মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ
বার্মিংহামে কসবা-খাসা ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে’র প্রীতি সমাবেশ  » «   কাতালোনীয়া সান্তা কলমা আওয়ামী লীগের জাতীয় শোক দিবস পালন  » «   পর্তুগাল আওয়ামী লীগের জাতীয় শোক দিবস  » «   মদিনায় বাস দূর্ঘটনায় নিখোঁজ ১ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে  » «   স্পেন ছাত্রলীগ জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে  » «   খায়রুল আনামের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  » «   মনসা পূজোর জন্যে আবার প্রস্তুত সিকদার বাড়ি  » «   স্পেনে জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস  » «   মিলান কনস্যুলেটে জাতীয় শোক দিবস পালন  » «   লন্ডনে মুক্তিযুদ্ধ গবেষক তাজুল মোহাম্মদের সাথে অন্তরঙ্গ আড্ডা  » «   সৌদি আরবে জাতীয় শোক দিবস পালিত  » «   সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি হাজি নিহত  » «   সৌদির তেল স্থাপনায় ভয়াবহ হামলা  » «   বাংলাদেশ কনসুলেট জেদ্দার শোকদিবস পালন  » «   জেদ্দা ইংরেজি মাধ্যমে স্কুলে ৪৪তম “জাতীয় শোক দিবস” পালন করেছে।  » «  

সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রথম সমাবেশে ডঃকামাল

দেশের মালিকানা পুনরুদ্ধার করতে হবে



গণফোরামের সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম প্রধান নেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, আমরা ৭ দফা কর্মসূচি দিয়েছি। সংবিধানের ৭নং অনুচ্ছেদে রয়েছে জনগণ দেশের মালিক। কিন্তু বর্তমানে জনগণের সেই মালিকানা নেই। এটা আদায় করে নিতে হবে। আমাদের ১ নম্বর দাবি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন। এর সঙ্গে আরও ছয়টি দাবি রয়েছে।

দেশের মালিকানা পুনরুদ্ধার করতে হলে ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হলে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের প্রয়োজন। আমাদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মধ্য দিয়ে লক্ষ্যগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। আমাদের দেওয়া সাত দফার বিষয়গুলো এবং সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনের দাবিগুলো দেশের প্রতিটি গ্রাম, থানা, ইউনিয়ন ও জেলা উপজেলার জনসাধারণের কাছে ছড়িয়ে দিতে হবে। অধিকার আদায়ে জনগনকে সম্পৃক্ত করতে হবে।আমাদের সাত দফার অন্যতম দাবী— খালেদা জিয়ার মুক্তি। তাই খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন।বুধবার বিকেলে সিলেটের রেজিস্টারি মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন ড. কামাল হোসেন।

ইভিএম ব্যবহারের পরিকল্পনা থেকে সরকারকে সরে আসার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।তিনি ইভিএমকে ‘ডিজিটাল ভোট চুরির যন্ত্র’ হিসেবে উল্লেখ করেন তাঁর বক্তৃতায়।মির্জা ফখরুল বলেন, পুণ্যভূমি সিলেটে মাজার জিয়ারতের মধ্য দিয়ে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের যাত্রা শুরু হয়েছে। সিলেট আরেকটি ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে থাকবে। গণতান্ত্রিক লড়াই ও আন্দোলনের মধ্য দিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনতে হবে। ফিরিয়ে আনতে হবে আমাদের ভোটের অধিকার।

সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে সমাবেশ অনুষ্ঠতি হয়। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ ও নগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আজমল বখত চৌধুরীর সঞ্চালনায় এতে আরও বক্তব্য দেন, ঐক্যফ্রন্টের শরিক জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি আ স ম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ, মওদুদ আহমদ, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার কেন্দ্রীয় সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ ঐক্যফ্রন্ট ও বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা।