঞ্চলের প্রায় 20 জন সফল ইতালিয়ান ব্যবসায়ী অংশগ্রহণ করেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফ্লোরেন্স চেম্বার অব কমার্স এর জনাব মারিও কুরিয়া । অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন ফ্লোরেন্স এর বাংলাদেশের অনারেরি কনসাল জেনারেল এডভোকেট জর্জিয়া গ্রানাতা।

রাষ্ট্রদূত প্রথমে বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ দেশে রূপান্তরিত করার লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ২০২১ এবং ভিশন ২০৪১ সম্পর্কে এবং বিগত দশ বছরে বাংলাদেশের ধারাবাহিক অর্থনৈতিক উন্নয়নের চিত্র ব্যবসায়ীদের কাছে তুলে ধরেন।

রাষ্ট্রদূত আব্দুস সোবহান সিকদার বলেন, দ্বিপাক্ষিক ব্যবসা বৃদ্ধি ও বিনিয়োগের উত্তম ক্ষেত্র হিসেবে বাংলাদেশ বিবেচিত হতে পারে কারণ বাংলাদেশে রয়েছে স্থিতিশীল রাজনৈতিক অবস্থা, উৎপাদিত পণ্যের বিশাল বাজার, উৎপাদনের জন্য নিম্ন শ্রম মজুরি এবং সর্বোপরি সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ধরনের বিনিয়োগ প্রণোদনা প্যাকেজ।

সেমিনারে ইকনমিক কাউন্সেলর মানস মিত্র ‘বাংলাদেশ: ডেস্টিনেশন নেক্সট (Bangladesh: Destination Next)’ শিরোনামে একটি পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন প্রদান করেন। প্রেজেন্টেশন এর পরে প্রশ্ন-উত্তর পর্ব ও মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন উপস্থিত ব্যবসায়ীরা। মান্যবর রাষ্ট্রদূত ও ইকনমিক কাউন্সেলর ব্যবাসায়ীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন। মুক্ত আলোচনায় ব্যবসায়ীগণ দূতাবাসের এ উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং ইতালি ও বাংলাদেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক বৃদ্ধির ক্ষেত্রে এ ধরনের উদ্যোগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে তারা আশা প্রকাশ করেন।

এ সেমিনাররের মাধ্যমে বাংলাদেশ দূতাবাসের সাথে তুসকানা, উম্ব্রিয়া ও মার্কে অঞ্চলের ব্যবসায়ীদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হয়েছে বলে বিশেষ অতিথি মারিও কুরিয়া উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এবং ইতালির মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক ধারাবাহিকভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং এ আয়োজন সম্ভাব্য ইতালিয়ান ব্যবাসায়ীদেরকে বাংলাদেশে বিনিয়োগের উৎসাহিত করবে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ দূতাবাস ইতালির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চলে বিশেষ করে মিলান, ভেনিস, নেপলস, জেনোয়া, পালেরমো এবং কাতানিয়া শহরে এ ধরনের সেমিনার আয়োজনের উদ্যোগ নিয়েছে।